mina_86752

দৈনিকবার্তা-ঢাকা, ১৩ অক্টোবর ২০১৫: সৌদি আরবের মিনায় পদদলিত হয়ে নিহত বাংলাদেশি হাজির সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৯২ জনে৷ আর নিখোঁজ আছেন ৮০ জন৷ সৌদি আরবে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত গোলাম মসিহ সাংবাদিকদের এ কথা জানিয়েছেন৷নিহত হাজির সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন সৌদি আরবে বাংলাদেশ দূতাবাস ও হজ অফিসের কর্মকর্তারা৷ সূত্র জানিয়েছে, নিহত হাজিদের মধ্যে ৭৮ জনের পরিচয় নিশ্চিত হওয়া গেছে৷ এঁদের মধ্যে ৫৫ জনের লাশ সৌদি আরবেই দাফন করা হয়েছে৷ যেসব লাশ দেখে পরিচয় নিশ্চিত হওয়া যাচ্ছে না তাদের ডিএনএর সঙ্গে আত্মীয়দের ডিএনএ মিলিয়ে পরিচয় নিশ্চিত করছে সৌদি সরকার৷ বাংলাদেশ দূতাবাসের পক্ষ থেকে নিখোঁজ হাজিদের সৌদি আরবে থাকা নিকটাত্মীয়দের ডিএনএ নমুনা দিতে অনুরোধ করা হয়েছে৷

সমপ্রতি ধর্মসচিব চৌধুরী মো.বাবুল হাসান সৌদি আরব থেকে ফিরে বলেছেন,হাজিদের লাশ বাংলাদেশে আনার ব্যাপারে দেশটির সরকার অনুমতি দেয়নি৷গত ২৪ সেপ্টেম্বর হজের পরদিন শয়তানকে পাথর মারতে যাওয়ার পথে মিনার ২০৪ নম্বর সড়কে পদদলিত হয়ে বাংলাদেশসহ বিভিন্ন দেশের হাজিরা মারা যান৷ সৌদি আরব এখন পর্যন্ত ৭৬৯ জন হাজির মৃতু্যর খবর নিশ্চিত করেছে৷ দেশটি বলেছে, এ সময় আহত হয়েছেন আরও আট শতাধিক৷অবশ্য এ ঘটনায় কতজন হাজি মারা গেছেন তা নিয়ে ইতিমধ্যে বিতর্ক তৈরি হয়েছে৷ ইরান বলেছে, পদদলিত হয়ে মৃতের সংখ্যা দুই হাজার হবে৷ ভারত ও পাকিস্তানের কাছে সৌদি সরকারের দেওয়া তালিকায় ১ হাজার ১০০ থেকে ১ হাজার ২০০ হাজির মৃতু্যর কথা বলা হয়েছে৷ সৌদি আরবের বাংলাদেশ দূতাবাসের এক কর্মকর্তা বলেছেন, দেশটির বিভিন্ন হাসপাতালে আহত বাংলাদেশি হাজিরা চিকিত্‍সা নিচ্ছেন৷ আহত হাজির সংখ্যা এখন ২১ জন৷ কর্মকর্তারা বলেছেন, নিহত বাংলাদেশি হাজিদের সবার পরিচয় নিশ্চিত হওয়া যায়নি৷ মরদেহ সৌদি আরবের কেন্দ্রীয় মর্গে রাখা হয়েছে৷

এদিকে বাংলাদেশ দূতাবাস থেকে জানানো হয়েছে, এ বছর বাংলাদেশ থেকে হজে যাওয়া ১ লাখ ৬ হাজারেরও বেশি হাজির মধ্যে স্বাভাবিক মৃতু্য হয়েছে ১২৯ জনের৷