১০ জানুয়ারির আগেই নিষেধাজ্ঞা তুলে নেবে ডিএমপি: হানিফ

hanif1

দৈনিকবার্তা-ঢাকা, ৭ জানুয়ারি: আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল-আলম হানিফ বলেছেন, আমরা জানি আগামী ১০ জানুয়ারির অনেক আগেই সভা-সমাবেশের নিষেধাজ্ঞা তুলে নেবে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি)৷বুধবার বিকেলে আগামী ১০ জানুয়ারি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বদেশ প্রত্যাবর্তন উপলক্ষে আওয়ামী লীগ ঘোষিত মহা সমাবেশের স্থান(রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যান) পরির্দশন করতে এসে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জাবাবে তিনি এ কথা জানান৷

হানিফ বলেন, গত ১ মাস আগে আমরা ৫ জানুয়ারি গণতন্ত্রের বিজয় দিবসের কর্মসূচি ঘোষণা দিয়েছিলাম৷ কিন্তু হঠাত্‍ করে আমাদের কর্মসূচি নস্যাত্‍ করতে বিএনপিও ওইদিন কর্মসূচি দিয়েছে, তাই সংঘাত এড়াতে ডিএমপি সভা-সমাবেশ নিষিদ্ধ করেছিল৷ আমরা সমাবেশ করতে ডিএমপির কাছে অনুমতি চেয়েছি৷ আওয়ামী লীগ আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল৷ এর বাইরে গিয়ে আমরা কিছু করবো না৷ তবে আমরা জানি আগামী তারিখের অনেক আগেই ডিএমপি নিষেধাজ্ঞা তুলে নেবে৷

তিনি বলেন, ইজতেমা বিশ্ব মুসলিমদের দ্বিতীয় জমায়েত৷ এই জমায়েতে ধর্মপ্রাণ মুসলমানদের যাতে কোন ধরনের সমস্যা না হয়৷ এজন্য আমরা খালেদা জিয়ারকে তার ডাকা অবরোধ প্রত্যাহারের আহবান জানিয়েছি৷ আমরা আশা করছি আগামীকালই তিনি তার এ কর্মসূচি প্রত্যাহার করে নেবেন৷ আর যদি খালেদা জিয়া কর্মসূচি প্রত্যাহার না করে তাহলে, এই জমায়েত সুষ্ঠুভাবে শেষ করার জন্য সরকার যথাযথ ব্যবস্থা নেবে৷

তিনি আরও বলেন, দশম জাতীয় নির্বাচনে অংশগ্রহণ না করে খালেদা জিয়া যে ভুল করেছেন তার মাশুল তাকেই দিতে হবে৷ সংবিধান অনুযায়ী ২০১৯ সালে নির্বাচন হবে৷ সবার সঙ্গে আলোচনা করে সেই নির্বাচন করা হবে৷ বিএনপি ইচ্ছা করলে সেই নির্বাচনে অংশ নিতে পারে৷ এর আগে বাংলাদেশে জাতীয় নির্বাচন হবে না৷

উল্লেখ্য, গত ৫ জানুয়ারি বাংলাদেশর বড় দুটি রাজনৈতিক দলের (বিএনপি-আওয়ামী লীগ) পাল্টাপাল্টি কর্মসূচি ডাকার কারণে অনির্দিষ্টকালের জন্য ১৪৪ ধারা জারি করে ডিএমপি৷ তা এখনও অব্যাহত রয়েছে৷এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের শ্রম বিষয়ক সম্পাদক হাবিবুর রহমান সিরাজ, উপ-প্রচার সম্পাদক অসীম কুমার উকিল, ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া প্রমুখ৷