সোমবার দিবাগত রাত থেকে মঙ্গলবার ভোর ৫টা পর্যন্ত ১১ মাদক ব্যবসায়ী নিহত

সারা দেশে চলমান মাদকবিরোধী অভিযানে ৯জেলায় আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ সোমবার দিবাগত রাত ১২ থেকে থেকে মঙ্গলবার ভোর ৫টা পর্যন্ত ১১ মাদক ব্যবসায়ী নিহত হয়েছেন। র‌্যাব ও পুলিশের দাবি- নিহতরা সবাই মাদককারবারির সঙ্গে জড়িত। কারও কারও বিরুদ্ধে থানায় মাদক আইনে মামলাও রয়েছে। জানা গেছে, মাদকবিরোধী অভিযানকালে কুমিল্লা ও নীলফামারীতে দুজন করে এবং চট্টগ্রাম, ফেনী, ব্রাহ্মণবাড়িয়া, নেত্রকোনা, দিনাজপুর, নারায়ণগঞ্জ ও চুয়াডাঙ্গায় একজন করে নিহত হয়েছেন।

সৈয়দপুর (নীলফামারী):  সৈয়দপুরে মঙ্গলবার (২২ মে) রাত আড়াইটার দিকে গোলাহাট বধ্যভূমি এলাকা থেকে পুলিশের সাথে বন্দুকযুদ্ধে দুই মাদক ব্যবসায়ী নিহত হয়েছে। এর মধ্যে শহরের নিচু কলোনী এলাকার ইউসুফ হোসেনের ছেলে জনী (৩৪) ও ইসলামবাগ এলাকার আব্দুল হান্নানের ছেলে শাহিন (৩২) রয়েছে।

সৈয়দপুর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার অশোক কুমার পাল জানান, আটক মাদক ব্যবসায়ীরা জিজ্ঞাসাবাদে জানান, গোলাহাট বধ্যভূমি এলাকায় জসিয়ার রহমান জসি ও নূর বাবু নামে দুইজন চিহিৃত মাদক ব্যবসায়ী মাদকের বড় চালান নিয়ে আসবেন। ওই কথার সূত্র ধরে আটক দুইজনকে নিয়ে সেখানে গেলে এসময় গুলি চালানো হয় ও ককটেল ফাটানো হয়। ফলে ঘটনাস্থলে ওই দুইজন মাদক ব্যবসায়ী মারা যায় এবং ৪ জন পুলিশ গুরুতর জখম হয়। তাদের বিরুদ্ধে সৈয়দপুর থানায় আটটি করে মামলা রয়েছে।

চট্টগ্রাম: চট্টগ্রাম ব্যুরো থেকে প্রাপ্ত খবরে জানা যায়, নগরীর বায়েজিদ থানাধীন ডেবারপাড় এলাকায় র‌্যাবের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে শুক্কুর আলী (৪৫) নামে একজন নিহত হয়েছেন। র‌্যাব ৭-এর সিনিয়র সহকারী পরিচালক মিমতানুর রহমান বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

কুমিল্লা: আমাদের কুমিল্লা প্রতিনিধির পাঠানো তথ্যে জানা যায়, কুমিল্লা সদরের বাজগড্ডায় পুলিশের সঙ্গে বন্ধুকযুদ্ধে পেয়ার আলী (২৪) ও শরিফ (২৬) নামের ২ মাদক কারবারী নিহত হয়েছেন। সোমবার দিবাগত রাত পৌণে ১ টায় সদর উপজেলার জগন্নাথপুর ইউনিয়নের বাজগড্ডা এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। নিহত পেয়ার আলীর বিরুদ্ধে বিভিন্ন থানায় ১৩টি মাদকের মামলা রয়েছে। নিহত শরিফের বিরুদ্ধে বিভিন্ন থানায় ৫টি মাদকের মামলা রয়েছে।

বাঞ্ছারামপুর: উপজেলার সোনারামপুর গ্রামে আজ (সোমবার) ভোর রাতে র‌্যাব-১০ এর সাথে কথিত বন্দুকযুদ্ধে হোসেন মিয়ার ছেলে ধন মিয়া (৩২) নামে এক চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ী নিহত হয়েছে। ধন মিয়ার বিরুদ্ধে পূর্বে ৪টি মাদক ও সন্ত্রাসী মামলা ছিলো। জানা গেছে, নিহত ধন মিয়ার কাছ থেকে মোট ১১ হাজার ৬ শ পিস ইয়াবা এবং ৪৮ হাজার ৭ শত ৮০টাকা পাওয়া যায়। এ ছাড়া দেশীয় ব্রান্ডের একটি রিভলবার উদ্ধার করে র‌্যাব।

আড়াইহাজার: র‍্যাবের সাথে বন্ধুকযুদ্ধে বাচ্চু (৩৬) নামে এক মাদক ব্যবসায়ী নিহত হয়েছেন। সে ঢাকার উত্তরখান থানাধীন দক্ষিনখান এলাকার আশরাফ আলীর ছেলে। মঙ্গলবার ভোর পৌনে ৫টায় ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের উপজেলার সাতগ্রাম ইউনিয়নের শিমুলতলী এলাকায় এই ঘটনা ঘটে।

চুয়াডাঙ্গা: জেলার আলমডাঙ্গা উপজেলার শহরের রেলষ্টেশনের অদূরে পুলিশের সাথে বন্দুকযুদ্ধে চিহিৃত মাদক ব্যবসায়ী ও সাজাপ্রাপ্ত আসামী কামরুজ্জামান সাধু (৪৫) নিহত হয়েছে। সোমবার দিবাগত রাত ২ টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। সে সাজাপ্রাপ্তসহ এক ডজন মামলার আসামী।

দিনাজপুর: দিনাজপুরের বিরামপুরে পুলিশের সাথে কথিত বন্দুকযুদ্ধে দাগী মাদক ব্যবসায়ী প্রবাল হোসেন (৩৫) নিহত হয়েছে। নিহত মাদক ব্যবসায়ী প্রবাল হোসেন বিরামপুর উপজেলার ২ নং কাটলা ইউরিয়নের বাবু পাড়া গ্রামের খলিলুর রহমানের ছেলে।

ঘটনাটি ঘটেছে, সোমবার দিবাগত রাত ২টায় দিনাজপুরের বিরামপুর উপজেলার মির্জাপুর ভবানীপুর মনিরামপুর মাঠ এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। নিহত প্রবাল হোসেনের বিরুদ্ধে আগের ৮টি মামলা রয়েছে। এদিকে প্রবাল নিহতের ঘটনাটি তার পরিবারের সদস্যরা পুলিশর সাজানো বলে অভিযোগ করেছেন।

প্রসঙ্গত, এর আগে রোববার দিবাগত রাত থেকে সোমবার ভোর পর্যন্ত মাদকবিরোধী অভিযানে যশোর, ঝিনাইদহ, চুয়াডাঙ্গা, রাজশাহী, নরসিংদী, টাঙ্গাইলে ও গাজীপুরে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নয়জন নিহত হয়েছিল। তারাও মাদককারবারি বলে দাবি করেছিল আইনশৃঙ্খলা বাহিনী।