শ্রীপুরে যৌতুকের টাকা না দিতে না পারায় শ্বাশুড়ি ও শ্যালিকাকে কুপিয়েছে এক গার্মেন্টস কর্মী

0
112

গাজীপুরের শ্রীপুরে যৌতুকের টাকা না নিয়ে মেয়ের বাড়ি বেড়াতে আসায় গার্মেন্টস কর্মী এক যুবক সোমবার তার শ্বাশুড়ি ও শ্যালিকাকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে এলোপাতাড়ি কুপিয়েছে। এসময় এলাকাবাসি ওই যুবককে আটক করে পুলিশে দিয়েছে। আটককৃতের নাম রিয়াজ উদ্দিন (২৮)। সে কুড়িগ্রাম জেলার উলিপুর উপজেলার আপোয়ারকাতা গ্রামের মৃত ইয়াকুব আলীর ছেলে।

শ্রীপুর মডেল থানার এসআই মোহসিন মিয়া ও স্থানীয়রা জানায়, নেত্রকোনা জেলার দূর্গাপুর উপজেলার ঝানজাইড় গ্রামের বকুল মিয়ার মেয়ে বকুলি আক্তারকে প্রায় ৮বছর আগে বিয়ে করে রিয়াজ উদ্দিন। তাদের একটি ছেলে সন্তান রয়েছে। স্ত্রী সন্তানকে নিয়ে রিয়াজ উদ্দিন গাজীপুরের শ্রীপুর উপজেলার নগরহাওলা গ্রামের মুজিবর মিয়ার বাড়িতে ভাড়া থেকে স্থানীয় একটি কারখানায় চাকুরী করে। বেশ কিছুদিন ধরে রিয়াজউদ্দিন ব্যবসা করার করার কথা বলে শ্বাশুড়ির কাছে ২০ হাজার টাকা যৌতুক দাবী করে আসছিল। কিন্তু শ্বশুর বাড়ির লোকজন টাকা দিতে না পারায় গত ছয় মাস যাবৎ শ্বশুর বাড়ির সঙ্গে সম্পর্কের অবনতি হয় রিয়াজউদ্দিনের। এদিকে গত শুক্রবার সন্ধ্যায় বকুলির মা খোরশেদা ও মামাতো বোন মর্জিনা শ্রীপুরে রিয়াজের বাসায় বেড়াতে আসে। টাকা না নিয়ে বেড়াতে আসায় রিয়াজউদ্দিন তার শ্বাশুড়ি ও শ্যালিকার উপর ক্ষুব্ধ হয়। এর জের ধরে সোমবার সকালে রিয়াজউদ্দিনের সঙ্গে তার শ্বাশুড়ির কথাকাটাকাটি হয়। একপর্যায়ে রিয়াজ উদ্দিন উত্তেজিত হয়ে দা’ দিয়ে শ্বাশুড়ি ও শ্যালিকাকে এলোপাতাড়ি কোপাতে থাকে। এতে খোরশেদা (৫০) ও মর্জিনা (৩৫) গুরুতর আহত হয়। এসময় আহতদের চিৎকারে এলাকাবাসি এগিয়ে এসে রিয়াজ উদ্দিনকে আটক করে গাছের সঙ্গে বেঁধে রাখে। স্থানীয়রা গুরুতর অবস্থায় আহতদের উদ্ধার করে প্রথমে শ্রীপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ও পরে সেখান থেকে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য প্রেরণ করে। খবর পেয়ে দুপুরে পুলিশ ঘটনাস্থলে গেলে আটককৃতকে পুলিশের কাছে সোপর্দ করা হয়। এঘটনায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।