গাজীপুর সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন ঃ জাহাঙ্গীরের মতবিনিময় ও ইফতার, হাসানের প্রতিবাদ

গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের নির্বাচনে আনুষ্ঠাণিক প্রচার প্রচারণা প্রায় একমাস পর ১৮জুন হতে শুরু কথা থাকলেও কোন প্রার্থীই বসে নেই তাদের নির্বাচনী প্রচার প্রচারনা থেকে। প্রতিদিনই তারা বিভিন্ন কৌশলে গণসংযোগ ও সভা করছেন ভোটার এবং কর্মী সমর্থকদের সঙ্গে। প্রার্থীরা তাদের কর্মী সমর্থকদের নিয়ে ভোটারদের কাছে গিয়ে নিজেদেরকে তুলে ধরছেন ভোট পাবার আশায়। প্রার্থীদের এ প্রচার প্রচারণার ব্যাপারে প্রতিদ্বন্দ্বি প্রার্থীরা একে অপরের বিরুদ্ধে নির্বাচনী আচরণ বিধি ভঙ্গের পাল্টাপাল্টি অভিযোগ তুলছেন। প্রার্থী ছাড়াও বিভিন্ন প্রতিষ্ঠাণের ও সংগঠণের দায়িত্বশীল কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধেও পক্ষপাতিত্ব ও নির্বাচনী আচরণ বিধি ভঙ্গের অভিযোগ উঠছে। সোমবার আওয়ামীলীগ নেতৃত্বাধীন ১৪ দলীয় জোট সমর্থিত গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের নির্বাচনে মেয়র প্রার্থী (নৌকা প্রতীক) অ্যাডভোকেট জাহাঙ্গীর আলম টঙ্গী এলাকায় শিক্ষক, অভিভাবক এবং শ্রমিকদের সঙ্গে মতবিনিময় করেন এবং ইফতার মাহফিলে যোগ দেন। আওয়ামীলীগের মেয় প্রার্থীর এ কার্যক্রমকে নির্বাচনী আচরণ বিধি লঙ্ঘন বলে নির্বাচন কমিশনে অভিযোগ করেছেন বিএনপি মনোনীত মেয়র প্রার্থী (ধানের শীষ প্রতীক) হাসান উদ্দিন সরকার।

জাহাঙ্গীর আলমের মিডিয়া সেলের সদস্য মোহাম্মদ আলম বলেন, সোমবার আওয়ামীলীগ নেতৃত্বাধীন ১৪ দলীয় জোট সমর্থিত গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের নির্বাচনে মেয়র প্রার্থী (নৌকা প্রতীক) অ্যাডভোকেট জাহাঙ্গীর আলম দিনব্যাপী মহানগরের টঙ্গীতে ৫৪, ৫৫ ও ৪৬ নম্বর ওয়ার্ডের কয়েকটি স্কুলের শিক্ষক, অভিভাবক এবং কারখানার শ্রমিকদের সঙ্গে মতবিনিময় করেন। দিনভর মতবিনিময় শেষে সন্ধ্যায় ৪৬ নম্বর ওয়ার্ডে নোয়াগাঁও উচ্চ বিদ্যালয় প্রাঙ্গণে ইফতার মাহফিলে যোগ দেন। আওয়ামীলীগ মনোনীত মেয়র প্রার্থী (নৌকা প্রতীক) অ্যাডভোকেট জাহাঙ্গীর আলম বেলা এগারটারদিকে ৫৪ নম্বর এ টঙ্গী পাইলট স্কুল এন্ড গার্লস কলেজে, দুপুর আড়াইটার দিকে ৪৬ নম্বর ওয়ার্ডের শাহাজউদ্দিন সরকার স্কুল এন্ড কলেজে এবং বিকেলে একই ওয়ার্ডের নওয়াগাঁও উচ্চ বিদ্যালয়ে মতবিনিময় করেন। বিকেলে তিনি টঙ্গী শিল্পাঞ্চলের পিনাকি গার্মেন্টসে শ্রমিকদের সঙ্গে মতবিনিময় করেন।

