দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা, সেতু নির্মাণ ও অন্যান্য খাতে ৭২ কোটি ৫৭ লাখ মার্কিন ডলার অনুদান দিচ্ছে চীন, যা প্রায় ৬০৮ কোটি ৫০ লাখ টাকা। এজন্য সরকারের সঙ্গে চীনের একটি চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়েছে।

রোববার (২০ জানুয়ারি) রাজধানীর শেরেবাংলা নগরের সিপিটিইউ সম্মেলন কক্ষে চুক্তিতে স্বাক্ষর করে অর্থনৈতিক সম্পর্ক বিভাগের (ইআরডি) সচিব মনোয়ার আহমেদ এবং চীনের রাষ্ট্রদূত জুয়াং ঝু।

চুক্তি শেষে মনোয়ার আহমেদ বলেন,এরইমধ্যে চীনের প্রেসিডেন্টের সঙ্গে ২৭টি প্রকল্পের বিষয়ে সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষর হয়েছে। এর মধ্যে এখন পর্যন্ত ৫টি প্রকল্পে ঋণ চুক্তি হয়েছে। চলতি অর্থবছরে বিদ্যুতের আরও দুটি প্রকল্পে ঋণ চুক্তির কথা রয়েছে। সমঝোতা হওয়া প্রকল্পগুলোর দ্রুত ঋণ চুক্তি হওয়া প্রয়োজন। এজন্য তিনি রাষ্ট্রদূতের ব্যক্তিগত হস্তক্ষেপ কামনা করেন।

জুয়াং ঝু বলেন, ‘চীন বাংলাদেশের অন্যতম বন্ধু। বাংলাদেশের উন্নয়নে অংশ নিতে পেরে চীন আনন্দিত। চীন এদেশের অন্যতম উন্নয়ন অংশীদার হিসেবে সহযোগিতা অব্যাহত রাখবে।

চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে জানানো হয়, ইতিপূর্বে চীনা অনুদানে সমাপ্ত প্রকল্পগুলোর মধ্যে একটি আন্তর্জাতিক মানের সম্মেলন কেন্দ্র ও ৮টি বাংলাদেশ-চীন মৈত্রী সেতু নির্মাণ, কৃষিক্ষেত্রে যন্ত্রপাতি ও হাইব্রিড রাইস টেকনোলজি সহায়তা এবং মেডিকেল ইক্যুপমেন্ট, ড্রেজার এবং কাস্টমসের জন্য স্ক্যানার সরবরাহ উল্লেখযোগ্য।তাছাড়া চীনা অনুদান সহায়তায় চলমান উল্লেখযোগ্য প্রকল্পগুলো হচ্ছে- পূর্বাচলে একটি বাংলাদেশ-চায়না ফ্রেন্ডশিপ এক্সিবিশন সেন্টার নির্মাণ, চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজে বার্ন ইউনিট নির্মাণ, ফায়ার সার্ভিসের জন্য মোটরসাইকেল সরবরাহ এবং ফ্লাড ম্যানেজমেন্ট প্ল্যানিং প্রকল্প নির্মাণ করা হবে।