শৈলকুপার ভাটবাড়িয়া গ্রাম পুরুষ শুন্য: অনেক পরিবারের মেয়েরাও গ্রাম ছাড়া, সন্ধ্যা হলেই অস্ত্রের মহড়া শুরু

ঝিনাইদহের শৈলকুপায় ভারপ্রাপ্ত সাবেক চেয়ারম্যান আওয়ামীলীগ নেতা আব্দুল আজিজ কে কুপিয়ে হত্যা চেষ্টার মামলায় পুরুষ শুন্য হয়ে পড়েছে ভাটবাড়িয়াসহ আশপাশের কয়েকটি গ্রাম। গত ১লা ফেব্রুয়ারী কাতলাগাড়ী বাজারে সন্ত্রাসী হামলার ঘটনার পর থেকে এজাহার নামীয় আসামীসহ পুলিশ আতঙ্কে পলাতক রয়েছে সারুটিয়া ইউনিয়নের কয়েক গ্রামের যুবক ও মধ্যবয়সী মানুষ। বাদী পক্ষের অত্যাচারে স্কুল-কলেজ পড়–য়া শিক্ষার্থীগণ বাড়িতে নেই। আসামীর স্বড়জনরা অভিযোগ করেন, বিএনপি ক্যাডার রেজাউল ইসলাম সংজ্ঞবদ্ধ বাহিনী গড়ে তুলে রাতের আধারে ভাটবাড়িয়া গ্রামে আসামীপক্ষের মহিলাদের ভয়ভীতি দেখিয়ে ফায়দা লোটার চেষ্টা অব্যাহত রেখেছে। রেজাউল একাধিক মামলার আসামী ও পারিবারিকভাবে বিএনপি রাজনীতির মদদপুষ্ট। এই উঠতি মাস্তানের ভয়ে ভাটবাড়িয়া এলাকাসহ কয়েকগ্রামের সাধারণ মানুষের মাঝে অজানা আতঙ্ক জেঁকে বসেছে। অপরদিকে আসামীদের মাঠ-ঘাট বন্ধের পাশাপাশি সুযোগ বুঝে রাতের আধারে বাড়িতে সংজ্ঞবদ্ধ ক্যাডার গ্রুপ কালো কাপড়ে মুখ ঢেকে দেশীয় অস্ত্রে সজ্জিত হয়ে চরাও হচ্ছে প্রতিরাতে বিভিন্ন বাড়িতে।আসামীদের বাজারঘাট এমনকি বাচ্চাদের স্কুলে যাওয়া বন্ধ করে দিচ্ছে বলে অভিযোগ উঠেছে। আসামীপক্ষের মহিলারে মাঝে আতঙ্ক ছড়িয়ে লুটপাটের চেষ্টা চালাচ্ছে। এছাড়া অডিভযোগ উঠেছে আসামীদের বাড়ীর বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করেছে বাদী পক্ষের লোকজন। তবে পুলিশ প্রশাসনের পক্ষ থেকে টহল জোরদার হলেও স্থানীয় গন্ডাপান্ডাদের উৎপাত কোন ভাবেই থামেনি । বিভিন্ন গ্রামের এজাহার নামীয় ১৭ জন আসামীর পরিবারে সন্ধ্যা নামতেই আতঙ্ক বিরাজ করছে। এসব আসামী ধরপাকড়ে অভিযান চলাকালীন অন্যান্যা গ্রামের মানুষের মাঝেও পুলিশভীতি ছড়িয়ে পড়ায় ইউনিয়নটিতে বর্তমানে ভুতুরে অবস্থা বিরাজ করছে। সন্ত্রাসী হামলাকে কেন্দ্র করে ইউনিয়ন চেয়ারম্যান মাহমুদুল হাসান মামুন’সহ বেশ কয়েকজন সাধারণ মানুষের নামে মামলা রুজু হওয়ায় সচেতন মহল ক্ষোভ প্রকাশ করেছে। অপরদিকে পুলিশ এখন পর্যন্ত আসামী ধরতে না পারায় বাদীর স্বজনদের মাঝে তীব্র ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। গুরুতর আহত আব্দুল আজিজ বর্তমানে ঢাকার পঙ্গ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা শৈলকুপা থানার এসআই এমদাদুল ইসলাম জানান, আব্দুল আজিজের উপর হামলাকারীদের গ্রেফতারে সর্বাত্বক চেষ্টা চালানো হচ্ছে। এর আগে দুজনকে জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে। ঘটনার সাথে সংশ্লিষ্ট নয় এমন সাধারণ মানুষের আতঙ্কিত হওয়ার কিছু নাই। বর্তমানে সার্বিক পরিস্থিতি পুলিশের অনুকুলে রয়েছে।