খুলনায় ভোট পড়েছে ৬২.১৯ শতাংশ: জামানত বাজেয়াপ্ত ৩ প্রার্থীর

সদ্য সমাপ্ত খুলনা সিটি করপোরেশন নির্বাচনে মোট ৪ লাখ ৯৩ হাজার ৯৩ জন ভোটারের মধ্যে ভোট দিয়েছে ৩ লাখ ৬ হাজার ৬শ’ ৩৬ ভোটার। ভোট পড়ার হার ৬২ দশমিক ১৯ শতাংশ।নির্বাচন কমিশনের (ইসি) নির্বাচন ব্যবস্থাপনা শাখার উপ-সচিব মো. ফরহাদ হোসেন মাঠ পর্যায় থেকে ফলাফল সংগ্রহের পর সমন্বয় করে এ তথ্য জানিয়েছেন।
নির্বাচনে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের প্রার্থী তালুকদার আব্দুল খালেক পেয়েছেন ১ লাখ ৭৪ হাজার ৮শ’ ৫১ ভোট। বিএনপির প্রার্থী নজরুল ইসলাম মঞ্জু পেয়েছেন ১ লাখ ৯ হাজার ২শ’ ৫১ ভোট।অন্যদিকে জাতীয় পার্টির প্রার্থী এসএম শফিকুর রহমান পেয়েছেন ১ হাজার ৭২ ভোট, বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টির প্রার্থী মিজানুর রহমান বাবু পেয়েছেন ৫৩৪ ভোট। আর ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশেরর প্রার্থী মো. মুজাম্মিল হক পেয়েছেন ১৪ হাজার ৩শ’ ৬৩ ভোট।এক্ষেত্রে সকল প্রার্থীর পক্ষে মোট ভোট পড়েছে ৩ লাখ ৭১ ভোট। বাতিল হয়েছে ৬ হাজার ৫শ’ ৬৫ ভোট। প্রদত্ত ভোটের সংখ্যা ৩ লাখ ৬ হাজার ৬শ’ ৩৬ ভোট। নির্বাচনী অনিয়মের কারণে খুলনা সিটি ভোটের তিনটি কেন্দ্রের ভোটগ্রহণ স্থগিত করে দিয়েছে নির্বাচন কমিশন। এই তিনটি কেন্দ্রের ভোটার সংখ্যা ৫ হাজার ৮শ’ ৩১।
জামানত বাজেয়াপ্ত: নির্বাচনে আট ভাগের এক ভাগ ভোটের কম পাওয়ায় তিনটি দলের প্রার্থীদের জামানত বাজেয়াপ্ত করেছে নির্বাচন কমিশন। জামানত বাজেয়াপ্ত হওয়া প্রার্থীরা হলেন- জাতীয় পার্টির প্রার্থী এসএম শফিকুর রহমান, বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টির প্রার্থী মিজানুর রহমান বাবু ও ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের প্রার্থী মো. মুজাম্মিল হক। খুলনা সিটিতে প্রদত্ত ভোটের আটভাগের এক ভাগ ৩৮ হাজার ৩’শ ৩০টি ভোট। ওই তিন প্রার্থীর কোনো প্রার্থীই এই সংখ্যক ভোট পাননি। এসব প্রার্থী ২০ হাজার টাকা করে জামানত হারিয়েছেন। সিটি করপোরেশন নির্বাচন বিধিমালা অনুযায়ী, ৫ লাখের কম ভোটার সংখ্যা হওয়ায় প্রার্থীদের ২০ হাজার টাকা জামানত দিতে হয়েছে।