ভোলায় অপ্রিতিরোধ্য অগ্রযাত্রায় বাংলাদেশ এই স্লোগানকে সামনে রেখে এক উন্নয়ন কনসার্ট অনুষ্ঠিত হয়েছে। উন্নয়ন কনসার্টকে কেন্দ্র করে ভোলায় এক উৎসব আমেজ সৃষ্টি হয়। বেশ কয়েক দিন ধরে ছিলো সাজ সাজ রব। শহর-গ্রাম-গঞ্জ সর্বত্র আলোচনার বিষয় কনসার্ট। দুপুর না গড়াতেই মানুষের ঢল নামে ভোলা সরকারি স্কুল মাঠে। হাজার হাজার মানুষ। সন্ধ্যার পর বিশাল জনসমুদ্র।
সোমবার ‘অপ্রতিরোধ্য অগ্রযাত্রায় বাংলাদেশ’ এই স্লোগান নিয়ে কনসার্টের উৎসবের আয়োজন করে সংস্কৃতি মন্ত্রণালয়। ব্যতিক্রমী উৎসব উপভোগ করেন হাজার হাজার মানুষ। বিভিন্ন বয়সী মানুষের উপস্থিতিতে দারুণ আনন্দঘন হয়ে ওঠেছিল পরিবেশ। বিকেলে শুরু হওয়া অনুষ্ঠান চলে মধ্যরাত পর্যন্ত। স্থানীয় শিল্পীদের পাশাপাশি ঢাকা থেকে আসা জনপ্রিয় শিল্পীরা অনুষ্ঠানে সঙ্গীত পরিবেশন করেন। সন্ধ্যায় অনুষ্ঠানে যোগ দেন বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ ও সংষ্কৃতি মন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর। সরকারের দুইজন গুরুত্বপূর্ণ মন্ত্রীর উপস্থিতি আয়োজনকে আরও বর্ণিল করে তোলে।
বিকাল সাড়ে ৫ টায় জাতীয় সঙ্গীতের মধ্য দিয়ে শুরু হয় উন্নয়ন কনসার্ট। এর পর ভোলা শিল্পকলা একাডেমীর শিল্পীরা আঞ্চলিক গান, কবিতা, নৃত্য পরিবেশন করেন। সন্ধ্যায় মঞ্চে আসেন ঢাকার শিল্পীরা। অনিমা মুক্তি গমেজ বেশ কয়েকটি গান গেয়ে শোনান। শ্রোতারা অধির আগ্রহে অপেক্ষা করছিলেন মমতাজের জন্য। জনপ্রিয় লোক গানের শিল্পী মঞ্চে ওঠেন সবার পরে। তার গাওয়া ‘পাঙ্খা পাঙ্খা’ ‘বুকটা ফাইট্যা যায়’ ইত্যাদি গানের সঙ্গে কণ্ঠ মেলান ভক্তরা। অনুষ্ঠানে আরও ছিল লেজারর শো। আতশবাজীর আলোয় ঝলমল করে ওঠে রাতের আকাশ।

এসময় অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে বন্তব্য রাখেন মাননীয় বানিজ্য মন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ এমপি। বিষেশ অতিথির বক্তেব্য রাখেন সংস্কৃতিক বিষয়ক মন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর । উদ্বোধনী বক্তব্য রাখেন জেলা প্রশাসক মোহাম্মাদ মাসুদ আলম সিদ্দিকি। অনুষ্ঠানে এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন,জাতীয় বিশ্ব বিদ্যালয়ের ভিসি ডা: হারুন অর রশিদ,দৈনিক কালেরকন্ঠের সম্পাদক এমদাদুল হক মিলন, এটিএন বাংলার প্রধান নির্বাহী সম্পাদক জ ই মামুনসহ বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গ ও প্রশাসনের কর্মকর্তাগন কনর্সাটে বিভিন্ন শিল্পির গান উপভোগ করেন।

অনুষ্ঠানে বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ বলেন, প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আজ বাংলাদেশ স্বল্প উন্নত দেশ থেকে আমরা উন্নয়নশীল দেশে রুপান্তরিত হতে চলেছি। ২০০৮ এর নির্বাচনের আগে তিনি যে স্বপ্ন দেখিয়ে ছিলেন ডিজিটাল বাংলাদেশ।স্বপ্ন দেখিয়েছিলো ২১ সালের মধ্যে বাংলাদেশ হবে মধ্যম আয়ের দেশ। ভিশন টুয়ান্টি টুয়ান্টি ওয়ান কে স্বপ্ন নয় বাস্তব।

অনুষ্ঠানে সংস্কৃতি মন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর বলেন, বিদ্যু,শিক্ষা,স্বাস্থ্য,যোগাযোগ,কৃষি,খেলাধুলা,সংস্কৃতি চর্চা এমন কোন ক্ষেত্র নেই,যেখানে প্রধান মন্ত্রীর নেতৃত্বে উন্নয়নের ছোয়া লাগেনি। তিনি নির্দেশ দিয়েছেন,সংস্কৃতিক চর্চাকে তৃনমূল পর্যায়ে নিয়ে যাও। আমরা সেই কাজ করে চলেছি।