রাসায়নিক হামলার আলামত নষ্টের অভিযোগ অস্বীকার রাশিয়ার

সিরিয়ায় ‘রাসায়নিক অস্ত্র হামলার’ আলামত রাশিয়া বা তাদের সমর্থক সরকারি বাহিনী নষ্ট করে ফেলেছে বলে যুক্তরাষ্ট্রসহ পশ্চিমারা যে অভিযোগ তুলেছে, তা অস্বীকার করেছে মস্কো। আন্তর্জাতিক রাসায়নিক অস্ত্র নিষিদ্ধকরণ সংস্থায় (ওপিসিডব্লিউ) নিযুক্ত যুক্তরাষ্ট্রের দূত কেনেথ ওয়ার্ড সোমবার (১৬ এপ্রিল) অভিযোগের আঙুল তোলার পর রুশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই লাভরভ এই অবস্থান জানান। তিনি যুক্তরাজ্যের প্রভাবশালী একটি সংবাদমাধ্যমকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে বলেন, ‘আমি নিশ্চিত করে বলতে চাই যে রাশিয়া এই এলাকায় কোনো প্রকার আলামত নষ্ট করেনি।’

গত ৭ এপ্রিল সিরিয়ার পূর্ব ঘৌতার বিদ্রোহী নিয়ন্ত্রিত শহর দৌমায় রাসায়নিক হামলার অভিযোগ ওঠে। এতে প্রায় ৭০ জন শ্বাসকষ্টে মারা যায়। অসুস্থ হয় আরও পাঁচ শতাধিক মানুষ। এই হামলার জন্য প্রেসিডেন্ট বাশার আল-আসাদ বাহিনীকে অভিযুক্ত করে তাদের ‘শিক্ষা দিতে’ সেখানে গত শনিবার (১৪ এপ্রিল) ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালায় যুক্তরাষ্ট্র-যুক্তরাজ্যসহ পশ্চিমারা। ওপিসিডব্লিউ রাসায়নিক হামলার ঘটনায় উদ্বেগ জানিয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শনের উদ্যোগ নেয়। কিন্তু পশ্চিমাদের অভিযোগ, সেখানে যেতে পরিদর্শকদের বাধা দেওয়া হচ্ছে, তাছাড়া আগেই হামলাস্থলের আলামত লোপাট করেছে রুশ বা তাদের সমর্থিত বাহিনী।

যদিও রাশিয়ার সামরিক বাহিনী আন্তর্জাতিক পরিদর্শকদের বুধবার (১৮ এপ্রিল) দৌমায় ঢুকতে দেবে বলে জানিয়েছে। সেখানে যাওয়ার জন্য ওপিসিডব্লিউ’র ৯ সদস্যের একটি দল সিরিয়ার রাজধানী দামেস্কের নিকটবর্তী এলাকায় অবস্থান করছে।পশ্চিমাদের অভিযোগের বড় কারণ, ওই রাসায়নিক হামলার পর থেকে দৌমা শহর সিরিয়ার সরকার এবং রাশিয়ান সামরিক বাহিনীর নিয়ন্ত্রণে রয়েছে।

পশ্চিমাদের অভিযোগ তুলে ধরলে রূশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘তারা কোনো তথ্য-উপাত্ত দিতে পারেনি, কেবল রিপোর্ট দেখে বলছে। তারা শুধু ফ্রান্স, যুক্তরাজ্য ও যুক্তরাষ্ট্রের নেতাদের বরাত দিচ্ছে। সত্যি বলতে, তারা এখন পর্যন্ত যা বলেছে সবই বিভিন্ন গণমাধ্যমের প্রতিবেদন ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম থেকে তথ্য নিয়ে বলছে।বলেন সের্গেই লাভরভ।