শিক্ষকদের সঙ্গে মতবিনিময়কালে তিনি বলেন, আমাদের সমাজের শিক্ষকগণ হচ্ছেন আদর্শের শক্তি, একমাত্র শিক্ষকরাই পারেন জনগণকে উদ্বুদ্ধ করে একজন আদর্শ মানুষকে নেতৃত্বে প্রতিষ্ঠিত করতে। এ ব্যাপারে আমি আপনাদের সহযোগীতা চাই। আমি আপনাদের সন্তানদের ভবিষ্যতের জন্য একটি সুন্দর ও আধুনিক নগর করতে চাই। গাজীপুরকে একটি গ্রীন সিটি ক্লিন সিটি গড়ে তুলতে চাই। আপনাদের সঙ্গে নিয়েই আমি তা গড়তে চাই। যেখানে সব শ্রেনীর মানুষ সুযোগ সুবিধা নিয়ে বসবাস করতে হবে। তিনি শ্রমিকদের উদ্দেশ্যে আরো বলেন, শ্রমিকরা আমাদের দেশের অর্থনীতির উন্নয়নে মূল চালিকা শক্তি। শ্রমিকদের কল্যাণে কেন্দ্রীয় সরকারের সঙ্গে সমন্বয় করে গাজীপুর সিটির ৮টি জোনে স্বল্প ভাড়ার আবাসিক ব্যবস্থা গড়ে তোলা হবে। তিনি আগামী ২৬ জুন নির্বাচনে সকল শ্রেনী পেশার মানুষের কাছে দোয়া, সহযোগীতা ও ভোট চান।

এসময় টঙ্গী থানা আওয়ামীলীগের সভাপতি এবং টঙ্গী পাইলট স্কুল এন্ড গার্লস কলেজের গর্ভনিং কমিটির সভাপতি মোঃ ফজলুল হক, অধ্যক্ষ মোঃ আলাউদ্দিন মিয়া, মহানগর আওয়ামীলীগের যুগ্ম সাধারন সম্পাদক মোঃ মতিউর রহমান মতি, সাহাজ উদ্দিন সরকার উচ্চ বিদ্যালয়ের অধ্যক্ষ মোঃ দেলোয়ার হোসেন, মহানগর আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক কাজী ইলিয়াস আহমেদ, টঙ্গী থানা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক মো. রজব আলী, টঙ্গী থানা যুবলীগের সভাপতি আঃ সাত্তার মোল্লা, মহানগর ওলামালীগের সাংগঠনিক সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম শেখ, শিল্পি সমণ¦য় পরিষদের কেন্দ্রীয় সাধারন সম্পাদক হাসান স্বপন, পিনাকী গার্মেন্টেসের পরিচালক মোঃ ফারুক হোসেনসহ প্রমুখ নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

