বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) এর মহাপরিচালক মেজর জেনারেল মোঃ সাফিনুল ইসলাম বলেছেন, দুর্গম পাহাড়ী এলাকার বিওপিতে সহায়তা প্রদানের লক্ষ্যে খুব শীঘ্রই আরও দু’টি হেলিকপ্টার কেনা হবে।

সোমবার বিজিবি মহাপরিচালক নিয়মিত সীমান্ত পরিদর্শনের অংশ হিসেবে খাগড়াছড়ি সেক্টরের সবচেয়ে দুর্গম ‘উত্তর লক্কাছড়া’ বিওপি এবং ‘কান্তালং’ বিওপি পরিদর্শনকালে এ কথা বলেন। মহাপরিচালক বলেন, বর্তমান সরকারের আন্তরিক প্রষ্টায় বিজিবি’র এয়ার উইং অনেকটা স্বয়ং সম্পূর্ণ ইউনিট হিসেবে কাজ করছে। হেলিকপ্টার দু’টি ক্রয় সম্পন্ন হলে পার্বত্য এলাকার দুর্গম বিওপিতে সহায়তা প্রদান করা আরো সহজ হবে এবং বিওপি’র অপারেশনাল দক্ষতা ও প্রশাসনিক ব্যবস্থাপনা আরো বৃদ্ধি পাবে।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, মহাপরিচালকের নির্দেশে বিওপিতে যাতায়াতের সুবিধার্থে পায়ে চলার রাস্তা নির্মাণ করা হচ্ছে। এছাড়া ঐ এলাকায় মোবাইল নেটওয়ার্ক না থাকায় বিজিবি’র নিজস্ব অর্থায়নে মোবাইল টাওয়ার স্থাপন করা হচ্ছে। বিদ্যুৎ না থাকায় সৌরবিদ্যুতের সাহায্যে বিভিন্ন ধরণের লাইট, ফ্যান ও বৈদ্যুতিক যন্ত্র চালানোর ব্যবস্থা করা হয়েছে।

এ সময় বিজিবি মহাপরিচালক বিওপিতে বাস্তবায়িত বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কর্মকাণ্ড পরিদর্শন করেন এবং সংশ্লিষ্ট ব্যাটালিয়ন অধিনায়কদের বিওপির উন্নয়নে নতুন নতুন উদ্যোগ গ্রহণের নির্দেশ দেন। দুর্গম এ দু’টি বিওপিতে ব্যাটালিয়ন সদর থেকে পায়ে হেঁটে পৌঁছাতে ৪ থেকে ৫ দিন সময় লাগে এবং হেলিকপ্টারযোগে বিওপিতে মাসে ১ থেকে ২ বার রেশন ও তাজা খাবার সরবরাহ করা হয়।