রাজবাড়ী আন্জুমান ই কাদেরিয়ার সভাপতি জনাব কাজী ইরাদত আলীর নেতৃত্বে স্পেশাল ট্রেনের ভারত যাত্রা।।

173

ভারতের পশ্চিম বঙ্গের মেদিনীপুরের উদ্দেশ্যে আঞ্জুমান-ই-কাদেরীয়া রাজবাড়ীর উদ্যোগে দুই হাজার এক শত ৫৮ জন ওরশ যাত্রী নিয়ে দেশের এক মাত্র স্পেশাল ট্রেন আজ বৃহস্পতিবার রাত ১০টায় রাজবাড়ী রেল ষ্টেশন থেকে ছেড়ে গেছে। ট্রেনটির ওরশ যাত্রীদের বিদায় জানান, শিক্ষাপ্রতিমন্ত্রী, রাজবাড়ী-১ আসনের এমপি ও জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক কাজী করামত আলী, জেলা বিএনপি’র সভাপতি ও সাবেক এমপি আলী নেওয়াজ মাহমুদ খৈয়ম, জেলা প্রশাসক মোঃ শওকত আলী, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) মোঃ রেজাউল করিমসহ জেলা প্রশাসনের উদ্ধর্তন কর্মকর্তারা।

এ সময় শিক্ষা প্রতিমন্ত্রী কাজী কেরামত আলী বলেন, তিনি সকলের মঙ্গল কামনায় ভক্তদের সাথে দেখা করতে এসেছেন। তিনিও ওরশে যোগ দেবেন। সে লক্ষে আজ শুক্রবার তিনি সড়ক পথে মেদিনীপুরের উদ্দেশ্যে যাবেন। আঞ্জুমান-ই-কাদেরীয়া রাজবাড়ীর সভাপতি কাজী ইরাদত আলী জানান, আগামী ১৭ ফেব্রুয়ারী ভারতের পশ্চিম বঙ্গের মেদিনীপুরে হয়রত আলী আব্দুল কাদের সামশুল কাদের সৈয়দ শাহ্ মোরশেদ আলী আল্ কাদেরী আল হাসানী ওয়াল হুসাইনী আল্ বাগদাদী আল মেদিনীপুরী (আঃ) মশহুর -এর ১১৭ তম বার্ষিক ওরশ শরীফ উদ্যাপিত হবে। ওই ওরশ শরিফে যোগ দিতে প্রতি বছরের মত এবারও আঞ্জুমান-ই-কাদেরীয়া রাজবাড়ীর উদ্যোগে এবং বাংলাদেশ ও ভারতের রেলওয়ে বিভাগের ব্যবস্থাপনায় রাজবাড়ী রেল ষ্টেশর থেকে পশ্চিমবঙ্গের মেদিনীপুরের উদ্দেশ্যে ওরশ স্পেশাল ট্রেনটি ছেড়ে যায়। এ জন্য রেলওয়ে বিভাগের পক্ষ থেকে ২৩টি বগি সম্বিলিত একটি ষ্পেশাল ট্রেন বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। ওই ট্রেনে রাজবাড়ী জেলাসহ দেশের বিভিন্ন অঞ্চল থেকে আগত পাসপোর্টধারী ২ হাজার এক শত ৫৮ জন ওরশ যাত্রী সেখানে যাবেন। এর মধ্যে পুরুষ ১ হাজার ২ শত ৯ জন, নারী ৮শত ৭৭ জন ও শিশু ৭২ জন। ট্রেনটি আগামী ১৯ ফেব্রুয়ারী রাতে ওরশ শেষে রাজবাড়ী রেল ষ্টেশনে ফিরে আসবে।

উল্লেখ্য, বাংলাদেশ ও ভারত সরকার যৌথভাবে ১৯০২ সাল থেকে ওরশ যাত্রীদের যাতায়াতের সুবিধার্থে ওরশ স্পেশাল ট্রেনের ব্যবস্থা করে আসছে।