অপরদিকে বিএনপির মেয়র প্রার্থী মো. হাসান উদ্দিন সরকারের নির্বাচনী মিডিয়া সেলের সদস্য মো. আজিজুর রহমান বলেন, টঙ্গী পাইলট স্কুল এন্ড গার্লস কলেজে শিক্ষক ও অভিভাবকদের সঙ্গে আওয়ামীলীগ মনোনীত মেয়র প্রার্থীর মতবিনিময় সভাকে নির্বাচনী আচরণবিধি লঙ্ঘন বলে অভিযোগ করেছেন বিএনপি মনোনীত মেয়র প্রার্থী (ধানের শীষ প্রতীক) হাসান উদ্দিন সরকার। বিএনপির মেয়র প্রার্থী এ ঘটনায় রির্টানিং অফিসারের কাছে লিখিত অভিযোগ করেছেন। বিএনপি মনোনীত মেয়র প্রার্থী (ধানের শীষ প্রতীক) হাসান উদ্দিন সরকার জানান, গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের নির্বাচনী প্রক্রিয়ার শুরু থেকেই আওয়ামীলীগ মনোনীত মেয়র প্রার্থী ও তার সমর্থকেরা একের পর এক আচরণবিধি লঙ্ঘন করে সুষ্ঠু নির্বাচনী পরিবেশ বিনষ্ট করে চলেছেন। আওয়ামীলীগের মেয়র প্রার্থী সোমবার টঙ্গী পাইলট স্কুল এন্ড গার্লস কলেজের পাঠদান বন্ধ রেখে নতুন ভবনের চারতলায় ‘অভিভাবক সমাবেশ’ এর নামে শিক্ষক ও অভিভাবকদের সঙ্গে নৌকা ও লাটিম প্রতীকের পক্ষে নির্বাচনী সভা করেছেন এবং ভোট চেয়েছেন। সভায় নৌকা প্রতীকের মেয়র প্রার্থী জাহাঙ্গীর আলম ওই প্রতিষ্ঠাণের শিক্ষার্থীদের শিক্ষা বৃত্তি প্রদানেরও অঙ্গীকার করেন।

এদিকে একই সভায়ওই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানটির অধ্যক্ষের সহোদর ভাই ৫৪ নম্বর ওয়ার্ডের সাধারণ আসনের কাউন্সিলর প্রার্থী (লাটিম প্রতীক) হেলাল উদ্দিনের পক্ষেও নির্বাচনী প্রচারণা চালানো হয় বলে অধক্ষের বিরুদ্ধে নির্বাচনী আচরণ বিধি ভঙ্গের অভিযোগ তুলেছেন একই ওয়ার্ডের সাধারণ আসনে কাউন্সিলর পদে প্রতিদ্বন্দ্বি অপর দুই প্রার্থী আওয়ামীলীগ নেতা নাসির উদ্দিন মোল্লা ও বিএনপি নেতা শেখ মো. আলেক। অভিযোগকারী কাউন্সিলর পদপ্রার্থী জানান, প্রতিষ্ঠানটির অধ্যক্ষ আলাউদ্দিন মিয়ার সহোদর হেলাল উদ্দিন ৫৪ নম্বর ওয়ার্ডে সাধারণ কাউন্সিলর পদে প্রতিদ্বন্দ্বীতা করছেন। কিন্তু আচরণবিধি লঙ্ঘন করে প্রতিষ্ঠাণের অধ্যক্ষ নিজের ভাইয়ের পক্ষে অবৈধভাবে নির্বাচনী সভা করেছেন। এসময় প্রার্থী হেলাল উদ্দিন ও তার ভাই অধ্যক্ষ আলাউদ্দিন মিয়া নৌকা ও লাটিম প্রতীকের জন্য উপস্থিত সবার কাছে ভোট চেয়েছেন।

এব্যপারে টঙ্গী পাইলট স্কুল এন্ড কলেজ অধ্যক্ষ মো. আলাউদ্দিন মিয়া বলেন, আমার স্কুলে কোন নির্বাচনী সভা হয়নি। প্রতিষ্ঠানের সভাপতির কাছে দেখা করতে ও দোয়া চাইতে মেয়র প্রার্থী জাহাঙ্গীর আলম স্কুলে এসেছিলেন।

নির্বাচনের সহকারি রিটার্নিং কর্মকর্তা মো. তারিফুজ্জামান বলেন, বাইরে গিয়ে কোন প্রার্থী নির্বাচনী মতবিনিময় কিংবা গণসংযোগ করতে পারবেন না। তবে ধর্মীয় আচার অনুষ্ঠানে প্রার্থীরা যোগ দিলেও নির্বাচনী বক্তব্য বা ভোট চাইতে পারবেন না। সোমবার এ সংক্রান্ত গণবিজ্ঞপ্তি জারি করা হয়েছে।

মোস্তাফিজুর রহমান টিটু, গাজীপুর ও নুরুল ইসলাম, টঙ্গী ॥