0,,17128728_403,00

দৈনিকবার্তা-ঢাকা, ১৫ জানুয়ারি: ইরানের পরমাণু কর্মসূচি সংক্রানত্ম একটি চুক্তিতে উপনীত হওয়ার লক্ষ্যে তেহরান ও ওয়াশিংটনের মধ্যে বুধবার ছয় ঘন্টার বেশি আলোচনা অনুষ্ঠিত হয়েছে৷ তবে আলোচনায় কি অগ্রগতি হয়েছে তার নিয়ে আলোচকরা মুখ খুলছেন না৷ এদিকে একটি চুক্তিতে উপনীত হওয়ার তৃতীয় সময়সীমাও শেষ হয়ে আসছে৷দুই প্রতিপক্ষের মধ্যকার পরিবেশ আরো জটিল করে তুরে ইরানি কর্মকর্তারা ঘোষণা করেছেন যে, গত জুলাই থেকে ইরানে আটক থাকা আমেরিকান-ইরানিয়ান সাংবাদিককে দেশের বিপস্নবী আদালতে হসত্মানত্মর করা হয়েছে৷

মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী জন কেরি বারবার ওয়াশিংটন পোষ্টের সাংবাদিক জ্যাসন রেজাইয়ানের মুক্তির আহ্বান জানিযে আসছিলেন৷ তিন বৃহস্পতিবার জেনেভায় ইরানি পররাষ্ট্রমন্ত্রী জাভেদ জারিফের সঙ্গে দীর্ঘ সময় বৈঠক করেন৷হঠাত্‍ করে মার্কিন কর্মকর্তারা আলোচনা শেষ হয়েছে বলে ঘোষণা দেন৷ তবে গভীর রাতে কেরি আবার জারিফের হোটেলে গিয়ে ঘন্টাব্যাপী বৈঠক করেন৷উভয়পক্ষই আলোচনায় চুক্তিতে উপনীত হতে একটি অচলাবস্থা অবসানের চেষ্টা করছেন৷

ইরানের ওপর আরোপিত বৈশ্বিক অর্থনৈতিক নিষেধাজ্ঞা তুলে নেয়ার বিনিময়ে দেশটিকে পরমাণু বোমা তৈরি থেকে নিবৃত্ত করার লক্ষ্যে উভয়পক্ষের মধ্যে একটি সার্বিক চুক্তিতে উপনীত হওয়ার চেষ্টার আলোচনা চলছে৷

আগের দু’দফায় আলোচনা কাঙ্খিত লক্ষ্যে পৌঁছতে ব্যর্থ হওয়ার পর আলোচকরা নিজেদের আবার জুনের শেষ নাগাদ সময় দেন৷মার্কিন পররাষ্ট্র দপ্তরের একজন শীর্ষ কর্মকর্তা বলেন, ‘তাদের মধ্যে অর্থপূর্ণ আলোচনা হয়েছে এবং তারা উভয়পৰের স্বল্প সংখ্যক লোকের একটি গ্রম্নপের মধ্যে ব্যাপক বিষয়ে আলোচনা হয়েছে৷আলোচনার আগে জারিফ সাংবাদিকদের বলেছিলেন তিনি মনে করেন আলোচনা গুরুত্বপূর্ণ৷তিনি বলেন, ‘আমি মনে করি এতে প্রমাণিত হবে যে উভয়পক্ষ এই প্রক্রিয়াকে বেগবান করতে সামনে এগিয়ে যেতে প্রস্তুত রয়েছে৷নতুন সময়সীমার মধ্যে একটি সার্বিক চুক্তি স্বাক্ষরিত হবে কিনা জানতে চাওয়া হলে জারিফের সতর্ক উত্তর : আমরা দেখবো৷