খালেদা জিয়াকে গ্রেফতার বা অবরুদ্ধ করা হয়নি -তথ্য মন্ত্রী

01তথ্য মন্ত্রী হাসানুল হক ইনু বলেছেন, বিএনপির নেত্রী খালেদা জিয়াকে গ্রেফতার বা অবরুদ্ধ করা হয়নি-দেশে নাশকতা ও জঙ্গীবাদের উষ্কানী দেয়া থেকে নিবৃত করা হয়েছে মাত্র।
শুক্রবার খুলনায় জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল জাসদের দ্বি-বার্ষিক সম্মেলনের উদ্বোধন শেষে সাংবাদিকদের তিনি এ কথা বলেন।
এ সময় তিনি আরও বলেন, ৫জানুয়ারীর নির্বাচন বানচালে ব্যর্থ হয়েছেন। নির্বাচনের পর এক বছর ধরে ষড়যন্ত্র করছেন। তার ডাকে জনগন সাড়া না দেওয়ায় জনগনকে বাদ দিয়ে নাশকতা, গাড়ী পোড়ানো, মানুষ হত্যাসহ বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করেও আন্দোলনে ব্যর্থ হয়েছেন। যে কারনে ব্যর্থতার রাগ ঝাড়ছেন হরতাল-অবরোধের মত নাশকতামূলক কর্মসূচীর মাধ্যমে জনগনের উপর দিয়ে। ১৯৭১ সালে পাক হানাদার াবহিনী ও তাদের দোসর রাজাকার-আলবদররা মানবিকতা, মানুষের অধিকারের দার দারেনি। তেমনি খালেদা জিয়াও এখন মানবাধিকার ও জনগনের কথা চিন্তা না করে নাশকতা ও জঙ্গিবাদের মাধ্যমে যে কোন পন্থায় ক্ষমতা দখল করতে চান। কিন্তু সরকার তাদের নাশকতা মোকাবেলায় চেষ্টা করছে জনগনকে সাথে নিয়ে। তিনি বলেন, নাশকতা ও জঙ্গিবাদের আশ্রয় প্রশ্রয় দিয়ে যে নেত্রী দেশে অরাজকতা সৃষ্টি করতে চায়। সময় এসেছে তাকে রাজনীতি থেকে বিদায় করার।
মন্ত্রী দেশের ভবিষ্যত কর্নধর শিশুদের পরীক্ষা ও মুসলমানদের দ্বিতীয় বৃহত্তম বিশ্ব ইজতেমার সময় অবরোধ প্রত্যাহার না করার সমালোচনা করে আরও বলেন, গত চার বছর বিএনপি নেত্রী আলোচনার পথ এড়িয়ে গিয়ে আন্দোলনেরও ব্যর্থ হয়েছেন। খালেদা জিয়া স্বাভাবিক রাজনীতির পথ গ্রহন না করে নাশকতার পথ বেছে নিয়েছেন। নিজেরা ব্যর্থ হয়ে জনগনের বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষনা করেছেন বলেও তিনি মন্তব্য করেন।
তিনি আরও বলেন, খালেদা জিয়ার সাত দফার মধ্য নতুন কিছুই নেই-সবই পুরোনো অবাস্তব প্রস্তাব। সাত দফায় সন্ত্রাসী ও যুদ্দাপরাধীদের মুক্তির দাবী করে তিনিও সন্ত্রাসী ও যুদ্ধাপরাধীদের আশ্রয-প্রশ্রয়দাতা হিসাবে প্রতিষ্ঠিত করেছেন। আর তত্ত্বাবধায়ক সরকার নিরপেক্ষ সংস্থা হিসাবে কাজ করছে না বিধায় সেটি পুরোপুরি বন্ধ করা হয়েছে। উচ্চ আদালত সেই ব্যবস্থাকে াবতিল করেছেন। আগামী নির্বাচন সংবিধানের কাঠামোর মধ্যেই হবে বলেও জানান মন্ত্রী ইনু।
তিনি বলেন, খালেদা জিয়া আলোচনা চান না, গনতন্ত্র ও দেশের উন্নয়ণ চান না। নাশকতা ও জঙ্গীবাদের মাধ্যমে যেনতেনভাবে ক্ষমতায় যেতে চান। সেটি এ দেশের মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় সমৃদ্ধ মানুষ আর হতে দেবে না।
শুক্রবার দুপুরে খুলনার শহীদ হাদিস পার্ক শহীদ মিনার পাদদেশে মহানগর জাসদের সভাপতি রফিকুল হক খোকনের সভাপতিত্বে সম্মেলনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে কেন্দ্রীয় সাধারন সম্পাদক শরীফ নুরুল আম্বিয়া, শিরিন আকতার এমপি, খালিদ হোসেনসহ কেন্দ্রীয় ও স্থানীয় নেতৃবৃন্দ বক্তৃতা করেন।
এ সময় জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি খুলনা জেলা পরিষদের প্রশাসক শেখ হারুন-অর-রশিদ, খুলনা-২ আসনের সংসদ সদস্য মিজানুর রহমান মিজানসহ ১৪দলের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।
সম্মেলন উপলক্ষ্যে খুলনা মহানগর ও জেলার বিভিন্ন উপজেলা থেকে নেতাকর্মীরা অংশ গ্রহন করেন।
উল্লেখ্য, দীর্ঘ চার বছর পর জেলা ও মহানগর জাসদের এ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়।