মন্ত্রিসভা থেকে শিগগির পদত্যাগ করবে জাতীয় পার্টি: রওশন

9fa41d06c54b380b2c3c020bf8e2c483_XL

দৈনিকবার্তা-ঢাকা, ৫ জানুয়ারি: খুব শিগগিরই মন্ত্রিসভা থেকে জাতীয় পার্টি (জাপা) বেরিয়ে আসবে বলে জানিয়েছেন জাতীয় সংসদে বিরোধী দলীয় নেতা রওশন এরশাদ৷ সোমবার জাতীয় সংসদের মিডিয়া সেন্টারে ৫ জানুয়ারির নির্বাচনের বর্ষপূর্তি উপলক্ষে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলেনে তিনি এ কথা বলেন৷

বিরোধী দলীয় নেতা বলেন, জাপা অচিরেই মন্ত্রীসভা থেকে বের হয়ে আসবো৷ এ বিষয় নিয়ে চেয়ারম্যানের সঙ্গে কথা হয়েছে৷ খুব শিগগিরি সিদ্ধান্ত জানানো হবে৷

এ মুহূর্তে অন্তবর্তী নির্বাচনের পরিস্থিতি তৈরি হয়নি এ কথা উল্লেখ করে রওশন বলেন, এখন দেশে রাজনৈতিক স্থিতিশীলতা প্রয়োজন৷ দেশের উন্নয়নে জাতীয় পার্টি সংলাপের জন্য প্রস্তুত তবে সেটা মধ্যবর্তী নির্বাচনের জন্য নয়৷

রওশন এরশাদ আরো বলেন, বিএনপির চেয়ারপারসনকে অবরুদ্ধ রাখা হয়নি৷ সরকারের কাছে কী তথ্য আছে সেটা এখনো অজানা৷ কাজেই ওনার (খালেদা জিয়া) নিরাপত্তার জন্য করা হয়েছে৷ যদি বলা হয়, গণতন্ত্রের জন্য তাকে আটকে রাখা হয়েছে তাহলে আমরা তাতে সম্মত নই৷ তবে যদি নিরাপত্তার জন্য করে থাকে তাহলে জাপা একে সমর্থন করে৷

দেশে এখন গণতান্ত্রিক পরিবেশ বিরাজ করছে বলেও মন্তব্য করেন জাতীয় পাটির্র এ সিনিয়র প্রেসিডিয়াম সদস্য৷আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন সরকারের মন্ত্রিসভা থেকে দলের নেতাদের সরিয়ে আনতে ‘অচিরেই’ দলীয়ভাবে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন সংসদে বিরোধী দলীয় নেতা রওশন এরশাদ৷

তিনি বলেন, জাতীয় পার্টিকে একটি প্রকৃত বিরোধী দল হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করতে আমরা আমাদের মন্ত্রীদের কেবিনেট থেকে প্রত্যাহার করার কথা বলেছি৷ এ বিষয়ে পাটির্র চেয়ারম্যানের সঙ্গে আলোচনা চলছে৷ অচিরেই এ ব্যাপারে সিদ্ধান্ত হবে৷

তবে দেশে এখনই মধ্যবর্তী নির্বাচনের মতো পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়নি বলে মনে করেন জাতীয় পাটির্র এই প্রেসিডিয়াম সদস্য৷

যে নির্বাচনে অংশ নিয়ে সংসদে বিরোধী দল হওয়ার পাশাপাশি মন্ত্রিসভায় স্থান করে নেয় জাতীয় পার্টি, সেই দশম জাতীয় নির্বাচনের প্রথম বর্ষপূর্তি উপলক্ষে এ সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়৷

ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ দিনটি উদযাপন করছে সংবিধান ও গণতন্ত্র রক্ষা দিবস হিসাবে৷ অন্যদিকে ভোট বর্জন করা বিএনপি শরিকদের নিয়ে দিনটি পালন করছে গণতন্ত্র হত্যা দিবস হিসাবে৷

রওশন বলেন,দশম সংসদ নির্বাচনে অংশ না নিয়ে বিএনপি ভুল করেছে৷৫ জানুয়ারির নির্বাচনের মাধ্যমে টানা দ্বিতীয় মেয়াদে ক্ষমতায় আসা আওয়ামী লীগের বর্তমান সরকারকে অবৈধ আখ্যায়িত করে মধ্যবর্তী নির্বাচনের দাবি জানিয়ে আসছে বিএনপি৷

বিরোধীদলীয় নেতা বলেন, অবশ্যই দেশে গণতান্ত্রিক অবস্থা বিরাজ করছে এবং জনগণ শান্তি চায়৷ এখনই মিডটার্ম ইলেকশনের পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়নি৷ নির্বাচনের বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেবে জনগণ৷জনগণ মধ্যবর্তী নির্বাচন চায় না৷

এক প্রশ্নে রওশন বলেন, জনগণ নির্বাচনের দাবিতে তো মাঠে নামছে না, সোচ্চার হচ্ছে না৷ জনগণ শান্তি চায়, স্থিতিশীলতা চায়৷ জানমালের ক্ষতি হোক এমন কোনো রাজনৈতিক কর্মসূচি তারা চায় না৷

দেশে রাজনৈতিক স্থিতিশীলতা আনতে বিরোধী দল হিসেবে সরকার এবং বিএনপির মধ্যে আলোচনার উদ্যোগ জাতীয় পার্টি নেবে কি না জানতে চাইলে রওশন বলেন, আমরা অবশ্যই দুটি রাজনৈতিক দলকেই আহ্বান জানাব৷তার মানে এই না যে মিডটার্ম ইলেকশন করব৷ জনগণ যদি চায়, সেটা আমরা আলোচনা করব৷

দুই দিন ধরে পুলিশি ঘেরাওয়ের মধ্যে খালেদা জিয়ার নিজের কার্যালয়ে অবরুদ্ধ হয়ে থাকার বিষয়ে দৃষ্টি আকর্ষণ করলে রওশন বলেন, গণতন্ত্রের জন্য কাউকে আটকে রাখা আমরা কখনোই সমর্থন করি না৷ সরকার বলেছে, উনাকে অবরুদ্ধ রাখা হয়নি, বরং যা করা হয়েছে তা নিরাপত্তার খাতিরে করা হয়েছে৷ নিশ্চয়ই সরকারের কাছে এই সংক্রান্ত কোনো ইনফরমেশন আছে৷ এটা সরকারই ভালো বলতে পারবে৷

অন্যদের মধ্যে বিরোধী দলীয় চিফ হুইপ তাজুল ইসলাম চৌধুরী, জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য রুহুল আমিন হাওলাদার, কাজী ফিরোজ রশীদ, বিরোধী দলীয় নেতার রাজনৈতিক সচিব গোলাম মসিহ সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন৷