সমঝোতা না হলে দেশ গৃহযুদ্ধের দিকে ধাবিত হবে: সুজন

image_95390_0

দৈনিকবার্তা-ঢাকা ১০ জানুয়ারি: বর্তমানে দেশে রাজনৈতিক পরিস্থিতি অস্থির হয়ে ওঠেছে৷ এজন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে দ্রুত সংলাপে বসার জন্য অনুরোধ জানিয়েছে সুশাসনের জন্য নাগরিক (সুজন)৷সম্মেলনে সুজন সাধারণ সম্পাদক ড. বদিউল আলম মজুমদার বলেন, ৫ জানুয়ারি আওয়ামী লীগ ও বিএনপির পাল্টাপাল্টি কর্মসূচির কারণে দেশের রাজনৈতিক পরিস্থিতি অস্থির হয়ে ওঠেছে৷ সারাদেশে সহিংসতা দ্রুত ছড়িয়ে পড়ছে৷ এ অবস্থা চলতে থাকলে আমরা একটি অকার্যকর রাষ্ট্র, এমনকি গৃহযুদ্ধের দিকেও ধাবিত হতে পারে৷ দেশের এ সংকট মুহূর্ত কাটিয়ে ওঠতে দ্রুত সংলাপ ও সমঝোতা জরুরি হয়ে পড়েছে৷

শনিবার ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির সাগর-রুনি মিলনায়তনে এক জরুরি সংবাদ সম্মেলনে সুজন পক্ষ থেকে এ আহ্বান জানানো হয়৷ সংবাদ সম্মেলনে আরো উপস্থিতি ছিলেন সুজন নির্বাহী সদস্য ড. তোফায়েল আহমেদ, কেন্দ্রীয় প্রধান সমন্বয়কারী দিলীপ কুমার সরকার প্রমূখ৷

চলমান রাজনৈতিক অবস্থায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে সমঝোতার উদ্যোগ নেয়ার আহ্বান জানিয়েছেন সুশাসনের জন্য নাগরিক (সুজন) সম্পাদক ড.বদিউল আলম মজুমদার৷তিনি বলেন, বর্তমান রাজনৈতিক পরিস্থিতি চলতে থাকলে বাংলাদেশ একটি অকার্যকর রাষ্ট্রে পরিণত হবে৷ এমনকি দেশ গৃহযুদ্ধের দিকে ধাবিত হতে পারে৷তিনি আরো বলেন, ইতিমধ্যে রাজনৈতিক সহিংসতায় সারাদেশে ৯ জন নিহত হয়েছে৷ যানবাহনে আগুন দেয়ার ঘটনা ক্রমেই বাড়ছে, ব্যাহত হচ্ছে যান চলাচল৷ ৪ জানুয়ারি থেকে দেশজুড়ে মানুষ অবরুদ্ধ৷ এ এক অসহনীয় অবস্থা, যা গত নির্বাচন পূর্ববর্তী সহিংসতাপূর্ণ পরিস্থিতির কথাই মনে করিয়ে দেয়৷ সহিংসতা ও সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডের তীব্র নিন্দা জানিয়ে তিনি দ্রুত এসব বন্ধের দাবি জানান৷

বদিউল আলম বলেন, বিগত কয়েক দিনের হানাহানি ও সংঘাত দেশের অস্থিতিশীলতার বাস্তব প্রতিফলন৷ এ সঙ্কট থেকে উত্তরণের জন্য দ্রুত সময়ের মধ্যে একটি সুষ্ঠু, নিরপেক্ষ ও প্রতিযোগিতামূলক নির্বাচন হওয়া জরুরি৷ শুধু নির্বাচনই যথেষ্ট নয়৷তিনি আরো বলেন, ভবিষ্যতের অনিশ্চয়তা এড়াতে রাজনৈতিক দলগুলো এবং অন্যান্য স্বার্থ সংশ্লিষ্টদের সংলাপে বসা ও কতগুলো গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ে সমাঝোতায় আসা জরুরি৷ এর মাধ্যমে জাতীয় ঐক্য গড়ে তোলে বাংলাদেশকে মধ্যম আয়ের দেশে পরিণত হবে৷

প্রধানমন্ত্রী ও বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে দ্রুত সংলাপে বসার জন্য অনুরোধ জানিয়ে সুজন সম্পাদক বলেন, এ ক্ষেত্রে প্রধানমন্ত্রীকেই প্রাথমিক পদক্ষেপ নিতে হবে বলে আমরা মনে করি৷
বদিউল আলম বলেন, আমরা অতীতের মতো সংলাপ সংলাপ খেলা’ দেখতে চাই না৷ আমরা চাই আন্তরিকতাপূর্ণ আলোচনা, ছাড় দেয়ার মানসিকতা ও টেকসই সমাধান৷

