শেষ মুহূর্তে অতিরিক্ত টাকা দাবি: শতাধিক হজযাত্রীর অনিশ্চয়তা

ভিসা ও টিকেট হয়ে যাওয়ার পরও অতিরিক্ত টাকা দাবি করার অভিযোগ করেছেন হজযাত্রীরা। বিশেষ করে, হজ এজেন্সি মিনার ট্রাভেলস অ্যান্ড ট্যুরসের মালিক জাহাঙ্গীর আলমের বিরুদ্ধে কাগজপত্র বুঝিয়ে না দেওয়ার অভিযোগ মিলেছে। ফলে অনিশ্চয়তায় পড়েছেন শতাধিক হজযাত্রী।শনিবার রাজধানীর আশকোনা হজ ক্যাম্পে সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায় অসহায় ভঙ্গিতে ঘুরে বেড়াচ্ছেন হজযাত্রা প্রত্যাশীরা।
আগামী ১৩ আগস্ট এ ২০ জন হজ যাত্রীর সৌদি আরব যাওয়ার কথা। কিন্তু আজ দুপুর পর্যন্তও ভিসা এবং বিমানের টিকিট হাতে না পাওয়ায় এজেন্সির কর্মকর্তাকে কাছে পেয়ে তাঁরা ক্ষোভে ফেটে পড়েন। পরে কর্তৃপক্ষের আশ্বাসে তাঁরা শান্ত হন। এজেন্সি মালিকও কাগজপত্র বুঝিয়ে দিতে রাজি হন।হজযাত্রীরা জানান, তাঁদের ভিসা ও বিমানের টিকেট প্রস্তুত হয়ে আছে। তবুও অতিরিক্ত টাকা দাবি করে তাঁদের সেগুলো বুঝিয়ে দিচ্ছে না কর্তৃপক্ষ।
এক হজযাত্রীকে জিজ্ঞেস করা হলে বলেন, কথাবার্তা উনারা আমাদের বলতেছে যে, কিছু টাকা-পয়সা উনাদের দিতে হবে। আরেকজন বলেন, ভিসা, টিকেট হয়ে গেছে। এখন হজ এজেন্সি ৫০ হাজার টাকা চাচ্ছে। এই টাকা তিনি দিতে পারবেন না বলেও জানান।টিকেট ও পাসপোর্ট বুঝিয়ে দিচ্ছেন না কেন জানতে চাইলে এজেন্সির এক কর্মকর্তা বলেন, না, আমি স্যারের কাছে আসছি। পাসপোর্ট নিতে আসছি এখানে। সব রেডি আছে।তবে, হজ এজেন্সিস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের (হাব) মহাসচিব শাহাদাত হোসেইন তসলিম বলেন, ‘যদি কোনো ব্যক্তি চুক্তির বাইরে এক টাকা দাবি করে, এই বিষয়ে আমাকে অবহিত করার জন্য অথবা পরিচালক হজ মহোদয়কে অবহিত করার জন্য বলছি। আরো বলছি, আর একটু নিশ্চিত করছি, আপনি সেই টাকা দেবেন না। আপনার যাওয়ার দায়িত্ব আমরা নিচ্ছি।এ ছাড়া হজ এজেন্সি এয়ার লাইফের ৮৩ জন যাত্রীর এখনো ভিসা হয়নি। তবে, রোববারের মধ্যে সবকিছু ঠিক হয়ে যাবে বলে জানিয়েছে কর্তৃপক্ষ।