আগামী অধিবেশনেই বিচারপতি অভিশংসন ক্ষমতা: সুরঞ্জিত

0
39

index66দৈনিকবার্তা-ঢাকা,২৫আগষ্ট: জাতীয় সংসদের আগামী অধিবেশনেই সংবিধানের ষোড়শ সংশোধনীর মাধ্যমে বিচারপতি অভিশংসন ক্ষমতা সংসদের হাতে ফিরিয়ে আনা হবে বলে জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের উপদেষ্টামণ্ডলীর সদস্য সুরঞ্জিত সেনগুপ্ত৷তিনি বলেন, সামরিক ফরমানের মাধ্যমে ৭২’র সংবিধানে থাকা অভিশংসনের যে বিষয়টি বাতিল করা হয়েছিল তা আগামী সংসদের অধিবেশনে ষোড়শ সংশোধনীর মাধ্যমে ফিরিয়ে আনা হবে৷

সুরঞ্জিত সেন গুপ্ত সোমবার সকালে রাজধানীর পাবলিক লাইব্রেরি হলরুমে নৌকা সমর্থক গোষ্ঠী আয়োজিত আইভী রহমানের উপর স্মরণ সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন৷সংগঠনের উপদেষ্টা হাজী মো. সেলিমের সভাপতিত্বে আয়োজিত স্মরণ সভায় বক্তব্য রাখেন সংগঠনের সভাপতি হুমায়ুন কবির মিজি৷

সুরঞ্জিত সেন গুপ্ত বলেন, ১৯৭২ সালের সংবিধানে সংসদ কর্তৃক বিচারপতিদের অভিশংসন ক্ষমতা ছিল৷ পরে সেনাসমর্থিত সরকার তা বাতিল করে৷ পঞ্চদশ সংশোধনীতে এ ক্ষমতা ফিরিয়ে আনা উচিত ছিল৷কিন্তু, কিছু স্বার্থান্বেষী মহলের কারণে তা সম্ভব হয়নি৷আগামী সংসদ অধিবেশনে ষোড়শ সংশোধনীর মাধ্যমে অভিশংসন ক্ষমতা সংসদের হাতে ফিরিয়ে আনা হবে৷বিএনপি নেতাদের উদ্দেশ করে সুরঞ্জিত বলেন, আপনাদের এতে হইচই করার কিছু নেই৷ কিন্তু যে কোনো বিষয়ে হইচই করাই হচ্ছে আপনাদের রাজনৈতিক শিষ্টাচার৷

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ একটি পত্রিকার স্টেটমেন্টে বলেছিলেন, বিচারপতি অভিশংসন ক্ষমতা সংসদের হাতে ফিরিয়ে আনা হলে তিনি ভোট দেবেন৷ বিএনপির এ নিয়ে কথা বলার কিছুই নেই৷বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরকে উদ্দেশ করে আওয়ামী লীগের প্রবীণ এ নেতা বলেন, তিনি হঠাত্‍ কেন গরম হলেন, তার কোথায় আঘাত লেগেছে, আমরা তা জানি৷ নিজেদের ভুল আর বিভ্রান্ত রাজনীতির কারণে দলীয় কর্মীদের ধরে না রাখতে পেরে তিনি গরম হয়ে গেছেন৷

রাষ্ট্রীয় পৃষ্ঠপোষকতায় ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা চালানো হয়েছিল -এই অভিযোগ করে তিনি বলেন, কোথা থেকে গ্রেনেড এসেছে, কীভাবে এসেছে, তা হাওয়া ভবন জানতো৷ ২১ আগস্ট রক্তপাতের জন্য খালেদা ও তারেক জিয়া দায়ী৷ এ অভিযোগ থেকে তাদের বাঁচার উপায় নেই৷