1দৈনিক বার্তা : অগণতান্ত্রিক সরকার দেশ ও জাতীকে বাঁচাতে সম্পূর্ণভাবে ব্যর্থ হয়েছে। তাই আইন ও গণতন্ত্র এখন শীতলক্ষ্যায় ভেসে উঠছে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির প্রচার সম্পাদক জয়নুল আবদিন ফারুক।

বৃহস্পতিবার জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে দেশ বাঁচাও মানুষ বাঁচাও সংগঠন আয়োজিত হত্যা,গুম, অপহরণ এবং ফরিদপুর জেলা বিএনপির সভাপতি শাহাজাদা মিয়াকে হুমকির প্রতিবাদে আয়োজিত মানববন্ধনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ মন্তব্য করেন।

জয়নুল আবদিন ফারুক বলেন, ভারতে যেমন মমতাকে সবাই জবা কসুম  তেল দিয়ে মাথা ঠান্ডা রাখতে বলেছে ঠিক  কেমনি ভাবে আমিও বলবো সরকারের মন্ত্রী, এমপি, আমলাসহ দলীয় নেতকর্মীদের মাথায় জবা কসুম  তেল দিয়ে মাথা ঠান্ডা রাখতে।

যারা আইনশৃঙ্খলা বাহিনী ও   র‌্যাবের সুনাম ক্ষুন্ন করছে তাদের খুঁজে  বের করার আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, আইনশৃঙ্খলা, সন্ত্রাস, মাদক নিয়ন্ত্রণের জন্যই র‌্যাব সৃষ্টি হয়েছিল। কিন্তু বর্তমান সরকার এই বাহিনীটিকে রাজনৈতিক হাতিয়ার হিসেবে ব্যবহার করছে।

দেশে চরম রাজনৈতিক অস্থিরতা চলছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, নারায়ণগঞ্জ  জেলায় ৭ খুনের বিষয়ে হাইকোর্ট র্যাছব কর্মকর্তাদের  গ্রেফতারের নির্দেশ দেওয়ার কারণ হলো সন্ত্রাসী করেও সরকারের অহমিকা ফুরায় না। এই সরকার নিজের মতো করে  দেশকে পরিচালনা করতে চায়। তাই গণতন্ত্রকে ফিরিয়ে আনতে সবার ঐক্যবদ্ধ হয়ে আন্দোলনে নামতে হবে।

এতে জয়নাল আবেদীন ফারুক বলেন, এই সরকার   দেশ বাঁচাতে সম্পূর্ণভাবে ব্যর্থ হয়েছে। এদের আইন ও গণতন্ত্র বুড়িগঙ্গায় ভেসে ওঠেছে। তারা রাজনৈতিক হাতিয়ার হিসেবে র‌্যাব ও আইন শৃঙ্খলাবাহিনীকে ব্যবহার করছে। ভারতে যেমন মমতাকে জবা কসুম  তেল দিয়ে মাথা ঠান্ডা রাখতে বলা হয়েছে। বাংলাদেশে আমিও সরকারের মন্ত্রী, এমপি, আমলাসহ দলীয়  নেতকর্মীদের মাথায় জবা কসুম  তেল দিয়ে মাথা ঠান্ডা রাখতে বলবো।

আইনশৃঙ্খলা বাহিনী ও র‌্যাবের সুনাম যারা ক্ষুন্ন করছে তাদের খুঁজে বের করার আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, র‌্যাবকে গড়ে তোলা হয়েছিল আইনশৃঙ্খলা, সন্ত্রাস, মাদক নিয়ন্ত্রণের জন্য। কিন্তু বর্তমান সরকার তাদের রাজনৈতিক হাতিয়ার হিসেবে ব্যবহার করছে।

দেশে আজ রাজনৈতিক সংকট চলছে দাবি করে তিনি বলেন, নারায়ণগঞ্জ জেলায় ৭ খুনের ঘটনায় হাইকোর্ট র্যাব কর্মকর্তাদের  গ্রেফতারের নির্দেশ  দেয়ার কারণ হলো সন্ত্রাস করেও সরকারের অহমিকা ফুরায় না। এই সরকার নিজের মতো করে  দেশকে পরিচালনা করতে চায়।

তাই গণতন্ত্রকে ফিরিয়ে আনতে সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে আন্দোলন করার আহ্বান জানান জয়নাল আবেদীন ফারুক।

মানববন্ধনে আয়োজক সংগঠনের সভাপতি  কে এম রকিবুল রিপনের সভাপতিত্বে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য  দেন বিএনপির নির্বাহী কমিটির সদস্য  মেজর (অব) হানিফ,  স্বেচ্ছাসেবক বিষয়ক সম্পাদক এ বি এম  মোশাররফ  হোসেন, জিয়া সেনা সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক মুনজুর  হোসেন ঈসা প্রমুখ।