নিঃশর্ত ক্ষমা চেয়ে পার পেলেন মতিউর ও মিজানুর

image_32718

দৈনিকবার্তা-ঢাকা, ৫ জানুয়ারি: প্রথম আলোর সম্পাদক ও প্রকাশক মতিউর রহমান ও যুগ্ম-সম্পাদক মিজানুর রহমান খান লিখিতভাবে নি:শর্ত ক্ষমা প্রার্থনা করে আদালত অবমাননার অভিযোগ থেকে অব্যাহতি পেয়েছেন৷সোমবার প্রধান বিচারপতি মো. মোজাম্মেল হোসেনের নেতৃত্বে আপিল বিভাগের পূর্ণাঙ্গ বেঞ্চ এ আদেশ দেয়৷

আদালত অবমাননার অভিযোগ বিষয়ে ব্যাখ্যা দিতে মতিউর রহমান ও মিজানুর রহমানকে তলব করে গত ১৫ডিসেম্বর আদেশ দেয় আপিল বিভাগ৷ তাদের আজ ৫ জানুয়ারি আপিল বিভাগে হাজির হয়ে আদালত অবমাননার অভিযোগ বিষয়ে ব্যাখ্যা দিতে বলা হয়েছিল৷

আদেশ অনুযায়ী আপিল বিভাগে হাজির হন মতিউর রহমান ও মিজানুর রহমান খান৷ তাদের পক্ষে লিখিত ব্যাখ্যা দাখিল করেন ড. কামাল হোসেন৷আদালতে তাদের পক্ষে শুনানি করেন ড. কামাল হোসেন ও ব্যারিস্টার এম আমীর উল ইসলাম৷ রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম৷মাহবুবে আলম পরে বলেন, আদালত তাদের নিঃশর্ত ক্ষমার আবেদন গ্রহণ করে বিষয়টির নিষ্পত্তি করে দিয়েছে৷

প্রধান বিচারপতি নিয়োগ নিয়ে এক নিবন্ধের কারণে আদালত অবমাননার রুল জারি করে গত ১৫ ডিসেম্বর মতিউর রহমান ও মিজানুর রহমান খানকে তলব করে সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ৷

প্রথম আলোতে প্রধান বিচারপতি বেছে নেওয়া’ শিরোনামে মিজানুর রহমান খানের লেখা ওই নিবন্ধে বলা হয়, বাংলাদেশের প্রধান বিচারপতি ১৬ জানুয়ারি ২০১৫ অবসরে যাওয়ার কারণে আরেকজন নতুন প্রধান বিচারপতি নিয়োগের বিষয়টি সামনে এসেছে৷ এই পদে নিয়োগে কী প্রক্রিয়া অনুসরণ করা হবে, তা নিয়ে তেমন আলোচনা কখনো হয়নি৷ওই নিবন্ধের বিষয়ে ব্যাখ্যা দিতেই সোমবার তাদের আপিল বিভাগে হাজির হওয়ার নির্দেশ দিয়েছিল আদালত৷

তাদের বিরুদ্ধে কেন আদালত অবমাননার অভিযোগে ব্যবস্থা নেওয়া হবে না- তা জানতে চাওয়া হয়েছিল রুলে৷আদালতের গুরুতর অবমাননার দায়ে এর আগেও মিজানুর রহমান খানকে সাজা দিয়েছিল আদালত, সতর্ক করে দেওয়া হয়েছে প্রথম আলোকেও