কার্লাইলকে ভারত থেকে ফেরত পাঠানোয় বাংলাদেশের হাত নেই: সেতুমন্ত্রী

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরআওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরসড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার ব্রিটিশ আইনজীবী লর্ড কার্লাইলকে ভারতের দিল্লি বিমানবন্দর থেকে ফিরিয়ে দেওয়ার ব্যাপারে বাংলাদেশ সরকারের কোনো হাত নেই। এটা সম্পূর্ণ ভারতের অভ্যন্তরীণ ব্যাপার।

শুক্রবার দুপুরে গাজীপুরের চন্দ্রায় সড়কের অবস্থা দেখতে গিয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে সেতুমন্ত্রী এসব কথা বলেন।বাংলাদেশের বিচারব্যবস্থা ও রাজনৈতিক পরিস্থিতি ‘ব্যাখ্যা’র জন্য বুধবার রাতে ভারতের নয়াদিল্লি পৌঁছান ব্রিটিশ লর্ডসভার সদস্য ও বাংলাদেশের বিরোধী দল বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার আইনজীবী অ্যালেক্স কার্লাইল। তবে বৃহস্পতিবার তাঁর সেই নির্ধারিত সংবাদ সম্মেলন হয়নি। দিল্লির বিমানবন্দরে পৌঁছানোর পর কর্তৃপক্ষ তাঁকে জানিয়ে দেয়, তাঁর ভিসা বাতিল করা হয়েছে।ভারতে ঢুকতে না দেওয়ার ব্যাপারে কার্লাইল পরে টেলিফোনে সাংবাদিকদের বলেছেন, বাংলাদেশের চাপের কাছে ভারত নতি স্বীকার করেছে।গাজীপুরে সড়ক পরিদর্শনকালে ওবায়দুল কাদের আরও বলেন, তিন সিটি নির্বাচন অবাধ ও নিরপেক্ষ করতে নির্বাচন কমিশন স্বাধীনভাবে কাজ করবে। এখানে সরকারের কোনো ভিন্ন ভূমিকা থাকবে না।মন্ত্রী আরও বলেন, আগামী কোরবানির ঈদে সড়কযাত্রা স্বস্তিদায়ক হবে। ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কের চার লেনের অংশে নির্মাণাধীন ২৩ ব্রিজ দিয়ে গাড়ি চলবে।পরিদর্শনকালে মন্ত্রীর সঙ্গে ছিলেন সাসেক প্রকল্পের প্রকল্প ব্যবস্থাপক জিকরুল হাসান, ঢাকা বিভাগীয় সড়ক ও জনপথের তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী সবুজ উদ্দিন খান ও সড়ক বিভাগের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা।