শেখ হাসিনা ইসলামের ধারক,আরেকজন ধ্বংসকারী : মায়া

file (3)

দৈনিকবার্তা-ঢাকা ৯ জানুয়ারি: শেখ হাসিনা ইসলামের ধারক, আরেকজন ধ্বংসকারী বলে মন্তব্য করেছেন দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণমন্ত্রী মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া৷ তিনি আরো বলেন, কোথায় সত্যিকারের ইসলাম আছে তা আপনাদেরকে জানতে হবে৷ আরেকজন লাখো জনতা ইজতেমায় না আসতে পারে এজন্য অবরোধ ডেকে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করেছে৷ বিএনপি এখন ছিন্নভিন্ন অবস্থায় রয়েছে৷ বিএনপি নেতারা এখন বিভিন্ন দিকে দৌড়াদৌড়ি করছে বিভিন্ন দলে যোগদান করার জন্য৷

মায়া অ শুক্রবার বঙ্গবন্ধু এ্যাভিনিউতে আওয়ামী লীগ কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগের এক বর্ধিত সভায় এ কথা বলেন৷ জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ঐতিহাসিক স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবসের সকল কর্মসূচি সফল করার লক্ষ্যেই এই বর্ধিত সভার আয়োজন করা হয়৷

ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি কাজী লুত্‍ফুল কবির রেনুর সভাপতিত্বে সভায় ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও খাদ্যমন্ত্রী এডভোকেট কামরম্নল ইসলাম, সাংগঠনিক সস্পাদক শাহে আলম মুরাদ, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক আব্দুল হক সবুজ প্রমুখ বক্তব্য রাখেন৷

ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রী মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া বীর বিক্রম বলেন, বিশ্ব ইজতেমার সময় অবরোধ কর্মসূচী প্রত্যাহার না করে বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়া নাসত্মিকতার পরিচয় দিয়েছেন৷

তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ বিশ্ব ইজতেমা সফল করার জন্য পূর্বঘোষিত কর্মসূচি স্থগিত করেছে৷ অন্যদিকে ধর্মপ্রাণ মানুষ যেন ইজতেমায় আসতে না পারেন-সেজন্য খালেদা জিয়া অবরোধ প্রত্যাহার করেন নি৷ এটা কোন আসত্মিক করতে পারেন না৷লুকিয়ে থাকাই বিএনপির চরিত্র বলে মন্তব্য করেন ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও ত্রাণ-দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা মন্ত্রী মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া৷

তিনি বলেন, বিএনপির ওেভতরে এখন ছিন্নভিন্ন অবস্থা৷ তাদের কথা ও কাজে মিল নেই৷ দলের মহাসচিব মামলার ভয়ে লুকিয়ে থাকেন৷ তাদের দলের নেতাদের চরিত্রই পালানো ও লুকানোর৷

বিশ্ব ইজতেমার সময় অবরোধ কর্মসূচি প্রত্যাহার না করায় খালেদা জিয়ার সমালোচনা করে মায়া বলেন, আওয়ামী লীগ বিশ্ব ইজতেমা সফল করার জন্য পূর্বঘোষিত কর্মসূচি স্থগিত করেছে৷ ধর্মপ্রাণ মানুষ যেন ইজতেমায় আসতে না পারে, সেজন্য অবরোধ চালিয়ে যাচ্ছেন খালেদা জিয়া৷ এটা কোনো আস্তিকের কাজ হতে পারে না৷বেগম খালেদার কাছে দেশের মানুষ ও ইসলাম নিরাপদ নয়-এ কথা উলেস্নখ করে মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী বলেন, বঙ্গবন্ধুর ঐতিহাসিক স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষে ১ মাসের প্রস্তুত বিসর্জনদিয়ে সমাবেশ পিছিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা৷ অন্যদিকে ইজতেমায় যেন মানুষ আসতে না, পারে বেগম খালেদা জিয়া সে ব্যবস্থা করেছেন৷

বেগম খালেদা জিয়াকে উদ্দেশ্য করে তিনি বলেন, অসুস্থ হলে হাসপাতালে যান৷ আপনি সুস্থ থাকেন আওয়ামী লীগ এটা চায়৷ হাসপাতালে যান দরকার হয় চিকিত্‍সা ভার আওয়ামী লীগ গ্রহণ করবে৷কামরম্নল ইসলাম বলেন, বিএনপির সাথে কোন সংলাপ নয়৷এদের এজেন্ডা তত্ত্বাবধায়ক নয়, এদের আসল উদ্দেশ্যে খালেদা-তারেকের মামলা প্রত্যাহার করা৷ তাদের কোন মামলা প্রত্যাহার করা হবেনা বলেও তিনি উলেস্নখ করেন৷খাদ্যমন্ত্রী অ্যাডভোকেট কামরুল ইসলাম বলেন, বিএনপির সঙ্গে কোনো সংলাপ নয়, এদের এজেন্ডা তত্ত্বাবধায়ক সরকার ব্যবস্থা নয়, চাপ দিয়ে খালেদা-তারেকের মামলা প্রত্যাহার করা৷ স্পষ্ঠ বলতে চাই, তাদের কোনো মামলা প্রত্যাহার করা হবে না৷ এময় তিনি মন্তব্য করেন, যেমন কুকুর তেমন মুগুর৷

কামরুল ইসলাম বলেন, খালেদা জিয়া এতিমদের টাকা মেরে খেয়েছেন৷ তিনি বুঝতে পেরেছেন, বিচার থেকে তিনি রেহাই পাবেন না৷ তাই তিনি এখন অসুস্থতার ভান করছেন৷