আনত্মর্জাতিক খ্যতিমান শিল্পী কালিদাস কর্মকারের ৭০তম একক চিত্রকলা প্রদর্শনীর উদ্বোধন

DSC_0106

দৈনিকবার্তা-ঢাকা, ৫ জানুয়ারি: বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমীর আয়োজনে গত ৪ জানুয়ারি ২০১৫ থেকে একাডেমীর জাতিয় চিত্রশালার ২য় তলার গ্যালারিতে আনত্মর্জাতিক খ্যাতিমান শিল্পী কালিদাস কর্মকারের “পাললিক প্রত্যাবর্তন” শীর্ষক ৭০তম একক চিত্র প্রদর্শনী শুরম্ন হয়েছে৷গত রবিবার ৪ জানুয়ারি বিকেল ৫টায় জাতীয় চিত্রশালা মিলনায়তনে ১৩ দিনব্যাপী এ প্রদর্শনীর শুভ উদ্বোধন করেন প্রফেসর ড. গওহর রিজভী, মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর আনত্মর্জাতিক বিষয়ক উপদেষ্টা৷ বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন জনাব ফারম্নক সোবহান, প্রেসিডেন্ট, বাংলাদেশ এন্টারপ্রাইজ ইনষ্টিটিউট৷ সভাপতিত্ব করেন বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমীর মহাপরিচালক জনাব লিয়াকত আলী লাকী৷ অনুষ্ঠানে শুছেচ্ছা বক্তব্য রাখেন শিল্পী কালিদাস কর্মকার৷প্রদর্শনীতে বিভিন্ন মাধ্যমে করা চিত্রকর্মের সংখ্যা প্রায় ১৫১ টি৷ এক্রেলিক, মিশ্রমাধ্যম, ডিজিটাল লিথোগ্রাফ, ড্রইং, মেটাল কোলাজ সহ একাধিক বর্তমান বাস্তব সময়ের নিরিখে স্থাপনা শিল্পও প্রদর্শনিতে স্থান পেয়েছে৷ প্রদর্শনী আগামী ১৩ জানুয়ারী ২০১৫ পর্যনত্ম প্রতিদিন বেলা ১১টা থেকে রাত ৮টা পর্যনত্ম খোলা থাকবে৷ শুক্রবার দুপুর ৩টা থেকে রাত ৮টা পর্যনত্ম৷

শিল্পী কালিদাস কর্মকার জন্মগ্রহন করেন ১৯৪৬ সালে ফরিদপুর শহরের নিলটুলীতে৷ তিনি ১৯৬২-৬৪তে ঢাকা ইনস্টিটিউট অব আর্টি থেকে ২ বছরের কোর্স শেষ করে, ১৯৬৯ সালে কলকাতায় গভর্নমেন্ট কলেজ অব্ ফাইন আর্টস এবং ক্রাফ্ট থেকে প্রথম বিভাগে প্রথম স্থান নিয়ে চারুকলায় স্নাতক ডিগ্রী লাভ করেন৷ এ পর্যন্ত তার দেশে বিদেশে নির্বাচিত চিত্র প্রদর্শনীর সংখ্যা ৭০তম৷ তিনি বহু আনত্মর্জাতিক দলবদ্ধ প্রদর্শনীতে অংশগ্রহন করেছেন ও আন্তর্জাতিক সম্মান লাভ করেছেন৷ বাংলাদেশে ছাপচিত্র-শিল্পের প্রচার ও প্রসার আন্দোলনে গ্রাফিঙ্ অাঁতেলিয়ার-৭১ এর মাধ্যমে তার ভূমিকা স্বরন-যেগ্য৷ ভারত ছারাও পোলান্ড, ফ্রান্স, জাপান, আমেরিকাতে আধুনিক শিল্পের বিভিন্ন মাধ্যমে উচ্চতর ফেলোশিপ নিয়ে সমকালিন চারম্নকলা মাধ্যমে পরিক্ষা নিরিক্ষা করেছেন৷তিনি ১৯৭৬ সন থেকে ফ্রিল্যান্স শিল্পী হিসেবে দেশেবিদেশে কাজ করে আসছেন৷ শিল্পী কালিদাসের ছবিতে বর্তমান সময়, অবিশ্রান্ত, মানবীয় অভিজ্ঞতার সম্পর্কের ভাষা মূর্ত করে তোলে৷ তার ছবির শেকড় গাঁথা এ জনপদেরই মাটিতে৷ এ ভূখন্ডের যাপনপ্রনালী, নানা ধর্মের সমন্বয়, লোকশিল্পের নানা প্রতীক উপাদন হিসেবে এসেছে শিল্পী কালিদাসের চিত্রকলায়৷ তাঁর চিত্রকলায় এ জনগোষ্ঠির বিভিন্ন আন্দোলনের অনুসঙ্গে এসেছে তাবিজ, কবজ আর কড়ি৷ কাগজের মন্ডের পটভূমিতে কখনো চকিতে ধরা পড়েছে মৃতু্যমুখ মুক্তিযোদ্ধার যন্ত্রনাকাতর হাতের ইঙ্গিত৷ শিল্পী কালিদাসের চিত্রকলায় এসেছে আবহমান বাঙালির নিশ্বাস, কিন্তু চিত্রকলার স্বভাব কোথাও ঢলে পড়েনি৷ শিল্পীর উচ্ছাস, অভিব্যাক্তি, শুদ্ধতা, বেদনা, স্মৃতি আর একাকিত্ব এ সবই যেন এক পাললিক শিল্পীর প্রত্যাবর্তন৷