পথে পথে বিএনপির নেতাকর্মীদের ওপর চড়াও পুলিশ, গুলি

বিএনপির চেয়ারপারসন ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়া সিলেট সফরে যাওয়ার পথে তাঁকে শুভেচ্ছা জানাতে বিভিন্ন স্থানে রাস্তার দুই পাশে জড়ো হওয়া নেতাকর্মীদের ওপর পুলিশ চড়াও হয়েছে এবং অন্তত ১৯ জনকে আটক করেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

সোমবার সকাল সোয়া ৯টার দিকে ঢাকার গুলশানের নিজ বাসভবন থেকে সাবেক এই প্রধানমন্ত্রী মাজার জিয়ারতের জন্য সিলেটের পথে বের হন। এর পর নারায়ণগঞ্জের আড়াউহাজার উপজেলা, নরসিংদীর শিবপুর, কিশোরগঞ্জের ভৈরব ও ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আশুগঞ্জে বিএনপির নেতাকর্মীদের ওপর চড়াও হয় পুলিশ। এ সময় গুলির ঘটনাও ঘটে।খালেদা জিয়ার গাড়িবহর সিলেটে যাওয়ার পথে তাকে শুভেচ্ছা জানাতে বিভিন্ন স্থানে জড়ো হওয়া বিএনপি নেতাকর্মীদের বাধা ও ধরপাকড়ের অভিযোগ উঠেছে।

নারায়ণগঞ্জে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়ক থেকে আটক করা হয়েছে মহানগর বিএনপির সহ-সভাপতি সাখাওয়াত হোসেন খান ও সহ-আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক নজরুল ইসলাম আজাদসহ দশ জনকে।নরসিংদীতে বিএনপির কেন্দ্রীয় আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক সানাউল্লাহ মিয়াকে আটক করা হলেও পরে তাকে ছেড়ে দেওয়া হয়।এছাড়া নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজার, নরসিংদীর ভেলানগর ও কামারটেকের কাছে রাস্তায় থাকা বিএনপি নেতাকর্মীদের পুলিশ ধাওয়া দিয়ে সরিয়ে দিয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন দলটির নেতারা।বিএনপির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেন, আমরা খবর পাচ্ছি, ম্যাডামের গাড়িবহর সিলেট যাওয়ার পথে পুলিশ নেতা-কর্মীদের রাস্তায় দাঁড়াতেই দিচ্ছে না। বিভিন্ন জায়গায় গ্রেপ্তার অভিযান চলছে।

নেতাকর্মীরা যাতে রাস্তায় আসতে না পারে, সেজন্য কোথাও কোথাও তাদের গলিতে আটকে রাখা হয় বলেও অভিযোগ করেন রিজভী। ভোটের বছরের শুরুতে দুর্নীতি মামলার রায় ঘোষণার আগেই হয়রত শাহজালাল (র.) ও হযরত শাহ পরান (র.) এর মাজার জিয়ারত করতে সিলেটে যাচ্ছেন বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া। সোমবার সকাল সোয়া ৯টায় তার গাড়িবহর গুলশানের বাসা থেকে রওনা হয়ে যানজটে ডিঙিয়ে সাড়ে ১০টার দিকে সোনারগাঁও পার হয়। সংবাদকর্মীদের গাড়িসহ ৩০ থেকে ৩৫টি গাড়ি রয়েছে খালেদার বহরে।খালেদা জিয়াকে অভ্যর্থনা জানাতে নেতাকর্মীদের নিয়ে সিদ্ধিরগঞ্জে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে জড়ো হওয়ার চেষ্টা করেন নারায়ণগঞ্জের বিএনপি নেতা সাখাওয়াত। এ সময় পুলিশ সেখান থেকে সাখাওয়াতসহ চারজনকে আটক করে।

অন্যদিকে নজরুল নেতাকর্মীদের নিয়ে ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের পাঁচরুখীতে জড়ো হওয়ার চেষ্টা করলে সেখানে পুলিশের সঙ্গে তাদের হাতাহাতি হয়। পরে পুলিশ নজরুলকে আটক বলে স্থানীয়রা জানান।নারায়ণগঞ্জের পুলিশ সুপার ময়নুল হক এসব ঘটনায় মোট দশজনকে আটক করার কথা বললেও বাকিদের নাম প্রকাশ করেননি।খালেদা জিয়ার গাড়িবহর নারায়ণগঞ্জ পেরিয়ে নরসিংদী হয়ে যাওয়ার সময় সড়কের বিভিন্ন পয়েন্টে বিপুল পুলিশ মোতায়েন থাকতে দেখা যায়।পুলিশের বাধায় মহাসড়কে আসতে না পেরে বিভিন্ন গলিতে থেকে স্লোগান দিয়ে খালেদা জিয়ার দৃষ্টি আকর্ষণ করতে দেখা যায় নেতা-কর্মীদের। বেলা সাড়ে ১১টা দিকে নরসিংদীর ভেলানগর জেলা কারাগারের কাছে পুলিশ বেষ্টনীর বাইরে একদল যুব্ক নৌকা নৌকা শ্লোগান দিয়ে মিছিল শুরু করে। ওই মিছিল থেকে খালেদা জিয়ার উদ্দেশ্যে জুতাও দেখানো হয়।গাড়িবহর দ্রুত ওই এলাকা পার হওয়ার সময় পেছনে একটি গাড়ির ওপরও হামলার চেষ্টা হয় বলে বহরে থাকা বিএনপি নেতাদের অভিযোগ।নরসিংদীর কামারটেকে রাস্তার পাশে দাঁড়িয়ে থাকা কয়েকশ নেতা-কর্মী স্লোগান দিলে পুলিশ তাদের ধাওয়া দেয়। খালেদা জিয়া তখন কয়েক মিনিটের জন্য গাড়ি থামিয়ে রাস্তার পাশ থেকে বিএনপির কয়েকজন নারী কর্মীকে ডেকে কথা বলেন।

এরপর নরসিংদীর রায়পুরার বারৈচা ও ভৈরব এলাকায় বিপুল সংখ্যক বিএনপি নেতা-কর্মী ব্যানার-ফেস্টুন হাতে রাস্তার পাশে দাঁড়িয়ে দলীয় প্রধানকে শুভেচ্ছা জানান।নরসিংদী জেলা বিএনপির সভাপতি খায়রুল কবির খোকন বলেন, তাদের চেয়ারপারসনের গাড়িবহর নরসিংদী পার হওয়ার সময় বেলা সাড়ে ১১টা থেকে পৌনে ১২টার মধ্যে নরসিংদী শহর, মাধবদী ও শিবপুর থেকে দলের কেন্দ্রীয় নেতা সানাউল্লাহ মিয়াসহ ১৩ জনকে আটক করে পুলিশ।পরে বেলা সোয়া ২টার দিকে সানাউল্লাহ মিয়া বলেন, আটক করার পর কয়েক ঘণ্টা রেখে পুলিশ তাকে ছেড়ে দিয়েছে। তিনি নরসিংদী থেকে ঢাকায় ফিরছেন।