গাজীপুরের কালিয়াকৈরে চলন্ত বাস থেকে ধাক্কা দিয়ে ফেলে দিয়ে ছাত্রকে হত্যার ঘটনায় জড়িতদের গ্রেফতার ও শাস্তির দাবীতে শনিবার ওই বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কে মানববন্ধন করেছে। এসময় ক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা কয়েকটি গাড়ি ভাংচুর ও মহাসড়ক অবরোধ করেছে।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, কালিয়াকৈরের চন্দ্রাস্থিত জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু সরকারী উচ্চ বিদ্যালয়ের ৭ম শ্রেণীর ছাত্র হযরত ওমর (১৪) গত বৃহষ্পতিবার ছুটির পর বিদ্যালয় থেকে বাসায় ফিরছিল। পথে ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কের কালিয়াকৈরের চন্দ্রা বাস স্টপেজ হতে ঢাকাগামী আজমেরী পরিবহনের একটি বাসে উঠে সে। এসময় ওমরকে চলন্ত বাস থেকে ধাক্কা দিয়ে নীচে ফেলে দেয় ওই বাসের হেলপার। এতে মাটিতে পড়ে একই বাসের সঙ্গে সজোরে ধাক্কা খেয়ে নিহত হয় হযরত ওমর। এ ঘটনার প্রতিবাদে ঘটনায় জড়িতদের গ্রেফতার ও শাস্তি এবং ও ফুটপাত দখলমুক্ত মহাসড়কের দাবীতে শনিবার সকালে ওই বিদালয়ের পার্শ্ববর্তী ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কের চন্দ্রা এলাকায় মানববন্ধন করে শিক্ষার্থীরা। এসময় ক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা কয়েকটি গাড়ি ভাংচুর ও মহাসড়ক অবরোধ এবং বিক্ষোভ করে। এতে ওই মহাসড়কে প্রায় দু’ঘন্টা যানবাহন চলাচল ব্যহত হয়। খবর পেয়ে পুলিশঘটনাস্থলে গিয়ে দায়ীদের গ্রেফতারের আশ্বাস দেয়। পরে শিক্ষার্থীরা তাদের কর্মসূচি স্থগিত করলে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়।

উল্লেখ্য, বৃহষ্পতিবারের ওই ঘটনায় পুলিশ ঘাতক বাসটিকে আটক করে। তবে বাসের চালক ও হেলপার পালিয়ে যেতে সক্ষম হয়। নিহত হযরত ওমর (১৪) যশোরের চৌগাছা থানার বিল কুষ্টিয়া এলাকার শিমুল হোসেনের একমাত্র সন্তান।

ক্যাপশনঃ গাজীপুরের কালিয়াকৈরে চলন্ত বাস থেকে ধাক্কা দিয়ে ফেলে দিয়ে ছাত্রকে হত্যার ঘটনায় জড়িতদের গ্রেফতার ও শাস্তির দাবীতে শিক্ষার্থীদের মানব বন্ধন।