ভারতে সরকার পরিবর্তন হলেই আ.লীগের পতন:কাজী জাফর

0
28

2দৈনিক বার্তা : ভারতে কংগ্রেসের পরাজয়ের সঙ্গে আওয়ামী লীগেরও পতন ঘটবে বলে মন্তব্য করেছেন জাতীয় পার্টির একাংশের  প্রেসিডেন্ট কাজী জাফর আহমদ।

মঙ্গলবার জাতীয়  প্রেস ক্লাবের কনফারেন্স লাউঞ্জে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী তরুণ প্রজন্ম দল আয়োজিত  কেন্দ্রীয় সংসদের উদ্যোগে চলমান রাজনৈতিক পরিস্থিতিতে তরুণ প্রজন্মের করণীয়তা নির্ধারণে তরুণ সমাবেশ’ শীর্ষক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে কাজী জাফর এ কথা বলেন।

কাজী জাফল বলেন, আওয়ামী লীগ নিজের ক্ষমতা ধরে রাখতে দেশের যা যা প্রাপ্তি তার সবই ভারতের কাছে বিসর্জন দিচ্ছে এবং আধিপত্যবাদ ও সম্প্রসারণবাদের মাধ্যমে তারা ক্ষমতায় টিকে থাকতে চাইছে। কিন্তু তাদের এ স্বপ্ন বাংলার মাটিতে কোনো দিন পূরণ হতে দেয়া হবে না।

তিনি আওয়ামী লীগকে উদ্দেশ্য করে বলেন, ইতিহাসকে বিকৃতি করে জাতিকে  কোনো দিন বিভ্রান্ত করা যাবে না। কারণ নদীর স্রোতকে সাময়িকভাবে বালি দিয়ে বন্ধ করলেও নদীর জোয়ারে তা আবার স্রোতে পরিণত হয়। ঠিক তেমনি বিএনপিসহ ১৯ দল ক্ষমতায় এলে গণতন্ত্রের ধারা ফিরিয়ে এনে তা অব্যাহত রাখা হবে।

তিনি আরো বলেন, বিএনপির লংমার্চের প্রথমদিনই ভারত সরকার তিস্তার পানি ছেড়ে দিয়ে প্রমাণ করলো যে বিএনপি ক্ষমতায় গেলে সব হিসাব আদায় করে নেয়া যাবে। তিস্তার পানি ৪৬ হাজার কিউসেক পাওয়ার কথা থাকলেও শুধু মাত্র পায় ৪০০ থেকে ৫০০ কিউসেক পাওয়া যাচ্ছে। যা আওয়ামী লীগ সরকারের নতুজানু রাজনৈতিক নীতির কারণে তিস্তার এই করুণ দশা হয়েছে।

সাবেক রাষ্ট্রপতি ও জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহাম্মদ এরশাদকে আবারও জাতীয় বেঈমান বলে আখ্যায়িত করেন সাবেক প্রধানমন্ত্রী কাজী জাফর আহমেদ।

কাজী জাফর বলেন, এরশাদ আমাকে বহিষ্কার করার পরে আমিই পাল্টা  এরশাদকে অপসারণ করেছি। ভারত বা আধিপত্যবাদী  দেশগুলো শক্তের ভক্ত নরমের জম। বিএনপি যখন পানির জন্য তিস্তা অভিমুখে লংমার্চ শুরু করল তখন ভারত পানি ছাড়া শুরু করে। আবার আন্দোলন  শেষে ফেরত আসলে পানি বন্ধ করে দেয়।

তিনি আরও বলেন, ভারতের পদদলিত আওয়ামী লীগ সরকারের কোন  নৈতিকতা নেই। তাই পানির জন্য তিস্তা চুক্তি করতে পারল না। অথচ দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে একমাত্র ভারত ছাড়া  কোন দেশই  তাদেরকে সমর্থন দেয়নি।

ভারতের সঙ্গে সর্ম্পক টিকিয়ে রাখতে  দেশের স্বাধীনতা ও সার্বভৌমত্বের অস্তিত্ব হারিয়ে যেতে বসেছে। তবুও ভারতের কাছ থেকে কোন দাবি আদায় করতে পারছে না সরকার।

জাতীয়তাবাদী তরুণ প্রজন্ম দলের প্রতিষ্ঠাতা রাব্বি আহম্মেদ শুভ এর সভাপতিত্বে আরো উপস্থিত ছিলেন, বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী তরুণ প্রজন্ম দলের উপদেষ্টা ড.আর. এ গণি,বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী মহিলা দলের সভাপতি নূরে আরা সাফা, নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপির সভাপতি অ্যাডভোকেট তৈমুর আলম খন্দকার প্রমূখ।