নারায়নগঞ্জের ব্যবসায়ী জামাই শ্বশুরকে অপহরণের পরদিন কালিয়াকৈর থেকে উদ্ধার

আটক ৫ অপহরণকারীকে গণধোলাই দিয়ে পুলিশে সোপর্দ

নারায়নগঞ্জের ব্যবসায়ী জামাই শ্বশুরকে অপহরণের পরদিন মঙ্গলবার গাজীপুরের কালিয়াকৈর থেকে উদ্ধার করেছে এলাকাবাসী। স্থানীয়রা এসময় অপহরণের কাজে ব্যবহৃত একটি মোটর সাইকেল ও প্রাইভেটকারসহ অপহরণের সঙ্গে জড়িত ৫ জনকে আটক করে গণধোলাই দিয়ে পুলিশে সোপর্দ করেছে। আটকৃতরা হলো- সজিব হোসেন (২২), প্রাইভেটকার চালক আল-আমিন (২০), তালিম হোসেন (২০), নিরব হোসেন(২৮) এবং রাজু আহমেদ।

কালিয়াকৈরের মৌচাক পুলিশ ফাঁড়ির এসআই মোঃ সাইফুল ইসলাম, এলাকাবাসী ও অপহৃতরা জানায়, একটি কারখানায় কাজের কন্ট্রাক্ট পাইয়ে দেয়ার প্রলোভন দেখিয়ে সোমবার সকাল ১০টার দিকে নারায়নগঞ্জের ফতুল্লা হতে স্থানীয় নির্মান ঠিকাদার রমজান সরদার ও তার জামাতা স¤্রাট মিয়াকে ঢাকার মিরপুরে নিয়ে আনে কয়েক ব্যক্তি। রমজান ও স¤্রাট ঢাকার মিরপুর ১০নম্বর এলাকায় পৌছলে দুর্বৃত্তরা কৌশলে ওই দু’জনকে একটি প্রাইভেট কারে তুলে অপহরণ করে নিয়ে যায়। পরে অপহৃতদের মীরপুরের একটি গ্যারেজে রাত পর্যন্ত আটকে রাখে এবং স্বজনদের কাছে ২০ লাখ টাকা মুক্তিপন দাবী করে। এসময় দুর্বৃত্তরা ডাচ বাংলা ব্যাংকের ৪টি চেকে অপহৃতদের স্বাক্ষর করিয়ে নেয়। পরদিন মঙ্গলবার ভোরে অপহৃত শ্বশুর রমজানকে একটি প্রাইভেটকারে এবং জামাতা স¤্রাটকে মোটরসাইকেলে তুলে গাজীপুরের কালিয়াকৈর উপজেলার মাঝুখান এলাকায় নিয়ে যায় অপহরণকারীরা। তারা মাঝুখান বাজারে পৌছলে স¤্রাট ডাকচিৎকার শুরু করে। তার ডাকচিৎকার শুনে স্থানীয়রা এগিয়ে এসে স¤্রাটকে উদ্ধার করে এবং দুই অপহরণকারীকে আটক করে। পরে তাদের দেওয়া তথ্য মতে স্থানীয় আমতলা এলাকা থেকে অপর অপহৃত রমজানকে প্রাইভেটকার হতে উদ্ধার করা হয়। এসময় কার চালকসহ আরও তিন অপহরণকারীকে আটক করে স্থানীয়রা। পরে উত্তেজিত এলাকাবাসি আটক অপহরণকারীদের গণ পিটুনী দিয়ে কালিয়াকৈর থানা পুলিশের কাছে সোপর্দ করে। পুলিশ অপহরণের কাজে ব্যবহৃত একটি মোটর সাইকেল ও প্রাইভেট কার এসময় জব্দ করেছে। বিকেলে আটককৃতদের মিরপুরের পল্লবী থানা পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়।