সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, এবারের ঈদে সড়কের কারণে সড়কে কোন যানজট হবে না। আসন্ন ঈদুল ফিতর উপলক্ষে আগামী ১২ জুন হতে চন্দ্রা থেকে এলেঙ্গা পর্যন্ত চার লেন সড়ক পুরোপুরি খুলে দেওয়া হবে। সড়কের ২৩টি ব্রিজের ওপর দিয়েও গাড়ি চলাচল করবে। ঈদের পরেও যারা ফিরতি যাত্রায় সামিল হবে এবং কর্মস্থলে ফিরে আসবে তাদের জন্য আমরা এ সড়ক খুলে দিচ্ছি। ঈদের পর মাননীয় প্রধান মন্ত্রী আনুষ্ঠানিক ভাবে এ চারলেন সড়কের উদ্বোধন করবেন।

তিনি আরো বলেন, ঈদুল ফিতরকে সামনে রেখে আমরা প্রস্তুত, অতি বৃষ্টির কারণে যে সকল সড়ক ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে, ইতোমধ্যে সেসব সড়কের রিপেয়ার এন্ড মেইটেনেন্স কাজ আমরা শেষ করেছি। কাজেই এবারের ঈদে সড়ক সচল থাকবে, তবে খুব বেশী বৃষ্টি হলে হয়তো রাস্তায় একটু স্লো স্পিড হতে পারে। তবে রাস্তায় কোন অবস্থাতেই সড়কের জন্য গাড়ি বন্ধ থাকবে না। সড়কের কারণে যানজট হবে না। সড়কে গাড়ি চলাচল বন্ধ হতে পারে রং সাইড দিয়ে আসা গাড়ির কারণে, অথবা সড়কে কোন গাড়ি অচল হয়ে গেলে বা ফিটনেসবিহীন গাড়ি সড়কে আটকে গেলে। আর এসব কারণে সড়কে যানবাহন চলাচলে বিঘœ হলে এটার জন্য তো সড়ক বা রাস্তা দায়ী নয়। তবে আমরা চাচ্ছি সড়কে ফিটনেস বিহীন গাড়ি যতটা কমানো যায়।

তিনি শনিবার দুপুরে গাজীপুরে কালিয়কৈরের চন্দ্রা ত্রিমোড় এলাকায় ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়ক পরিদর্শনে গিয়ে সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন। মন্ত্রী বলেন, আমার বক্তব্যকে বিকৃতভাবে প্রচার করবেন না। আমি বার বার একটা কথা বলেছি, সড়কের জন্য যানজট হবে না। কিন্তু কোনো কোনো পত্র-পত্রিকায় সে বক্তব্যকে বিকৃত করে ‘সড়কে যানজট হবে না’ বলে প্রকাশ করেছে। সড়কের কারণে যানজট হবে না, আর সড়কে যানজট হবে না- দুটো কিন্তু এক কথা নয়। আর আপনি যদি বলেন, সড়কে যানজট হবে না। এটা তো ভিন্ন বিষয়।

এ সময় মন্ত্রীর সঙ্গে হাইওয়ের ডিআইজি মো. আতিকুল ইসলাম, সড়ক ও জনপথের ঢাকা বিভাগীয় তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী সুবজ উদ্দিন খান, গাজীপুরের পুলিশ সুপার মোহাম্মদ হারুন অর রশিদ, গাজীপুর সড়ক ও জনপথের নির্বাহী প্রকৌশলী ডি.কে.এন. নাহিন রেজাসহ সড়ক জনপথ ও পুলিশের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।