রিজভী টয়লেটের কথা বলে পালিয়েছেন: মায়া

11ত্রাণ ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা মন্ত্রী ও ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া বলেছেন, গ্রেপ্তারের ভয়ে টয়লেটে যাওয়ার কথা বলে হাসপাতাল থেকে পালিয়েছেন বিএনপি নেতা রুহুল কবির রিজভী।
বুধবার দুপুরে রাজধানীর বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউয়ে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে অবরোধবিরোধী অবস্থানকালে তিনি এ কথা বলেন।
বিএনপিকে উদ্দেশ্য করে তিনি বলেন, দুই একটি গাড়ি পুড়িয়ে ক্ষমতায় যাওয়া যায় না। যদি ক্ষমতায় যাওয়া সম্ভব হতো তাহলে দেশে বহু পাগল আছে, তারাই ক্ষমতায় যেতো।
মায়া বলেন, ৫ জানুয়ারি ইচ্ছা করলেই বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া মাঠে বের হতে পারতেন। তিনি ইচ্ছা করেই বের হননি। আমরা দেখলাম ওই দিন বিকেল ৪টায় তিনি যেভাবে সেজে-গুজে বের হয়েছেন, তাতে মনে হয়েছে কোনো বিয়ে বাড়িতে দাওয়াত খেতে যাচ্ছেন, আন্দোলন করতে নয়।
ত্রাণমন্ত্রী বলেন, খালেদা জিয়া নিজেকে ও তার ছেলে তারেক রহমানকে বাঁচাতে অবরোধের নামে জনগণের সঙ্গে তামাশা করছেন। অবরোধ হলো তাদের সর্বশেষ ট্রামকার্ড। তাদের অবরোধে জনগণের বিন্দুমাত্র সমর্থন নেই। দেশের কোথাও অবরোধ হচ্ছে না।
তিনি বলেন, গ্রেপ্তারের ভয়ে বিএনপির একজন নেতা অসুস্থতার নাম করে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন। পরে টয়লেটে যাওয়ার কথা বলে তিনি সেখান থেকে পালিয়েছেন। তাকে আর খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না। রাজনীতি করতে হলে বড় কলিজা লাগে।
আওয়ামী লীগের এ নেতা বলেন, আগামী ৯ জানুয়ারি মুসলিম উম্মাহর দ্বিতীয় ধর্মীয় উৎসব বিশ্ব ইজতেমা। সেই বিশ্ব ইজতেমায় যাতে কোনো ধর্মপ্রাণ মুসলমান না যেতে পারেন তাই তারা আন্দোলনের নামে অবরোধ কর্মসূচি দিয়েছেন। কোনো ধর্মপ্রাণ মানুষ এটা করতে পারে না। তারা ধর্মের নামে রাজনীতি করলেও ধর্মকে বিশ্বাস করে না।
এ সময় আরো উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ, নগর আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি এম এ আজিজ, সাংগঠনিক সম্পাদক শাহে আলম মুরাদ, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক  আব্দুল হক সবুজ, দপ্তর সম্পাদক শহিদুল ইসলাম মিলন, উপ-দপ্তর সম্পাদক মো. জামাল উদ্দিন প্রমুখ।