আওয়ামী লীগের মনোনয়নপ্রত্যাশীদের মধ্যে ফরম বিক্রি শুরু হয়েছে। শুক্রবার (৯ নভেম্বর) সকাল ১০টায় ধানমন্ডিতে আওয়ামী লীগ সভাপতির রাজনৈতিক কার্যালয়ে ফরম বিক্রি শুরু হয়। দলের সভাপতি শেখ হাসিনার জন্য গোপালগঞ্জ ৩ আসনের ফরম বিক্রির মাধ্যমে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের এই কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন। শেখ হাসিনার পক্ষে ফরমটি কেনেন আওয়ামী লীগের ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক শেখ আবদুল্লাহ।

দলীয় সূত্রে জানা গেছে, দুই নম্বর ফরমটিও শেখ হাসিনার জন্য কেনা হয়। তবে এটি কোন আসনের জন্য তা জানা যায়নি। শেখ হাসিনার জন্য কেনা অন্য ফরমটি কোন আসনের তা পরে প্রকাশ করা হবে বলে ওবায়দুল কাদের জানান।স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরীর পক্ষে রংপুর ৬ আসনের জন্য তিন নম্বর ফরমটি সংগ্রহ করা হয়। ওবায়দুল কাদের ডেপুটি স্পিকার ফজলে রাব্বি মিয়ার হাতে এই ফরমটি তুলে দেন। স্পিকারের পক্ষে ফরমটি কেনেন চিফ হুইপ আ স ম ফিরোজ। চার নম্বর ফরমটি কেনেন ওবায়দুল কাদের নিজে, নোয়াখালী-৫ আসনের জন্য।ওবায়দুল কাদের এর আগে জানান, শুক্রবার থেকে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশীদের মধ্যে ফরম বিতরণ ও জমা নেওয়ার কাজ শুরু হচ্ছে এবং পরবর্তী নির্দেশনা না দেওয়া পর্যন্ত মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ ও জমা দেওয়া চলবে। ২০১৪ সালের দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে শেখ হাসিনা গোপালগঞ্জ-৩ আসনের পাশাপাশি তার শ্বশুরবাড়ির এলাকা রংপুরের পীরগঞ্জ (রংপুর-৬) আসনে নির্বাচন করে জয়ী হন। পরে তিনি রংপুর-৬ আসনটি ছেড়ে দিলে উপনির্বাচনে ওই আসনের এমপি হন স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরী।

ধানমণ্ডিতে আওয়ামী লীগ সভানেত্রীর রাজনৈতিক কার্যালয় এবং পাশের নির্বাচন পরিচালনা অফিসে ফরম বিতরণ কার্যক্রমের সূচনা করে ওবায়দুল কাদের বলেন, প্রচণ্ড আগ্রহ ও বিপুল উৎসাহ উদ্দীপনা নিয়ে আমাদের মনোনয়ন ফরম বিক্রি শুরু হয়েছে।

আওয়ামী লীগের মনোনয়ন ফরম কতদিন পর্যন্ত কেনা যাবে জানতে চাইলে দলের সাধারণ সম্পাদক বলেন, ১১ নভেম্বর বিকাল সাড়ে ৩টায় বঙ্গবন্ধু এভিনিউয়ে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে দলের মনোনয়ন বোর্ডের সভা হবে। সেখানেই এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত হবে।সর্বশেষ দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে মোট দুই হাজার ৬০৮ জন আওয়ামী লীগের মনোনয়ন ফরম কিনেছিল। এবার সেই সংখ্যা চার হাজার ছাড়িয়ে যাবে বলে আশা করছেন দলটির নেতারা।এবার মনোনয়ন ফরমের দাম ২৫ হাজার টাকা থেকে বাড়িয়ে ৩০ হাজার টাকা করা হয়েছে। ফরম বিক্রি থেকে গতবার আওয়ামী লীগের তহবিলে জমা পড়েছিল প্রায় সাড়ে সাত কোটি টাকা। এবার তা দশ কোটি ছাড়িয়ে যাবে বলে দলটির নেতাদের প্রত্যাশা।আওয়ামী লীগের নির্বাচন পরিচালনা অফিসে মনোনয়ন ফরম বিক্রির জন্য খোলা হয়েছে আট বিভাগের আটটি বুথ। সারা দেশে থেকে মনোনয়নপ্রত্যাশীরা তাদের কর্মী-সমর্থক নিয়ে ধানমণ্ডিতে ভিড় করায় বৃহস্পতিবার বিকেল থেকেই সেখানে চলছে উৎসবের আমেজ।