এ আচরণ গণতন্ত্রের জন্য অশুভ সঙ্কেত: বি. চৌধুরী

image_112681_0

দৈনিকবার্তা-ঢাকা, ৪ জানুয়ারি: অবরুদ্ধ বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার সঙ্গে বিকল্প ধারার সভাপতি ও সাবেক রাষ্ট্রপতি বদরুদ্দৌজা চৌধুরীকে দেখা করতে দেয়নি আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা৷ রোববার দুপুর ১২টার দিকে তিনি বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার গুলশানের রাজনৈতিক কার্যালয়ে তার সঙ্গে দেখা করতে যান৷এ সময় আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা তাকে খালেদা জিয়ার সঙ্গে দেখা করতে বাধা দেয়৷

বি. চৌধুরী সাংবাদিকদের জানান,এধরনের একটি পরিস্থিতিতে সহানুভূতি জানাতে এসেছিলাম৷ কিন্তু আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা আমাকে বিএনপি নেত্রীর সঙ্গে দেখা করতে না দিয়ে গণতন্ত্রের স্বাধীনতা হরণ করেছে৷আওয়ামী লীগকে উদ্দেশ্য করে বি.চৌধুরী বলেন, বিএনপির নেতৃত্বাধীন ২০ দলীয় জোট ক্ষমতায় থাকলে যদি আপনারা এধরনের বিপদে পড়তেন তাহলে সেখানেও আমি যেতাম৷

বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার সঙ্গে পুলিশের আচরণ গণতন্ত্রের জন্য অশুভ সঙ্কেত বলে মন্তব্য করেছেন বিকল্পধারার সভাপতি এ কিউ এম বদরুদ্দোজা চৌধুরী৷খালেদার সঙ্গে দেখা করতে রোববার বেলা ১২টার দিকে গুলশানে তার রাজনৈতিক কার্যালয়ে যান বদরুদ্দোজ্জা, যেখানে রাত থেকে অবস্থান করছেন বিএনপি নেত্রী৷বি চৌধুরীকে পুলিশ কার্যালয়ে যেতে বাধা দিলে ক্ষোভ প্রকাশ করেন তিনি৷

উপস্থিত সাংবাদিকদের বিএনপির সাবেক এই নেতা বলেন, আমি একজন সিনিয়র সিটিজেন এবং সাবেক রাষ্ট্রপতি৷ আমাকে দেখা করতে দেওয়া হয়নি৷পুলিশের এহেন আচরণ এবং বিরোধী দলীয় নেত্রীকে এভাবে অবরুদ্ধ করে রাখা গণতন্ত্রের জন্য অশুভ সঙ্কেত বলে আমি মনে করি৷

বিএনপির ৫ জানুয়ারির কর্মসূচির প্রতি সমর্থন ব্যক্ত করে তা সফল করতে নেতাকর্মীদের প্রতি আহ্বান জানান বিএনপি ছেড়ে বিকল্পধারা গড়ে তোলা বি চৌধুরী৷তিনি বলেন, দেশবাসীর প্রতি আহ্বান রাখব, আপনারা এই অগণতান্ত্রিক অবৈধ সরকারের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ান৷

বদরুদ্দোজ্জার গাড়িবহর গুলশানে বিএনপি চেয়ারপারসনের কার্যালয়ের সামনের সড়কে ঢুকতেই ব্যারিকেড দেয় পুলিশ৷

পরে বি চৌধুরী গাড়ি থেকে নেমে লাঠিতে ভর দিয়ে কার্যালয়ের দিকে এগোতে থাকলে কয়েক গজ যাওয়ার পর আবারো তার গতিরোধ করা হয়৷ এ সময় তার সঙ্গে বিকল্পধারার মহাসচিব আবদুল মান্নানও ছিলেন৷খালেদা জিয়ার সঙ্গে তাকে কেন দেখা করতে দেওয়া হবে না জানতে চাইলে একজন কনস্টেবল বি চৌধুরীকে বলেন,আমাদের নির্দেশ আছে, এখানে কেউ যেতে পারবেন না৷ আপনি আমাদের অফিসারের সঙ্গে দেখা করেন৷এ সময় বি চৌধুরী বলেন, আপনার অফিসারকে ডাকুন৷ পেছনে আছেন, আপনি সেখানে যান, সংক্ষিপ্ত উত্তর ওই কনস্টেবলের৷

এ সময় রাগত কন্ঠে বি চৌধুরী বলেন, আমি সাবেক রাষ্ট্রপতি৷ আপনি কি বলছেন? আপনি আমাদের নাতনির বয়সের৷একজন সিনিয়র সিটিজেনকে এভাবে বলা যায় না৷ আমি কেন অফিসারের কাছে যাব? তাকে আসতে বলুন৷পুলিশের আচরণে ক্ষোভ প্রকাশ করে বি চৌধুরী বলেন, গণতান্ত্রিক দেশে এভাবে পুলিশ বাহিনী আচরণ করতে পারে না৷ এটা শোভন নয়৷

সাংবাদিকদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, বিরোধী দলীয় নেতা গতকাল থেকে অবরুদ্ধ হয়ে আছে জেনে আমি তার সঙ্গে দেথা করতে এসেছিলাম৷ এভাবে অবরুদ্ধ করে রাখা গণতন্ত্রের জন্য লজ্জাজনক৷ আমি সরকার ও পুলিশের এহেন আচরণের ধিক্কার জানাই, প্রতিবাদ জানাই৷

গণতন্ত্রের কথা বললে অবরুদ্ধ করে রাখতে হবে, কথা বলা যাবে না-এটা চলতে পারে না৷ বেগম খালেদা জিয়া দেশের বিরোধী দলের নেতা৷ তাকে এভাবে অবরুদ্ধ করে রাখার মধ্য দিয়ে সরকারের চেহারা উন্মোচিত হয়েছে৷এক প্রশ্নের জবাবে বিএনপির প্রতিষ্ঠাকালীন মহাসচিব বি চৌধুরী বলেন, আজকে সরকার বিরোধী দলের নেত্রীকে অবরুদ্ধ করে রেখেছে-এটার যেমন আমি প্রতিবাদ জানাতে এসেছি তেমনি আগামীতে, যদি দাবার গুটি উল্টো যায়, এরকম আচরণ হলে আমি প্রতিবাদ জানাব৷পরে বেলা ১২টা ৩৫ মিনিটে গাড়িতে উঠে চলে যান বি চৌধুরী৷

বিএনপির বর্জনের মধ্যে অনুষ্ঠিত ৫ জানুয়ারির নির্বাচনের দিনকে ‘গণহত্যা হত্যা দিবস’ অ্যাখা দিয়ে এর বর্ষপূর্তিতে সারা দেশে সভা-সমাবেশের কর্মসূচি ঘোষণা করেছে দলটি৷ঢাকায় কর্মসূচি পালনের অনুমতি চেয়ে শনিবার পর্যন্ত পুলিশের সাড়া না পেয়ে যে কোনো মূল্যে সমাবেশ করার ঘোষণা দেন বিএনপি নেতারা৷এদিকে ওই দিন সংবিধান ও গণতন্ত্র রক্ষা দিবস হিসেবে কর্মসূচি পালনের ঘোষণা দেয় আওয়ামী লীগ৷

এ নিয়ে উত্তেজনার মধ্যে গত রাত সাড়ে ১১টার দিকে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া গুলশানে নিজের রাজনৈতিক কার্যালয় থেকে নয়া পল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে যেতে চাইলে তার পথ আটকায় পুলিশ৷ তখন থেকে ওই কার্যালয়েই আছেন বিএনপি প্রধান৷