বঙ্গবন্ধু সেতুর উপর ট্রেন লাইনচুত্য ,৯টি বগি উদ্ধার

0
28

5  শেখ সাদি /দৈনিক বার্তা : বঙ্গবন্ধু যমুনা সেতুর উপর ঢাকা থেকে দিনাজপুরগামী লাইনচুত্য দ্রুতযান এক্সপ্রেসের ৯টি বগির মধ্যে ৯টি বগি উদ্ধার করা হয়েছে। ঢাকা ও ঈশ্বরদী থেকে দুটি উদ্ধারকারী ট্রেন এসে উদ্ধার কাজ চালিয়ে যাচ্ছে। দুর্ঘটনার পর ভোর ৫টার দিকে ট্রেন দুটি এসে উদ্ধার কাজ শুরু করে। তবে উদ্ধার কাজ শেষ হতে সোমবার সন্ধ্যা পেরিয়ে যেতে পারে বলে রেলওয়ে বিভাগের কর্মকর্তারা জানিয়েছে। উদ্ধার কাজ শেষ হলেই এ রুটে ট্রেন চলাচল শুরুর কথাও জানিয়েছে রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ। ঘটনার পর পরই রাতে রেলমন্ত্রী ঘটনাস্থল পরির্দশ করেছেন। ঘটনার পর থেকে উত্তরবঙ্গ থেকে ঢাকাগামী সকল ধরনের ট্রেন চলাচল বন্ধ রয়েছে।

রোববার রাতে ঢাকা থেকে ছেড়ে আসা দ্রুতযান ট্রেনটি রাত ১০টা ৫৫ মিনিটের সময় সেতুর ৭ নং পিলারের কাছে পৌছলে প্রবল ঝড়ো বাতাসের কবলে পড়ে দ্রুতযান এক্সপ্রেসটি। এ সময় ট্রেনটির পিছনের একটি বগি লাইনচুত্য হয়। পরে একে একে ৯টি বগি লাইনচুত্য হয়। এ সময় ট্রেনটি ব্রীজের দক্ষিন দিকের দেয়ালের সাথে হেলে পড়ে। আতংকিত যাত্রীরা তাড়াহুড়ো করে ট্রেনের জানালা দিয়ে ব্রীজের উপর লাফিয়ে পড়লে অন্তত ২০ জন যাত্রী আহত হয়। খবর পেয়ে পুলিশ ও দমকল বাহিনী ঘটনাস্থলে পৌছে আহত সহ সকল যাত্রীকে উদ্ধার করে। ঘটনার পর থেকে উত্তরবঙ্গ থেকে ঢাকাগামী সকল ধরনের ট্রেন চলাচল বন্ধ রয়েছে। দুর্ঘটনার পর থেকে একতা এক্সপ্রেস নাটোরে, সুন্দরবন ঈশ্বরদীতে এবং পদ্মা এক্সপ্রেস যমুনা সেতু পূর্ব ষ্টেশনে আটকা পড়ে। তবে নির্ধারিত রেলগুলো চলার জন্য এ ট্রেনগুলোকে তাদের নিজ নিজ ষ্টেশনে পেলত পাঠানো হবে। সেতুর উপর ট্রেন দুর্ঘটনার খবর পেয়ে রেলমন্ত্রী মুজিবুল হক ঘটনাস্থলে ছুটে যান। এ সময় রেলওয়ের উর্ধতন কর্মকর্তারাও ঘটনাস্থলে পৌছে উদ্ধার কাজ শুরু করেন। বঙ্গবন্ধু সেতুর উপর ট্রেন দুর্ঘটনার কারন কারন জানতে রেলওয়ে কর্তপক্ষ ৪ সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করেছে। কমিটিকে আগামী ৪ কার্যদিবসের মধ্যে রিপোর্ট প্রদানের নির্দেশ দেয়া হয়েছে। বাংলাদেশ রেলওয়ের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (অবকাঠামো) আমজাদ হোসনকে প্রধান করে অতিরিক্ত মহাপরিচালক আনিসুর রহমান, শাহ জহুরুল হক ও রেলওয়ের পশ্চিমাঞ্চল জোনের জিএম আব্দুল আওয়াল ভুইয়াকে সদস্য করা হয়েছে। এদিকে ট্রেন দুর্ঘটনার সময় কোন যাত্রী ভয়ে নদীতে লাফিয়ে পড়েছে কিনা, সে ব্যাপারে নিশ্চিত হতে সেতু কর্তৃপক্ষ নদীতে তল্লাশী চালিয়েছে। তবে কাউকে খুজে পাওয়া যায়নি। এ ছাড়াও বঙ্গবন্ধু সেতু বিভাগের প্রধান প্রকৌশলী মোজাম্মেল জক জানিয়েছেন, ট্রেনটি ব্রীজের গাউড ওয়ালের ওপর পড়ায় সেতুর মুল স্থাপনার ক্ষতি হয়েছে। তবে কতটুকু ক্ষতি হয়েছে তা পরীক্ষা করেই জানা যাবে।