Awami Olama League--------7

দৈনিকবার্তা-ঢাকা, ১৭ ঢাকা ২০১৫: শনিবার সকালে জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে ওলামা লীগের আক্তার হোসেন ও আবুল হাসানের নেতৃত্বাধীন অংশকে প্রথমে ধাওয়া ও পরে মারধর করে ইলিয়াস হোসাইন বিন হেলালী ও মো.দেলোয়ার হোসেনের অংশ৷মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করতে গিয়ে বাংলাদেশ আওয়ামী ওলামালীগের দু’গ্রুপের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টাধাওয়া এবং হয়েছে৷ শনিবার সকালে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে এ ঘটনা ঘটে৷

আওয়ামী ওলামা লীগ টাঙ্গাইল জেলা শাখার সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের নেতৃত্বে একটি গ্রুপ ও ঢাকা মহানগর ও কদমতলী থানা ওলামালীগের অন্য একটি গ্রুপের নেতাকর্মীদের মধ্যে এ ধাওয়া-পাল্টাধাওয়া হয়৷সংগঠনের কেন্দ্রীয় সভাপতি আল্লামা ইলিয়াস বিন হেলালী ঢাকা মহানগর ও কদমতলী থানা ওলামালীগের অনুষ্ঠানে অতিথি ছিলেন৷ধাওয়া পাল্টাধাওয়ার সময় কদমতলী থানা ওলামালীগের নেতাকর্মীদের হাতে পিস্তল ও লাঠি দেখা যায়৷ ধাওয়া খেয়ে টাঙ্গাইল জেলা সভাপতি ও সম্পাদকের নেতৃত্বাধীন গ্রুপটি পিছু হটে৷

এসময় উভয় পক্ষের বেশ কয়েকজন নেতাকর্মী আহত হন৷ কিলঘুষিতে ও টানাটানিতে অনেকের পাঞ্জাবী ছিঁড়ে যায় এবং মাধার টুপি রাস্তায় পড়ে থাকতে দেখা যায়৷ এরপর পুলিশ এসে টাঙ্গাইল ওলামা লীগের নেতাকর্মীদের ঘটনাস্থল থেকে সরিয়ে দেয়৷সংগঠনের কেন্দ্রীয় সভাপতি আল্লামা ইলিয়াস বিন হেলালী বলেন, মহানবীর (স.) কার্টুন ছবি পত্রিকায় ছাপা নিষিদ্ধ করতে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা চাওয়ার জন্য আমরা এ কর্মসূচির আয়োজন করেছিলাম৷ কিন্তু ওরা এসেছিল বিশৃঙ্খলা করতে৷ আসলে পালিয়ে যাওয়া গ্রুপটি ওলামা লীগের কেউ নয়, তারা হলেন জামাত শিবিরের কর্মী৷ যদি তাদের ব্যানারে জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে আমরা শেখ হাসিনার পাশে আছি স্লোগান লেখা ছিল৷অপরদিকে টাঙ্গাইল ওলামা লীগ মহানবীকে (সা.) কটূক্তিকারীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার দাবিতে মানববন্ধন করে৷তবে এ ঘটনায় কেউ গুরুতর আহত হয়নি৷ওলামা লীগের আক্তার হোসেন ও আবুল হাসান অংশের সাধারণ সম্পাদক আবুল হাসান বলেন, বঙ্গবন্ধুর কথা যেন বলতে না পারি সেজন্য হেলালী বাহিনী আমাদের মারধর করে প্রেস ক্লাবের সামনে থেকে বের করে দেয়৷ হেলালী বাহিনীর বিরুদ্ধে জামায়াতে ইসলামীর এজেন্ডা বাস্তবায়নের অভিযোগও করেন তিনি৷ আবুল হাসান অভিযোগ করেন, হেলালীর কয়েকজন সন্ত্রাসী হকিস্টিক, লাঠিসোটা দিয়ে মারধর শুরু করলে তাদের ১৬ নেতাকর্মী আহত হয়৷ঢাকা মেডিকেলসহ কয়েকটি হাসপাতালে তাদের চিকিত্‍সা চলছে বলেও জানান তিনি৷অবশ্য অপর অংশের সভাপতি ইলিয়াস হোসাইন বিন হেলালী বলেন, প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা অনুযায়ী আমরা সকালে প্রেস ক্লাবের সামনে জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে মানববন্ধন করতে চাইলে হেফাজতে ইসলাম ও জামায়াতে ইসলামীর মদদে তারা আমাদের বাধা দেয়৷ পরে আমাদের লোকজন তাদের ওখান থেকে সরিয়ে দেয়৷