দুদক কারও রক্তচক্ষুক ভয় করে না : দুদক কমিশনার

47

দুর্নীতি দমন কমিশনের কমিশনার (তদন্ত) এএফএম আমিনুল ইসলাম বলেছেন, দুর্নীতির বিরুদ্ধে বর্তমান সরকার জিরো টলারেন্স ঘোষণা করেছে। তাই দুর্নীতি দমন কমিশন কারও রক্তচক্ষুকে ভয় করে না। কোথাও দুর্নীতি হলে কিংবা কেউ দুর্নীতি করলে আমাদের জানান, আমরা অ্যাকশনে যাব। সোমবার বেলা ১১টায় পাবনার চাটমোহর উপজেলা পরিষদের হলরুমে উপজেলা দুর্নীতি দমন কমিশন পাবনা সমন্বিত কার্যালয়ের আয়োজনে গণশুনানির উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।

দুদক কমিশনার বলেন, দেশ অনেক আগেই উন্নয়নশীল দেশ হতে পারত, কিন্তু দুর্নীতির কারণে হয়নি। দেশে সৎ মানুষ গড়তে, সততার দৃষ্টান্ত স্থাপন করতে স্কুলের শিক্ষার্থীদের নিয়ে সারা দেশে ২৬ হাজার সততা সংঘ গঠন করা হয়েছে। তৈরি করা হয়েছে সততা স্টোর।তিনি বলেন, আগামী ১০-১৫ বছর পর এই দেশের হাল ধরবে এখনকার শিক্ষার্থীরা। তাই তাদের মাঝে সততার বীজ বুনতে হবে। যার ফলস্বরূপ আগামীতে দেশে সৎ কর্মকর্তা তৈরি হবে, দুর্নীতি কমে যাবে অনেক।চাটমোহর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সরকার অসীম কুমারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন, উপজেলা দুর্নীতি প্রতিরোধ কমিটির সভাপতি এসএম মিজানুর রহমান। অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) রহুল আমিন, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার গৌতম কুমার বিশ্বাস, দুদকের রাজশাহী বিভাগীয় পরিচালক আবদুল আজিজ ভূঁইয়া, পাবনা জেলা দুদকের উপপরিচালক আবু বক্কার সিদ্দিক, চাটমোহর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান হাসাদুল ইসলাম হীরা।গণশুনানি চলাকালে উপজেলার ফৈলজানা ইউনিয়ন ভূমি কর্মকর্তা (তহশিলদার) শরিফুল ইসলাম জমির খাজনা খারিজ করে দেয়ার নাম করে ঘুষ নেয়ার অভিযোগে ঘুষের টাকা ফেরত দেয়া ও তাকে সাময়িক বরখাস্ত করার নির্দেশ দেন দুদক কমিশনার।

এছাড়া চাটমোহর ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ ও পৌর ভূমি কর্মকর্তার বিরুদ্ধে আনীত দুর্নীতির অভিযোগ তদন্তের আশ্বাস দেন দুদক কমিশনার।অপরদিকে চাটমোহর রেলস্টেশন মাস্টার মাসুম আলী খাঁনকে ট্রেনের টিকিট নিজের কাছে রেখে বিক্রি করার অপরাধে শোকজ করার নির্দেশ দেয়া হয় উপস্থিত পাকশী বিভাগীয় রেলওয়ের বাণিজ্যিক কর্মকর্তাকে।গণশুনানিতে চাটমোহর উপজেলা ভূমি অফিস, প্রাথমিক ও মাধ্যমিক শিক্ষা অফিস, হিসাবরক্ষণ অফিস, রেলওয়ে অফিস, সমাজসেবা অফিস, ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানসহ অন্যান্য সরকারি অফিসের সেবাবঞ্চিত, হয়রানির শিকার মানুষ সরাসরি উপস্থিত থেকে এবং নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক হয়ে লিখিত অভিযোগ তুলে ধরেন।এ সময় সেখানে উপস্থিত সংশ্লিষ্ট দফতরের কর্মকর্তারা সেসব অভিযোগের তাৎক্ষণিক জবাব দেন এবং কয়েক দিনের মধ্যে সমস্যার সমাধান দেবেন তারও প্রতিশ্র“তি দেন।অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন উপজেলা দুর্নীতি প্রতিরোধ কমিটির সাধারণ সম্পাদক মো. জাহাঙ্গীর আলম। অনুষ্ঠানে বিভিন্ন শ্রেণিপেশার মানুষ উপস্থিত ছিলেন।