নতজানু নীতির কারণেই তিস্তার ন্যায্য হিস্যা পাচ্ছি না:মাহবুব

0
22

1দৈনিক বার্তা: বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য  লে. জেনারেল (অব.) মাহবুবুর রহমান বলেছেন, সরকারের নতজানু নীতির কারণেই ভারতের কাছ থেকে তিস্তার পানির ন্যায্য হিস্যা আমরা পাচ্ছি না। যার ফলে প্রাকৃতিক দুর্যোগ আমাদের পিছু ছাড়ছে না।এ সরকার যদি জনগণের  ভোটে নির্বাচিত সরকার হতো, তাহলে জনগণের কথা চিন্তা করে জনগণের কল্যাণে কাজ করতো।

শুক্রবার সকাল সাড়ে ১১টায় জাতীয়  প্রেসক্লাবের সামনে বিএনপির সহযোগী ঐক্য পরিষদ আয়োজিত ড. খন্দকার  মোশাররফ  হোসেন, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, আমানউল্লাহ আমানসহ সকল  নেতৃবৃন্দের মুক্তির দাবিতে আয়োজিত মানববন্ধনে তিনি এ কথা বলেন।

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য  লে.জেনারেল (অব.) মাহবুবুর রহমান বলেন, সরকারের নতজানু নীতির কারণে তিস্তায় পানি  নেই। এজন্য দেশে ৫৪ বছরের ইতিহাসে সর্বোচ্চ দাবদাহ চলছে।তিনি বলেন, এই সরকার অবৈধ। জনগণের ভোটে নির্বাচিত হলে সরকার জনকল্যাণে কাজ করতো।

তিনি বলেন, ১০ম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে জনগণের অংশগ্রহণ ছিল না। তাই এ সরকার গণতান্ত্রিক সরকার হতে পারে না। দ্রুত জনগণের অংশগ্রহণের মাধ্যমে একাদশ সংসদ নির্বাচন আয়োজনের আহ্বান জানান তিনি।দশম জাতীয় সংসদ অগণতান্ত্রিকভাবে গঠিত হয়েছে। এজন্য দ্রুত সব দলের অংশগ্রহণে একাদশ সংসদ নির্বাচন দাবি করেন তিনি। মাহবুবুর রহমান বলেন, দশম জাতীয় সংসদ একটি অকার্যকর সংসদ। এটি জনগণের  ভোটে নির্বাচিত প্রতিনিধিদের সংসদ নয়। তাই জনগণের সরকার ফিরিয়ে আনতে অবিলম্বে একাদশ সংসদ নির্বাচনের বিকল্প  নেই।৫ জানুয়ারি নির্বাচনের সমালোচনা করে দ্রুত একাদশ সংসদ নির্বাচনের দাবি জানান তিনি।মাহবুব বলেন, তিস্তার ন্যায্য পানি পাওয়ার দাবিতে আমাদের লংমার্চ। যতদিন আমাদের অধিকারের পানি না পাবো, ততদিন আন্দোলন চলবে।

তিনি বলেন, আমাদের নেতা-কর্মীরা জেলে। নানা জুলুম-নির্যাতন করে এ  সংগ্রাম দমানো যাবে না।বর্তমান সরকারের সমালোচনা করে তিনি বলেন, প্রতিবেশী  দেশের সঙ্গে বন্ধুত্ব রক্ষার পাশাপাশি নিজ দেশের স্বার্থ নিয়েও ভাবতে হবে।

জাপা সভাপতি শফিউল আলম প্রধান বলেন, ড. মোশাররফ, গয়েশ্বর ও আমানের মুক্তি কার কাছে চাইব। এ সরকারতো অবৈধ সরকার। অবৈধ সরকারের কাছে কারাবন্দি  নেতাদের মুক্তি চাইতে পারি না।১০ম জাতীয় সংসদ নির্বাচনের মতোই ধানমন্ডি মাঠ দখলের  চেষ্টা হয়েছে জানিয়ে তিনি বলেন, ৭১ পরবর্তী সময় জামাল বাহিনী-কামাল বাহিনীকে গণআন্দোলনের মুখে প্রতিরোধ করা হয়েছিল।  তেমনিভাবে ধানমন্ডি মাঠকেও জামাল বাহিনীর হাত  থেকে মুক্ত করা হয়েছে।

মেজর (অব.)  মোহাম্মদ হানিফের সভাপতিত্বে মানববন্ধনে বিএনপির আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক নাজিমুদ্দিন আলমসহ বিভিন্ন অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।