11তিব্বত হলসহ বেদখলে থাকা জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ১০টি হল উদ্ধার ও নতুন হল নির্মাণের দাবিতে আজ বুধবার পুরান ঢাকার রায় সাহেববাজার মোড় অবরোধ করেছেন শিক্ষার্থীরা।

এতে সদরঘাট থেকে গুলিস্তান ও বাবুবাজার থেকে যাত্রাবাড়ী সড়কে যান চলাচল বন্ধ রয়েছে।

‘জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের বেদখল হওয়া হল উদ্ধার সংগ্রাম পরিষদের’ ব্যানারে হাজার হাজার শিক্ষার্থী দুপুর ১২টার দিকে টায়ারে আগুন জ্বেলে সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করছেন। তাঁরা পুলিশের লালবাগ বিভাগের উপকশিনার (ডিসি) হারুন অর রশিদ ও কোতোয়ালি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মনিরুজ্জামানকে প্রত্যাহারের দাবি জানিয়ে যাচ্ছেন।

সংগ্রাম পরিষদের আহ্বায়ক ও শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি এফ এম শরিফুল ইসলাম দৈনিক বার্তাকে বলেন, ‘আজকের কর্মসূচিতে সড়ক অবরোধের কথা না থাকলেও মন্ত্রীদের পুরান ঢাকায় আসার কথা শুনে আমরা সড়ক অবরোধ করেছি।’

আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা জানান, পূর্ব কর্মসূচি অনুযায়ী বেলা ১১টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের মুক্তিযুদ্ধের ভাস্কর্য চত্বরে গণস্বাক্ষর কর্মসূচি ও বিক্ষোভ মিছিল শুরু করেন তাঁরা। এ সময় তঁরা জানতে পারেন, পুরান ঢাকার কবি নজরুল কলেজে এক আলোচনা সভায় যোগ দিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ। বিশ্ববিদ্যালয়ের পাশেই ঢাকা জেলা দায়রা জজ আদালতে আইনজীবী সমিতির এক অনুষ্ঠানে আইনমন্ত্রী আনিসুল হকের যোগ দেওয়ার কথা। এ খবরের ভিত্তিতে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের বেশির ভাগ এসে রায় সাহেববাজার মোড় অবরোধ করেন।

তোপের মুখে সাহারা খাতুন

ঢাকা জেলা দায়রা জজ আদালতে আইনজীবী সমিতির অনুষ্ঠানে যোগ দিতে যাওয়ার পথে ক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীদের তোপের মুখে পড়েন সাবেক ডাক ও টেলিযোগাযোগমন্ত্রী সাহারা খাতুন।

দুপুর ১২টার দিকে রায় সাহেববাজার মোড়ে সাহারা খাতুনের গাড়ি ঘেরাও করে রাখেন শিক্ষার্থীরা। আধা ঘণ্টা পর সাবেক এই মন্ত্রী গাড়ি থেকে নেমে শিক্ষার্থীদের সঙ্গে কথা বলেন। আজ সন্ধ্যায় সংসদ অধিবেশনে পয়েন্ট অব অর্ডারে শিক্ষার্থীদের আবাসন-সংকট নিয়ে তিনি কথা বলবেন বলে শিক্ষার্থীদের আশ্বাস দেন। এরপর তাঁরা সাবেক এই মন্ত্রীকে যেতে দেন।