হত্যা মামলার জন্য প্রস্তুত থাকুন:খালেদাকে ইনু

ইনু

দৈনিকবার্তা-ঢাকা, ৬ জানুয়ারি: বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে হত্যা মামলা হতে পারে বলে মন্তব্য করেছেন তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু৷মঙ্গলবার সচিবালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে দেশের সর্বশেষ রাজনৈতিক পরিস্থিতি নিয়ে বক্তব্য দেয়ার সময় সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তথ্যমন্ত্রী এ কথা বলেন৷খালেদা জিয়াকে বিভিন্ন ধরনের বোমাবাজি ও সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডের উসকানিদাতা হিসেবে চিহ্নিত করে তথ্যমন্ত্রী বলেন, শাহজাহানপুরে পাইপে পড়ে শিশুর মৃতু্যর ঘটনায় যদি ঠিকাদারের বিরুদ্ধে হত্যা মামলা হতে পারে, তাহলে সিএনজিচালিত অটোরিকশায় একই পরিবারের তিনজনকে অগি্নদগ্ধের ঘটনায় উসকানিদাতা হিসেবে খালেদা জিয়া হত্যা মামলার সম্মুখীন হবেন৷ ওই মামলার জন্য প্রস্তুতি নিতে খালেদা জিয়াকে পরামর্শ দিয়েছেন ইনু৷খালেদা জিয়াকে গ্রেপ্তার করা হবে কিনা- এ প্রশ্নের জবাবে হাসানুল হক ইনু বলেন, গ্রেপ্তারের বিষয়টি প্রশাসন দেখবে, তিনি গ্রেপ্তার হতে পারেন, যদি তার বিরুদ্ধে হত্যা মামলা হয়৷ এ সময় ইনু বলেন, জঙ্গিবাদ ও সন্ত্রাসের বিষয়ে নিজেদের অবস্থান স্পষ্ট না করলে বিএনপির সঙ্গে কোনো আলোচনা হবে না৷দেশে সহিংস পরিস্থিতি সৃষ্টির জন্য বাড়ি ছেড়ে কার্যালয়ে আশ্রয় নিয়েছেন খালেদা জিয়া শান্তিপূর্ণ কর্মসূচির নিশ্চয়তা দিলে বিএনপিকে অবশ্যই সমাবেশের অনুমতি দেয়া হতো বলেও জানান তিনি৷মন্ত্রী বলেন, দেশে সভা সমাবেশ নিশ্চিতভাবেই রক্ষিত আছে, তবে রাজনীতির নামে সহিংসতা কর্মকাণ্ড কোনোভাবেই গণতান্ত্রিক অধিকার না৷ বিএনপি চেয়ারপারসন ৫ তারিখ কেন্দ্র করে একটি অস্বাভাবিক পরিস্থিতি তৈরি করেন এবং উসকানিমূলক পরিস্থি তি তৈরি করেন৷ সরকার সাধারণ জনগণের জানমালের নিরাপত্তার স্বার্থেই সতর্কতামূলক ও নিরাপত্তামূলক ব্যবস্থাগ্রহণ করতে বাধ্য হয়৷৫ জানুয়ারির নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা কম হওয়ার জন্য বিএনপি-জামাতের অপচেষ্টাই দায় মন্তব্য করেন ইনু বলেন, এ নির্বাচিত, সরকার ও সংসদের বৈধতা খালেদা জিয়াকে মানতে হবে৷সহিংসতার পথ পরিহার না করলে সরকার আরো কঠোর হবে বলেও হুঁশিয়ার দেন তথ্যমন্ত্রী৷খালেদার বিরুদ্ধে মামলার পরিকল্পনা আছে কি না- এমন প্রশ্নে ইনু বলেন, সরকার কোনো পরিকল্পনা করে না৷ কেউ অপরাধ করলে সরকার পদক্ষেপ নেয়৷ অপরাধের ভিত্তিতে যে কেউ গ্রেপ্তার হতে পারে৷

জাসদ সভাপতি ইনু জানান, খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে হত্যা মামলা দায়েরের বিষয়টি স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় খতিয়ে দেখছে, প্রশাসন বিষয়টি পরীক্ষা করছে৷নির্বাচনের বর্ষপূর্তি ঘিরে পাল্টাপাল্টি কর্মসূচিতে উত্তেজনার মধ্যে গত ৩ জানুয়ারি থেকে নিজের গুলশানের কার্যালয়ে পুলিশের ঘেরাওয়ে অবরুদ্ধ হয়ে আছেন বিএনপি প্রধান খালেদা জিয়া৷এ বিষয়ে তথ্যমন্ত্রী বলেন, খালেদা জিয়া অবরুদ্ধ নন, তাকে উসকানি দেওয়া থেকে বিরত রাখা হয়েছে৷ কোনো উসকানিদাতাকে আমরা ছাড় দেব না৷ শান্তিপূর্ণ সভা-সমাবেশের অধিকার বিএনপিসহ সবাইকেই দেওয়া হয়েছে৷”একুশে টেলিভিশনের (ইটিভি) সমপ্রচার বন্ধের কোনো সিদ্ধান্ত সরকার দেয়নি বলে জানিয়েছেন তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু৷সোমবার গুলশানে নিজের কার্যালয়ে অবরুদ্ধ বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া তার বক্তব্যে অভিযোগ করেন, সরকার একুশে টিভির সমপ্রচার বন্ধ করে দিয়েছে৷সোমবার থেকেই দেশের বিভিন্ন এলাকায় এই টেলিভিশনের সমপ্রচার দেখা যাচ্ছে না বলেও অভিযোগ পাওয়া যাচ্ছে৷এ বিষয়ে জানতে চাইলে তথ্যমন্ত্রী সংবাদিকদের বলেন, একুশে টিভির সমপ্রচার বন্ধ করা হয়নি৷ এ ব্যাপারে আমাদের কর্তৃপক্ষের কোনো সিদ্ধান্ত নেই৷ এখন পযন্ত এ ধরনের কোনো নির্দেশ প্রদান করা হয়নি৷পাড়া-মহল্লায় একুশে টিভি দেখা না যাওয়ার পেছনে সরকারের কোনো সংশ্লিষ্টতা নেই বলেও তিনি উল্লেখ করেন৷ইনু বলেন, এটা শুনেছি, আমরা খতিয়ে দেখতে পারি৷ এখন পর্যন্ত একুশে টিভি কর্তৃপক্ষ আমাদের কোনো হস্তক্ষেপ কামনা করেনি৷পর্নোগ্রাফি নিয়ন্ত্রণ আইনে এক নারীর দায়ের করা মামলায় একুশে টিভির চেয়ারম্যান আবদুস সালামকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে বলেও তথ্যমন্ত্রী জানান৷মঙ্গলবার ভোরে একুশে টেলিভিশন (ইটিভি) কার্যালয়ের নিচ থেকে সালামকে গ্রেপ্তারের পর ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের কার্যালয়ে নেওয়া হয়৷ মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের উপকমিশনার(মিডিয়া)মাসুদুর রহমান জানান,রাজধানীর ক্যান্টনমেন্ট থানায় পর্নোগ্রাফি আইনে ওই মামলাটি দায়ের করা হয়েছে৷একুশে টেলিভিশনের অপরাধ বিষয়ক অনুষ্ঠান একুশের চোখ এর একটি পর্ব নিয়ে ওই নারী এই মামলা করেন বলে জানান মাসুদ৷