পাবনা ছাত্রলীগের দুই গ্র“পের সংর্ঘষ:,অনির্দিষ্টকালের জন্য কলেজ বন্ধ ঘোষনা

পাবনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে ছাত্রলীগের দুই গ্র“পের কয়েক দফা সংঘর্ষে ৯ জন আহত হয়েছে। শুক্রবার ভোররাতে কয়েক দফায় এই সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে কলেজ ক্যাম্পাসে। এ ঘটনায় অনির্দিষ্টকালের জন্য কলেজ বন্ধ ঘোষনা করেছে কর্তৃপক্ষ। এ ঘটনায় মেডিসিন বিভাগের প্রধান ডা. সাফিকুল হাসানকে প্রধান করে তিন সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। তদন্তে ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের বিরুদ্ধে প্রশাসনিক ব্যবস্থা নেওয়া হবে।
পামেকের অধ্যক্ষ অধ্যাপক ডা. রিয়াজুল হক এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। জানা যায়, পামেক কলেজ শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি ডা. মাহফুজ নয়ন ও সম্পাদক ফাইনাল ইয়ারের ছাত্র অদ্বিতীয় দে গ্র“পের মধ্যে বেশ কিছুদিন ধরে কমিটি গঠনসহ আধিপত্য বিস্তার নিয়ে বিরোধ চলে আসছিল। এ ঘটনার জের ধরে বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত দেড়টার দিকে উভয়গ্র“প সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে এনে উভয়গ্রুপকে হোষ্টেলে ঢুকিয়ে দেয়। শুক্রবার ভোর ৬ টার দিকে সভাপতি ডা. মাহফুজ নয়ন সমর্থিত গ্র“প সম্পাদক গ্র“পের উপর হামলা চালিয়ে মারপিট করে। এ ঘটনায় মীম, হাসান, জয়দেবসহ ৯ জন নেতাকর্মি আহত হয়। তাদেরকে পাবনা জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। পাবনা সদর থানার ওসি আব্দুর রাজ্জাক এ তথ্য নিশ্চিত করে বলেন, খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি স্বাভাবিক করেছে। অভিযোগ পাইনি। পেলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।
বৃহস্পতিবার (১১ জানুয়ারি) রাতের এই ঘটনায় কলেজ শাখা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি, বর্তমান সাধারণ সম্পাদকসহ কমপক্ষে ১০ জন আহত হন। এ অবস্থায় অনির্দিষ্টকালের জন্য পাবনা মেডিক্যাল কলেজ বন্ধ ঘোষণা ও তিন সদস্য বিশিষ্ট তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। শুক্রবার বেলা ২টার মধ্যে ছাত্র-ছাত্রীদের হোস্টেল ত্যাগের নির্দেশ দিয়েছে কলেজ প্রশাসন।পুলিশ ও সাধারণ শিক্ষার্থীরা জানায়, পাবনা মেডিক্যাল কলেজের মেডিসিন ক্লাব ও রোটারি ক্লাব নিয়ন্ত্রণ নিয়ে পামেক ছাত্রলীগের বর্তমান সভাপতি মাহফুজ নয়ন এবং সাধারণ সম্পাদক অদ্বিতীয় দে’র কয়েকদিন ধরে দ্বন্দ্ব চলছিল। এরই জের ধরে নতুন শিক্ষার্থীদের বরণকে কেন্দ্র করে বৃহস্পতিবার রাতে ছাত্রলীগের দুই গ্রুপে তিন দফায় সংঘর্ষ হয়। এতে উভয়পক্ষের ১০ জন আহত হন। আহতদের মধ্যে মেডিক্যাল কলেজ ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি আবু তোরাব মিম, বঙ্গবন্ধু হলের সাংগঠনিক সম্পাদক মশিউর রহমান, উপ যুগ্ম সম্পাদক জয়দেব কুমার সূত্রধর, সাবেক সাংস্কৃতি সম্পাদক জুবায়ের মাহাবুব, উপ-প্রচার সম্পাদক ইমরান হোসেন, সদস্য নির্ঝর ও সাগর আহম্মেদকে পাবনা জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।শিক্ষার্থীরা আরও জানায়, পাবনা মেডিক্যাল কলেজের মেডিসিন ক্লাব নিয়ন্ত্রণ করেন পামেক ছাত্রলীগের বর্তমান সভাপতি মাহফুজ নয়ন। অপরদিকে সাধারণ সম্পাদক অদ্বিতীয় দের নিয়ন্ত্রণে রয়েছে রোটারি ক্লাব।নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কয়েকজন শিক্ষার্থী জানান, শুক্রবার সকালে হঠাৎ করে কলেজ প্রশাসন বেলা ২টার মধ্যে ছাত্র-ছাত্রীদের হোস্টেল ছাড়ার নির্দেশ দিয়েছে। তীব্র শীতের মধ্যে এই অল্প সময়ে বাসায় বা অন্য কোথাও যাওয়াটা খুব কষ্টের। ছাত্রলীগের দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষের কারণে তাদের হয়রানি শিকার এবং কলেজের পরিবেশ নষ্ট হচ্ছে।এ ব্যাপারে পাবনা মেডিক্যাল কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি মাহফুজ নয়ন ও সাধারণ সম্পাদক অদ্বিতীয় দে’র মোবাইল বন্ধ থাকায় তাদের সঙ্গে যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি।