নরেন্দ্র মোদির উপস্থিতিতে বিজেপিতে যোগ দেন মনামোহনের সৎভাই

0
53

1ভারতের প্রধানমন্ত্রী ড. মনমোহন সিংয়ের সৎভাই দলজিৎ সিং কোহলি বিজেপিতে যোগ দেয়ায় অত্যন্ত মর্মাহত হয়েছেন কংগ্রেসের এই প্রধানমন্ত্রী। শুক্রবার বিজেপির এক নির্বাচনী সভায় বিজেপিতে যোগ দেন মনমোহনের এই ভাই।
শনিবার পদ্মশ্রী পুরস্কার প্রদান অনুষ্ঠানে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, এতে আমি খুবই মর্মাহত। ওরা সবাইপ্রাপ্ত বয়স্ক। ওদের ওপর আমার কোন নিয়ন্ত্রণ নেই। শুক্রবার অমৃতসরে বিজেপির এক নির্বাচনী সভায় নরেন্দ্র মোদির উপস্থিতিতে বিজেপিতে যোগ দেন মনামোহনের এই সৎভাই। তার এই সৎভাই স্থানীয় ব্যবসায়ী। তার সৎভাই বিজেপিতে যোগ দেয়ার পর দিনও ভারতে মোদি জোয়ারের যে কথা বলা হচ্ছে তা উড়িয়ে দিলেন দুই দফা প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব পালনকারী অর্থনীতিবিদ মনমোহন।
কংগ্রেসই ফের ভারতে কেন্দ্রীয় সরকার গঠন করবে এই আশাবাদ ব্যক্ত করে মনমোহন বলেন, ইউপিএ জোটের তৃতীয়বারের মতো ক্ষমতায় আসার বিষয়টি অসম্ভব নয়। কোহলির বিজেপিতে যোগ দেয়ায় বরং তার দল কংগ্রেসের ভীত আরও মজবুত হবে বলে জানান মনমোহন। পিটিআই, ইন্ডিয়া টুডে ও দ্য হিন্দু অনলাইন।
এদিকে কোহলির এই সিদ্ধান্তে মনমোহনের পাশাপাশি তার পরিবারের সবাই মর্মাহত হয়েছে বলে প্রধানমন্ত্রীর এক সূত্র জানিয়েছে। এই সূত্র আরও জানায়, দলজিৎ সিং কোহলি বিজেপিতে যোগ দেয়ায় উদ্বিগ্ন নন প্রধানমন্ত্রী। মনমোহনের সঙ্গে তার এই সৎভাইয়ের দীর্ঘদিন যোগাযোগ নেই। মনমোহনের আপন ছয় বোন রয়েছে। আর দলজিৎ সিং কোহলি তার একমাত্র সৎভাই। কংগ্রেসের মুখপাত্র শাকিল আহমেদ শনিবার বলেছেন, প্রধানমন্ত্রীর সৎভাই দলজিত সিং কোহলির বিজেপিতে যোগদান তাঁর ব্যক্তিগত সিদ্ধান্তের বিষয় এবং এ দলে যাওয়ার অধিকার তাঁর রয়েছে। শাকিল আহমেদ বলেন, প্রতিটি মানুষ তার নিজস্ব পছন্দ অনুযায়ী ব্যক্তিগতভাবে সিদ্ধান্ত নেয়ার ক্ষমতা রাখেন। প্রকৃতপক্ষে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় থেকে বলা হয়েছে, তারা এই সিদ্ধান্তে বিস্মিত হয়েছেন। আমি সংবাদপত্র পড়ে জেনেছি যে, প্রধানমন্ত্রীর আরেক ভাই এগিয়ে এসে বলেছেন, তাঁরা মোট চার ভাই ও ছয় বোন এবং তিনি ছাড়া অন্যরা সবাই কংগ্রেসকে সমর্থন করে। তাই স্বাভাবিকভাবে যে কেউ তার নিজের পথ বেছে নেয়ার ব্যাপারে স্বাধীন। যদি তিনি বিশ্বাস করেন, তাঁর সিদ্ধান্ত তার জন্য সহায়ক হবে তাহলে তিনি তা করতেই পারেন। ভারতের প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিংয়ের সৎভাই দলজিৎ সিং কোহলি বিজেপিতে যোগ দিয়েছেন। কোহলি শুক্রবার রাতে অমৃতসরে বিজেপি ও শিরোমনি আকালি দল (এসএডি)-এর যৌথ উদ্যোগে অনুষ্ঠিত নির্বাচনী সমাবেশে মঞ্চে উপস্থিত ছিলেন। এ সমাবেশে পাঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী প্রকাশ সিং বাদলও উপস্থিত ছিলেন। এদিকে প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিংয়ের সৎভাইয়ের বিজেপিতে যোগদানে তিনি ও তাঁর পরিবার অসন্তুষ্ট বলে পত্রিকার খবরে জানা গেছে। প্রধানমন্ত্রীর পরিবার জানিয়েছে, তারা এখনও মনমোহনের পক্ষে রয়েছেন এবং দলজিতের সিদ্ধান্তে তারা মর্মাহত হয়েছেন। তারা এর নিন্দা করেছেন। মনমোহনের নাতি রণদীপ সিং বলেছেন, আমরা দলজিতের সিদ্ধান্তে মর্মাহত হয়েছি, তবে এটা স্রেফ তাঁর সিদ্ধান্ত। মনমোহন একজন সৎ মানুষ যিনি ভারতের কল্যাণের জন্য কাজ করেছেন। তাঁর জন্য আমরা গর্বিত। প্রধানমন্ত্রীর ভাইপো মনদীপ সিং কোহলি বলেছেন, আমরা দলজিতের সিদ্ধান্তে মর্মাহত। সমগ্র পরিবার এখনও মনমোহন সিংয়ের পাশে রয়েছে। তিনি বলেন, বিজেপি তাঁকে তাদের দলে যোগ দেয়ার প্রস্তাব দিয়েছিল।