প্রেমঘটিত কারণে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের এক ছাত্রীকে ক্ষুর দিয়ে আঘাত

0
82

1দৈনিক বার্তা : প্রেমঘটিত কারণে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের এক ছাত্রীকে ক্ষুর দিয়ে আঘাত করে গুরুতর আহত করেছে স্থানীয় এক যুবক। রোববার বেলা সাড়ে ১২টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয় সংলগ্ন কাজলা গেটে এ ঘটনা ঘটে। আহত ওই ছাত্রীর নাম ইসমাত জাহান সিগমা। তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ের হিসাববিজ্ঞান ও তথ্য ব্যবস্থা বিভাগের চতুর্থ বর্ষের শিক্ষার্থী। গুরুতর আহত অবস্থায় প্রথমে তাকে বিশ্ববিদ্যালয় চিকিৎসা কেন্দ্রে ও পরে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের কাজলা গেটে রিকশায় উঠছিলেন সিগমা। এসময় মোটরসাইকেলযোগে দ্রুত এসে সিগমার পিঠে ক্ষুর দিয়ে আঘাত করে পালিয়ে যায় মমতাজুল ইসলাম হিমু। এতে তার ঘাড়ের নিচ থেকে কোমরের নিচ পর্যন্ত অন্তত ‘দুই ইঞ্চি’ গভীর হয়ে কেটে যায়। ঘটনাস্থলেই রক্ত দিয়ে তার শরীর ভিজে যায়। পরে তার সহপাঠীরা অটোরিকশায় করে প্রথমে বিশ্ববিদ্যালয়ের চিকিৎসাকেন্দ্রে নিয়ে যায়। পরে অবস্থা গুরুতর দেখে তাকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি পাঠানো হয়। বিশ্ববিদ্যালয়ের চিকিৎসা কেন্দ্র আসা আহত সিগমার কয়েকজন সহপাঠী বলেন, প্রথম বর্ষ থেকেই সিগমা নগরীর তালাইমারীর স্থানীয় মমতাজুল ইসলাম হিমুর সাথে প্রেমের সম্পর্কে অবদ্ধ হয়। গত কয়েক বছরে তাদের মধ্যে গভীরভাবে মেলামেশাও হয়েছে। সম্পর্ক শুরুর আগে হিমু নিজেকে আরব বাংলাদেশ (এবি) ব্যাংকের রাজশাহী শাখার একজন কর্মকর্তা পরিচয় দিলেও তিনি আসলে ওখানকার প্রহরী। প্রথমে সিগমা বিষয়টি জানতো না। কিন্তু সম্পর্ক হওয়ার তিন বছরের মাথায় বিষয়টি প্রকাশ হওয়ায় সিগমা ওই ছেলেকে এড়িয়ে চলতে থাকে। সিগমার এই পরিবর্তন দেখে হিমু বেশ কিছুদিন ধরেই তাকে হুমকি দিয়ে আসছিল। তারই জের ধরে আজ একাধিক লোকের সামনে তার পিঠে ক্ষুর দিয়ে আঘাত করেছে।  বিশ্ববিদ্যালয় চিকিৎসা কেন্দ্রের কয়েকজন চিকিৎসক বলেন, ক্ষুরের আঘাতে সিগমার মেরুদণ্ডের পাশ দিয়ে উপর থেকে নিচ পর্যন্ত কেটে গেছে। আঘাতটি গুরুতর বলেও জানান তারা।  এ ব্যাপারে মতিহার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আলমগীর হোসেন বলেন, কাজলা গেটে বিশ্ববিদ্যালয় এক ছাত্রীকে ক্ষুর দিয়ে আঘাত করা হয়েছে। আমরা রাজশাহীর এবি ব্যাংকের গার্ড মমতাজুল ইসলাম হিমু বাসা তল্লাশি করেছি, তবে এখন পর্যন্ত তাকে গ্রেপ্তার করতে পারিনি।