হাসিনার অধীনে নির্বাচনে যাব না, হতেও দেব না: রিজভী

0
94

বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেছেন, শেখ হাসিনার অধীনে তার দল নির্বাচনে যাবেও না, নির্বাচন করতেও দেবে না।মঙ্গলবার কুড়িগ্রাম শহরের সরদারপাড়ায় নিজ বাসভবনে এক সংবাদ সম্মেলনে এ কথা বলেন তিনি।

নির্দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচন না হওয়ায় দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অংশ নেয়নি বিএনপি। এর পর থেকে তারা নির্দলীয় সরকারের দাবিতে সরব রয়েছে। গত ১২ নভেম্বর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের সমাবেশে বক্তব্যে দলের চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া নির্বাচনের আগে সরকার প্রধানের দায়িত্ব থেকে শেখ হাসিনার সরে যাওয়ার দাবি জানান।নির্বাচনে বিএনপি অংশ নেবে কি না এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, আমরা নির্বাচনে যাব, তবে নির্দলীয় সরকারের অধীনে। শেখ হাসিনার অধীনে বিএনপি নির্বাচনে যাবেও না, নির্বাচন করতেও দিবে না।এর অন্যথা হলে দেশের জনগণকে নিয়ে তা প্রতিহত করা হবে জানান তিনি।

বর্তমান সরকার সুষ্ঠু নির্বাচন করতে পারবে না অভিযোগ করে বিএনপির এ নেতা বলেন, তার আমলে নির্বাচন মানেই শেখ হাসিনা নির্বাচন। রাত ৩টার সময় ব্যালট বাক্স পূরণ হয়ে যাবে। আর বিরোধী প্রার্থীরা মনোনয়ন জমা দিতে পারবে না। ষোড়শ সংশোধনী বাতিলের রায়ে নির্বাহী বিভাগ ও তার প্রধান ক্ষুব্ধ হয়েছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, ক্রুদ্ধ হয়ে তখন থেকেই বিচার বিভাগের উপর গুন্ডামি শুরু করেছে। দেশের গণতন্ত্রের নূন্যতম অস্তিত্বটুকু নিশ্চিহ্ন করা হয়েছে।প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহাকে প্রথমে জোর করে ছুটি নিতে এবং পরে পদত্যাগে বাধ্য করে।সরকারকে নির্দয়, নিষ্ঠুর ও ফ্যাসিবাদী আখ্যা দিয়ে রিজভী বলেন, এখানে একজনের স্বাধীনতা অবাধ। তিনি রাষ্ট্রের প্রত্যেকটি অঙ্গের উপরে সর্বপ্রধান হিসেবে কাজ করতে চান।সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক সাইফুর রহমান রানা, সহ-সভাপতি মোস্তাফিজার রহমান ও শফিকুল ইসলাম বেবু, যুগ্ম সম্পাদক সোহেল হোসনাইন কায়কোবাদ, সাংগঠনিক সম্পাদক নুর ইসলাম নুরু, জেলা মহিলা দলের আহবায়ক রেহেনা খানম বিউটি, জেলা যুবদলের সাধারণ সম্পাদক নাদিম আহমেদ, পৌর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর বিপ্লব প্রমুখ।