শক্তিশালী পুঁজিবাজার গড়তে বাজেটের পর বৈঠক: অর্থমন্ত্রী

শক্তিশালী পুঁজিবাজার গড়তে বাজেটের পরে স্টেক হোল্ডারদের সঙ্গে বসবেন বলে জানিয়েছেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত।ওই বৈঠকে পুঁজিবাজারের উন্নয়নে করণীয় দিকগুলো খুঁজে বের করা হবে বলেও জানিয়েছেন তিনি।বৃহস্পতিবার রাজধানীর সোনারগাঁও হোটেলে বাংলাদেশে দীর্ঘমেয়াদি অর্থায়ন শীর্ষক সেমিনারে প্রধান অতিথির বক্তব্যে মন্ত্রী এ কথা বলেন।শিল্পায়নে দীর্ঘমেয়াদে অর্থায়নের উৎস হিসেবে বাংলাদেশের শেয়ার বাজার মোটেই কার্যকর হয়নি বলে দুঃখ প্রকাশ করেন মুহিত।আমাদের এখানে দীর্ঘমেয়াদি অর্থায়নে বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলো কাজ করছে। কিন্তু এটা তাদের কাজ না। শেয়ারবাজার এই দীর্ঘমেয়াদি অর্থায়নের উৎস হওয়া উচিত। তাই দীর্ঘমেয়াদি অর্থায়নের মাধ্যম করার লক্ষ্যে শেয়ারবাজারকে সাজাতেই হবে।
তিনি বলেন, বাংলাদেশে খেলাপি ঋণের সংস্কৃতি অনেক বেড়েছে, যা দীর্ঘমেয়াদি অর্থায়নে বাধা হিসেবে কাজ করছে।অর্থ মন্ত্রণালয়, পুঁজিবাজার নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি) এবং বিশ্ব ব্যাংক এই সেমিনারের আয়োজন করে। সেমিনারে বিএসইসির চেয়ারম্যান খায়রুল হোসেন বলেন, বাংলাদেশের শেয়ারবাজার এখনো রিটেইল ইনভেস্টর (ক্ষুদ্র বিনিয়োগকারী) নির্ভর, যা বাজারের মূল সমস্যা। এই সমস্যা কাটিয়ে উঠতে প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদের অংশগ্রহণ বাড়ানো দরকার।বিনিয়োগকারীরা এখনো গুজবের ভিত্তিতে বিনিয়োগ করে লোকসানের কবলে পড়ছে। আর এটাই বাজারের প্রধান সমস্যা।এ সমস্যা কাটিয়ে উঠতে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে দেশব্যাপি বিনিয়োগ শিক্ষা চালু করা হয়েছে জানিয়ে তিনি বলেন, বিশ্বের অন্যান্য দেশের জিডিপির তুলনায় বাংলাদেশের শেয়ারবাজারের আকার অনেক ছোট, যা জিডিপির মাত্র ২০ শতাংশ।

অর্থনীতির উন্নয়নে এই অংশগ্রহণ আরও বাড়ানো দরকার। এক্ষেত্রে দীর্ঘমেয়াদি অর্থায়নে শেয়ারবাজার গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে পারে। সেমিনারে নিয়ন্ত্রক সংস্থাগুলোর মধ্যে সমন্বয় এবং বন্ড মার্কেটের উন্নয়নে প্রণোদনা দিতে সরকারের কাছে সুপারিশ করেন বিএসইসি চেয়ারম্যান।বিশ্ব ব্যাংকের আবাসিক প্রতিনিধি চিমিয়াও ফান বলেন, বাংলাদেশ ধারাবাহিকভাবে উন্নতি করছে। তবে সক্ষমতা থাকার পরও ৮ শতাংশ হারে প্রবৃদ্ধি অর্জন করতে না পারাটা দুঃখজনক।আইএফসি বাংলাদেশের কান্ট্রি ম্যানেজার ওয়েন্ডি জো ওয়ের্নার বলেন, কৌশলগত বিনিয়োগকারী হিসেবে ডিএসইর সঙ্গে চীনা কনসোর্টিয়ামের চুক্তির মাধ্যমে বাংলাদেশের শেয়ারবাজার দীর্ঘমেয়াদে উপকৃত হবে। সেমিনারে অন্যদের মধ্যে বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর ফজলে কবির, জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের চেয়ারম্যান মোশাররফ হোসেন ভূইয়া এবং অর্থ সচিব ইউনুসুর রহমান বক্তব্য রাখেন।