শুধু স্লোগান নয়,জেলের তালা ভাঙার প্রস্তুতি নিন :মির্জা আব্বাস

0
38

1শুধু স্লোগান না দিয়ে জেলের তালা ভাঙার প্রস্তুতি নিতে ছাত্রদলের নেতা-কর্মীদের পরামর্শ দিয়েছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস। তিনি বলেছেন, আ.লীগ গ্র“পিং এর মাধ্যমে যেভাবে দেশ পরিচালনা করছে,সেই গুম, খুনের শিকার একদিন তাদেরই হতে হবে।প্রধানমন্ত্রীকে উদ্দেশ্য করে তিনি বলেন, আপনি যেভাবে দেশ চালাচ্ছেন তাতে বিএনপি থাকবে কিন্তু আ.লীগ এবং আপনি একদিন বিলীন হয়ে যাবেন।কেননা আপনারা দেশকে পরাধীন করতে চাচ্ছেন।

রোববার জাতীয় প্রেসক্লাব মিলনায়তনে বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া ও সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানের বিরুদ্ধে মামলার প্রতিবাদ এবং কারাগারে আটক ছাত্রদলের বর্তমান ও সাবেক নেতাদের মুক্তির দাবিতে ওই প্রতিবাদ সভার আয়োজন করা হয়। ঢাকা মহানগর (দক্ষিণ) ছাত্রদল এই প্রতিবাদ সভার আয়োজন করে।

প্রতিবাদ সভা চলাকালে ছাত্রদলের কর্মীরা বিভিন্ন নেতার নাম উল্লেখ করে জেলের তালা ভেঙে তাঁদের বের করে আনার স্লোগান দিতে থাকেন।বক্তব্য দিতে গিয়ে মির্জা আব্বাস ছাত্রদলের নেতা-কর্মীদের উদ্দেশে বলেন, জেলের তালা ভাঙব, অমুক ভাইকে আনব, খামোখা এই স্লোগান দেবেন না, প্লিজ।

নব্বইয়ের স্বৈরাচারবিরোধী আন্দোলনের কথা তুলে ধরে মির্জা আব্বাস বলেন, ওই সময় তাঁকে এবং ছাত্রনেতা মোস্তফা মহসিন মন্টুকে আন্দোলনের মুখে জেল কর্তৃপক্ষ ছাড়তে বাধ্য হয়েছিল। সেটিই হচ্ছে সত্যিকার জেলের তালা ভেঙে নেতাদের মুক্ত করা।

জেলের তালা ভাঙব,অমুক ভাইকে আনব স্লোগান না দিয়ে জেলের তালা ভাঙার প্রস্তুতি নেওয়ার জন্য ছাত্রদলের নেতা-কর্মীদের প্রতি আহ্বান জানান মির্জা আব্বাস।মির্জা আব্বাস বলেন, বিএনপির একদিনের লং মার্চেই তিস্তায় পানি এসেছিল। তাই বিএনপি ক্ষমতায় আসলে বাংলাদেশের সকল নদ-নদী পানিতে ভরে উঠবে। পানি এবং স্বাধীনতার প্রশ্নে কোন আপস করা হবে না বলেও জানান তিনি।

তিনি আরো বলেন, আ.লীগ ৭২ থেকে ৭৫ পর্যন্ত ক্ষমতায় থেকে এ দেশের মানুষের ওপর যে অত্যাচার করেছিল তা মানুষ এক সময় ভুলে গিয়েছিল। কিন্তু পুনরায় গুম খুনের রাজনীতিতে ফিরে এসে তারা হিটলার মুসোলিনদেরও হার মানিয়েছেন বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপি’র স্থায়ী কমিটির এই সদস্য।

বর্তমান সরকার তিস্তার পানির ন্যায্য হিস্যা আদায়ে ব্যর্থ হয়েছে উল্লেখ করে বিএনপির এই নেতা বলেন,বিএনপির একদিনের লংমার্চে পানি এসে ভরে গিয়েছিল। বিএনপি ক্ষমতায় এলে সব নদী পানিতে ভরা থাকবে। এ বিষয়ে কোনো আপস হবে না।

দেশে যেভাবে হত্যা, গুম ও নির্যাতন চলছে তাতে বর্তমান ফ্যাসিস্ট আওয়ামী সরকার হিটলার-মুসোলিনি সরকারকেও হার মানিয়েছে বলে মন্তব্য করেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস।

সমাবেশে মির্জা আব্বাস বলেন,দেশে যেভাবে হত্যা, গুম নির্যাতন চলছে তাতে হিটলার মুসোলিনি সরকারকেও হার মানিয়েছে বর্তমান ফ্যাসিস্ট আওয়ামী সরকার, একদিন হয়তো তাদেরও এমন পরিণতি হতে পারে। আন্দোলনের মধ্য দিয়ে এই ফ্যাসিবাদী সরকারের পতন ঘটাতে হবে।

এই সরকারকে দখলদার সরকার আখ্যা দিয়ে তিনি বলেন, এরা ব্যক্তি স্বার্থে দেশের স্বার্থ বিদেশিদের কাছে বিকিয়ে দিতে কুণ্ঠাবোধ করে না। এদের কাছে জনগণের কোনো দাবি জানিয়ে লাভ নেই। ভবিষ্যতে বিএনপি ক্ষমতায় আসলে জনগণের সব অধিকার ফিরিয়ে দেওয়া হবে।স্বাধীনতা ও সার্বভৌমত্বের প্রশ্নে কারো সাথে আপোষ করা হবে না।

তারেক রহমানের বক্তব্য সম্পর্কে তিনি বলেন, তারেক রহমান ইতিহাস থেকে উদ্ধৃতি দিয়ে কথা বলেন। তিনি কিছু সত্য কথা জনগণের সামনে তুলে ধরেছেন। আর তাতেই আওয়ামী লীগের গায়ে আগুন ধরে গেছে।

নেতা-কর্মীদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, এভাবে ঘরোয়া অনুষ্ঠানে জেলের তালা ভাঙার স্লোগান দিয়ে লাভ নেই। আমাদের আসল জেলের তালা ভাঙার প্রস্তুতি নিতে হবে। আর আজকের এই প্রতিবাদ সভা কোনো প্রতিবাদ নয় এটা আন্দোলনের প্রস্তুতি মাত্র।

ভবিষ্যতের আন্দোলন সম্পর্কে বিএনপির আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক ড. আসাদুজ্জামান রিপন বলেন, কারো গোলামী করে আমরা আমাদের দেশের স্বাধীনতা সার্বভৌমত্ব টিকিয়ে রাখতে পারবো না। বর্তমান সরকার দেশের স্বার্থ বিকিয়ে দিচ্ছে। জনগণ এর বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করলে গুম হত্যা ও নির্যাতন চালানো হচ্ছে। হাজার হাজার মিথ্যা মামলা দিয়ে বিরোধী নেতা-কর্মীদের হয়রানি করছে।

ছাত্রদল ঢাকা মহানগরী দক্ষিণের সিনিয়র সহ-সভাপতি মির্জা আসলাম আলীর সভাপতিত্বে আরও বক্তব্য রাখেন, বিএনপির ছাত্র বিষয়ক সম্পাদ শহীদ উদ্দিন চৌধুরী,ছাত্রদলের সাবেক সভাপতি সুলতান সালাহ উদ্দিন চৌধুরী টুকু, সাবেক এমপি হেলেন জেরিন খান, ছাত্রদলের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি বজলুর রশিদ আবেদ প্রমুখ।