বেতন ভাতা বৃদ্ধির দাবীতে আন্দোলনে যোগ না দেওয়ায় সোমবার বহিরাগতরা গাজীপুরের এক পোশাক কারখানায় হামলা চালিয়ে বিভিন্ন মালামাল ও গাড়ি ভাংচুর করেছে। এসময় বাধা দিলে বহিরাগতদের হামলায় চার শ্রমিক আহত হয়েছে।

গাজীপুর শিল্প পুলিশের ইন্সপেক্টর ইয়াসিন কবির, কারখানার কর্মকর্তা ও শ্রমিকরা জানায়, সরকার ঘোষিত মুজুরী কাঠামোয় বৈষম্যের অভিযোগে তা দূর করে ন্যূনতম বেতন ভাতা বৃদ্ধি ও বাস্তবায়নের দাবিতে গত কয়েকদিন ধরে গাজীপুরের বিভিন্ন পোশাক কারখানার অপারেটর ও শ্রমিকরা কর্মবিরতি ও বিক্ষোভ করে আসছে। সোমবারেও জেলার কয়েকটি পোশাক কারখানার অপারেটর ও শ্রমিকরা কর্মবিরতি ও বিক্ষোভ করে। এদিন গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের মালেকের বাড়ির শরীফপুর রোড এলাকার টেক্স টেক কোম্পানী লিমিটেডের শ্রমিকরা আন্দোলনরতদের সঙ্গে অংশ না নিয়ে উৎপাদন কাজে যোগ দেয়। এতে ওই এলাকার আশেপাশের কয়েক কারখানার শ্রমিকদের মাঝে অসন্তোষ দেখা দেয়। একপর্যায়ে বেলা ১১ টার দিকে অর্ধশতাধিক বহিরাগত লোকজন লাঠিসোটা নিয়ে ওই কারখানায় গিয়ে বিক্ষোভ করতে থাকে। এসময় তাদের সঙ্গে আন্দোলনে যোগ দিতে কর্মরত শ্রমিকদের কারখানা হতে বের করে আনার চেষ্টা করে বহিরাগতরা। কিন্তু কর্মরত শ্রমিকরা আন্দোলনে যোগ দিতে অস্বীকৃতি জানিয়ে উৎপাদন কাজ অব্যহত রাখে। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে বহিরাগতরা কারখানায় হামলা চালিয়ে ভাংচুর করতে থাকে। হামলাকারীরা কারখানার দরজা জানালার কাঁচসহ বিভিন্ন মালামাল, একটি কাভার্ডভ্যান ও একটি প্রাইভেট কার ভাংচুর করে ঘটনাস্থল ত্যাগ করে। এসময় বহিরাগতদের বাধা দিলে তাদের হামলায় ও এলোপাতাড়ি মারধরে কারখানার চার শ্রমিক আহত হয়। কারখানার অন্য শ্রমিক ও স্থানীয়রা আহতদের উদ্ধার করে হাসপাতালে প্রেরণ করে। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।