মগবাজারে তিনজনকে গুলি করে হত্যা

hotta হত্যা

দৈনিকবার্তা – নিউজ : রাজধানীর মগবাজারে সন্ত্রাসীর গুলিতে ভাই- বোনসহ তিনজন নিহত হয়েছেন৷ তাঁরা হলেন মুন্না (১৮), বিল্লাল (২২) ও রানু আক্তার (২৩)৷ এ ঘটনায় হূদয় (২২) নামের একজন আহত হয়েছেন৷ মুন্না ও রানু আক্তার ভাইবোন৷ বৃহস্পতিবার রাত আটটার দিকে মগবাজারের সোনালীবাগ এলাকায় এ ঘটনা ঘটে৷

এদিকে গতকাল বুধবার রাতে সুপ্রিম কোর্ট জামে মসজিদের খতিব বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেলের ধর্মীয় অনুষ্ঠানের উপস্থাপক শাইখ নুরুল ইসলাম ফারুকীকে হত্যার পর রাজধানীতে আজ তিনজনকে গুলি করে হত্যা করা হলো৷  পুলিশ ও নিহত লোকজনের পরিবার সূত্রে জানা গেছে, মুন্না ও রানু কিছু দিন আগে মগবাজারের সোনালীবাগে একটি ফ্ল্যাট কিনেছেন৷ এরপর থেকে এলাকায় সন্ত্রাসী কাইল্যা বাবু এ জন্য তাঁদের কাছে চাঁদা দাবি করে৷ কিন্তু মুন্না ও রানু তাকে চাঁদা দিতে অস্বীকার করেন৷ আজ কাইল্যা বাবু মগবাজারের সোনালীবাগের মুন্না ও রানুদের বাসায় গিয়ে চাঁদা দাবি করে৷ চাঁদার টাকা না পেয়ে এলোপাতাড়ি গুলি করে চলে যায়৷ তার গুলিতে মুন্না, বিল্লাল ও রানু আক্তার মারা যান৷ এ সময় হূদয়ও গুলিবিদ্ধ হন৷ আহত হূদয়কে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে৷

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে পুলিশের রমনা বিভাগের উপকমিশনার ইকবাল হোসেন বলেন, সন্ত্রাসী কাইল্যা বাবু চাঁদাবাজি করতে গিয়ে গুলি করে তিনজনকে হত্যা করেছে৷পূর্ব রাজাবাজারে ইসলামী ফ্রন্ট নেতা নুরুল ইসলাম ফারুকী হত্যাকাণ্ডের ২৪ ঘন্টার মধ্যে বৃহস্পতিবার রাতে মগবাজারের সোনালীবাগে এই হত্যাকাণ্ড ঘটল৷

ঢাকা মেডিকেল কলেজ ফাঁড়ি পুলিশের পরিদর্শক মোজাম্মেক হক বলেন, রাত সাড়ে ৮টার দিকে চারজনকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় হাসপাতালে আনা হলে চিকিত্‍সক রানু, মুন্না, বেলালকে মৃত ঘোষণা করেন৷স্বজনদের বরাত দিয়ে তিনি বলেন, রাত পৌনে ৮টার দিকে ১০/১২ জন সন্ত্রাসী সোনালীবাগের চান বেকারির গলির ওই বাসায় ঢুকে এলোপাতাড়ি গুলি ছোড়ে৷নিহত রানু টিনশেড ওই বাড়ির মালিক এবং মুন্না ও বেলাল ভাড়াটিয়া বলে জানা গেছে৷ আহত হৃদয় নিহত রানুর ভাই৷তিনজনের মৃতু্যর খবর নিশ্চিত করলেও হত্যাকাণ্ডের কারণ তাত্‍ক্ষণিকভাবে জানাতে পারেননি ঢাকা মহানগর পুলিশের রমনা জোনের জ্যেষ্ঠ সহকারী কমিশনার শিবলী নোমান৷  নিহত রানুর চাচা শাহ আলম সাংবাদিকদের বলেন, এক মাস আগে থেকে কালা বাবু নামে এক সন্ত্রাসী দুই লাখ টাকা চাঁদা দাবি করে আসছিল৷ চাঁদা না দেয়ায় কালা বাবু সদলবলে এসে গুলি চালিয়ে যায়৷