তিনি বলেন, রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ যদি দায়িত্বশীলতার পরিচয় না দেন এবং সমস্যা সমাধানে এগিয়ে না আসেন, তাহলে আমরা রাষ্ট্রপতিকে একটি অর্থবহ সংলাপের উদ্যোগ নেয়ার জন্য অনুরোধ জানাবো৷পুলিশের বিরুদ্ধে রমরমা গ্রেপ্তার বাণিজ্যের অভিযোগ তুলে তিনি বলেন, আইনশৃঙ্খলা বাহিনী সন্দেহ করে বহু ব্যক্তিকে গ্রেপ্তার করছে৷ এ অবস্থা চলতে থাকলে দেশ একটি চরম কর্তৃত্ববাদী পুলিশি রাষ্ট্রে পরিণত হতে পারে৷ তাই নাগরিক হিসেবে আমরা গভীরভাবে শঙ্কিত৷

তিনি বলেন, রাজনৈতিক রেনতারা দায়িত্বশীলতার পরিচয় না দিলে এবং সমস্যা সমাধানে এগিয়ে না এলে আমরা রাষ্ট্রপতিকে একটি অর্থবহ সংলাপের উদ্যোগ নেয়ার জন্য অনুরোধ জানাবো৷সহিংসতা ও সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডের তীব্র নিন্দা জানিয়ে দ্রুত এগুলো বন্ধের দাবি জানান তিনি৷ বদিউল বলেন, বিগত কয়েক দিনের হানাহানি ও সংঘাত দেশের অস্থিতিশীলতার বাস্তব প্রতিফলন৷ এ সংকট থেকে উত্তরণের জন্য দ্রুত সময়ের মধ্যে একটি সুষ্ঠু, নিরপেক্ষ ও প্রতিযোগিতামূলক নির্বাচন হওয়া জরুরি৷ কিন্তু শুধু নির্বাচনই যথেষ্ট নয়৷ ভবিষতের অনিশ্চয়তা এড়াতে রাজনৈতিক দলগুলো এবং অন্যান্য স্বার্থ সংশ্লিষ্টদের সংলাপে বসা ও কতগুলো গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ে সমাঝোতায় আসা জরুরি৷

সংবাদ সম্মেলনে সুজনের সম্পাদক বদিউল আলম মজুমদার লিখিত বক্তব্যে বলেন, ৪ জানুয়ারি থেকে দেশব্যাপী মানুষ অবরুদ্ধ হয়ে পড়েছে৷ টানা অবরোধের কারণে ইতোমধ্যে জনজীবনে চরম অস্বসত্মি নেমে এসেছে৷ এ অবস্থা চলতে থাকলে অর্থনীতিতে স্থবিরতা দেখা দিবে৷তিনি একটি পরিসংখ্যান তুলে ধরে বলেন, ইতিমধ্যে রাজনৈতিক সহিংসতায় রাজশাহী, নাটোর, চাপাইনবাবগঞ্জ, সিরাজগঞ্জ, নোয়াখালী ও লক্ষীপুরসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে ৯ জন মানুষ নিহত হয়েছে৷সাথে সাথে সহিংস কর্মকান্ডের সাথে জড়িতদের খুজে বের করে বিচারের আওতায় আনারও দাবি জানানো হয়৷

তিনি বলেন, বর্তমান প্রেক্ষাপট ও ভবিষ্যতের অনিশ্চয়তা এড়াতে হলে রাজনৈতিক দলগুলো এবং অন্যান্য স্বার্থসংশ্লিষ্টদের সংলাপে বসা ও কতগুলো গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ে সমঝোতায় আসা জরুরি৷বদিউল আলম আরও বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে সংলাপে বসার জন্য আমরা অনুরোধ জানাচ্ছি৷ প্রাথমিক পদক্ষেপ প্রধানমন্ত্রীকেই নিতে হবে৷ তবে আমরা পূর্বের ন্যায় সংলাপ সংলাপ খেলা দেখতে চাই না৷এ ক্ষেত্রে রাষ্ট্রপতি বিশেষ দায়িত্ব পালন করবেন বলেও প্রত্যাশা করেন সুজন’র নির্বাহী সম্পাদক৷