জনগণের ওপর রাগ ঝাড়ছেন খালেদা: তথ্যমন্ত্রী

file (1)

দৈনিকবার্তা-খুলনা, ৯ জানুয়ারি:  টানা অবরোধ দিয়ে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া জনগণের ওপর রাগ ঝাড়ছেন বলে মন্তব্য করেছেন জাসদ সভাপতি ও তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু৷

শুক্রবার খুলনায় জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল জাসদের দ্বি-বার্ষিক সম্মেলনের উদ্বোধনের পর সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে তিনি বলেন, বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া বন্দি বা গ্রেপ্তার নন৷ তাকে উস্কানি থেকে নিবৃত্ত রাখা হয়েছে৷ কর্মীদের বাদ দিয়ে আন্দোলনে হতাশ ও ব্যর্থ বেগম খালেদা জিয়া জনগণের ওপর রাগ ঝাড়ছেন৷ শিক্ষার্থী, অসুস্থ মানুষ, ইজতেমায় অংশগ্রহণকারী মুসলি্ল কারোর ধারই তিনি ধারেন না৷ তিনি জঙ্গি মৌলবাদীদের নিয়ে যে কোনো উপায়ে ক্ষমতায় যেতে চান৷

৫ জানুয়ারি দশম সংসদ নির্বাচনের বর্ষপূর্তিতে গণতন্ত্র হত্যা দিবসের কর্মসূচি পালনে ব্যর্থ হয়ে সোমবার বিকালে সারা দেশে লাগাতার অবরোধের ডাক দেন বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া৷অবরোধের মধ্যে দূরপাল্লার যান চলাচল ব্যাহত হলেও রাজধানীসহ দেশের প্রধান প্রধান শহরগুলোতে স্বাভাবিক সময়ের মতোই গাড়ি চলছে৷বিশ্ব ইজতেমায় মুসলি্লদের অংশ নেওয়ার সুযোগ দেওয়ার স্বার্থে বিএনপি নেতৃত্বের প্রতি অবরোধ তুলে নেওয়ার আহ্বান ছিল৷মহানগরীর শহীদ হাদিস পার্কে জাসদের ওই দ্বি-বার্ষিক সম্মেলনে ইনু ছিলেন প্রধান অতিথি৷

তিনি বলেন, খালেদা জিয়া স্বাভাবিক রাজনীতি বোঝেন না৷ তিনি মৌলবাদী ও জঙ্গিবাদীদের সাথে নিয়ে আর একটি চক্রান্ত করছেন৷ এর আগে তিনি বিগত নির্বাচনের সময় একইভাবে চক্রান্ত করেছিলেন৷

খালেদা জিয়াকে অন্তর্ঘাত ও নাশকতার উস্কানিদাতা হিসেবে আখ্যা দিয়ে ইনু বলেন, অবরোধের নামে বাস পোড়ানো, মানুষ খুন ও অরাজকতা তৈরি করছেন৷খালেদা জিয়ার দেওয়া সাত দফা প্রস্তাবকে পুরনো কাসুন্দি অভিহিত করে তথ্যমন্ত্রী বলেন, এ প্রস্তাবে নতুনত্ব কিছু নেই৷ কীভাবে নির্বাচন হবে সে বিষয়ে সংবিধানে সুস্পষ্টভাবে বলা আছে৷পাশাপাশি এ বিষয়ে হাই কোটের্রও নির্দেশনা রয়েছে৷ আসলে খালেদা জিয়া নির্বাচন চান না৷জঙ্গিবাদ ও মৌলবাদ মুক্ত দেশ গড়তে সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহ্বান জানান তথ্যমন্ত্রী৷সম্মেলনে সভাপতিত্ব করেন জাসদ খুলনা মহানগর শাখার সভাপতি রফিকুল হক খোকন৷

বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তৃতা দেন জাসদের কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক শরীফ নুরুল আম্বিয়া, স্থায়ী কমিটির সদস্য শিরীন আখতার, সাংগঠনিক সম্পাদক ওবায়দুর রহমান চুন্নু৷

এতে শুভেচ্ছা বক্তৃতা দেন খুলনা জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি শেখ হারুনুর রশীদ ও মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মিজানুর রহমান মিজান৷এর আগে জাতীয় সংগীত, জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তোলন এবং বেলুন উড়িয়ে সম্মেলনের উদ্বোধন করা হয়৷