2দৈনিক বার্তা : নারায়ণগঞ্জে সাত খুনের ঘটনায় অভিযুক্ত র‌্যাবের সাবেক দুই কর্মকর্তার বিরুদ্ধে প্রভাব খাটিয়ে সিদ্ধিরগঞ্জে বিদ্যুৎ কেন্দ্রের দুটি ফ্ল্যাট দখল করে রাখার অভিযোগ পাওয়া গেছে। গত ৩০ এপ্রিল অপহৃত সাতজনের মৃতদেহ উদ্ধারের পর থেকে ওই দুই কর্মকর্তা মেজর আরিফ হোসেন ও লে. কমান্ডার মাসুদ রানা ফ্ল্যাটে তালা দিয়ে পালিয়ে যান।

র‌্যাব-১১ ব্যাটালিয়ন সদর দফতরের পাশেই সিদ্ধিরগঞ্জ বিদ্যুৎ কেন্দ্র। বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ডের কর্মকর্তা কর্মচারীদের জন্য এর ভেতরেই আবাসিক কোয়ার্টার। ২০১৩ সালের ১২ সেপ্টেম্বর শ্রাবণী-৩ নামের চার তলা ভবনের নিচতলার ১০১ নম্বর ফ্ল্যাটে সপরিবারে ওঠেন মেজর আরিফ হোসেন। আর দোতলার ২০৪ নম্বর ফ্ল্যাটে থাকতেন লে. কমান্ডার মাসুদ রানা। নিয়ম বহির্ভূতভাবে পাঁচ মাসের জন্য বরাদ্দ পেলেও সময় শেষ হওয়ার পরও ফ্ল্যাট ছাড়েননি সাবেক দুই র্যা ব কর্মকর্তা।

অপহৃত কাউন্সিলর নজরুলসহ সাতজনের মরদেহ উদ্ধারের পর ৩০ এপ্রিল রাতে মাসুদ রানা সপরিবারের বাসা ছেড়ে চলে যান। পরদিন সকালে কাউকে কিছু না জানিয়ে বাসা ছাড়েন মেজর আরিফও। এরপর থেকেই ফ্ল্যাট দুটি তালাবদ্ধ আছে।

বরাদ্দের সময় শেষ হবার পর ফ্ল্যাট বুঝিয়ে দেয়ার জন্য এপ্রিলের শুরুতে নোটিশ দেয়া হলেও বাসা ছাড়েননি বা কোনো জবাবও দেননি ওই দুই কর্মকর্তা।

বিদ্যুৎ কেন্দ্রের মতো স্পর্শকাতর এলাকায় অন্য কারো পক্ষে ফ্ল্যাট পাওয়া সম্ভব নয়। কিন্তু র‌্যাব কর্মকর্তারা প্রভাব খাটিয়ে ফ্ল্যাট দুটি বরাদ্দ নিয়েছিলেন বলেও জানিয়েছেন সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা।