পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আবদুল মোমেন জানিয়েছেন, মিয়ানমার সীমান্ত আগেই বন্ধ ছিলো, এখন পুরোপুরি বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। ফলে আর কোনো রাখাইন অধিবাসী বাংলাদেশে ঢুকতে পারবে না। আজ বুধবার দুপুরে বাংলাদেশে সফররত জাতিসংঘ শরণার্থী বিষয়ক সংস্থার (ইউএনএইচসিআর) বিশেষ দূত ও হলিউড অভিনেত্রী অ্যাঞ্জেলিনা জোলির সাথে বৈঠক শেষে তিনি এসব কথা বলেন। পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, মূলত রাখাইন আর্মি ও মিয়ানমার আর্মির মধ্যে সংঘর্ষের কারণে রোহিঙ্গাদের পর এবার বৌদ্ধ ও অন্যান্য এথনিক গ্রুপ দেশ ছাড়ছেন। তারা দেশ ছেড়ে বাংলাদেশে আসছেন। তবে আমরা বর্ডার সিল করে দিয়েছি।

সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, আমরা আগেই সীমান্ত খুলে দিয়েছি, ১০ লাখ রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠিকে আশ্রয় দিয়েছি, এখন অন্যরা তাদের সীমান্ত খুলুক। অ্যাঞ্জেলিনা জোলির সাথে আলোচনার বিষয়ে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, জোলিকে বলেছি রোহিঙ্গা ইস্যুতে আর্ন্তজাতিক সম্প্রদায়েরও দায়িত্ব রয়েছে। রোহিঙ্গা সঙ্কট জিইয়ে থাকলে বিশ্বের স্বার্থ বিঘ্নিত হবে, সবার জন্য অমঙ্গল হবে। সকলের স্থিতিশীলতার জন্য রোহিঙ্গা সঙ্কট একটি হুমকি বলেও জানান তিনি। এ সময় রোহিঙ্গাদের অধিকার নিশ্চিতের পাশাপাশি, তাদের নিরাপদ প্রত্যাবাসনের গুরুত্ব তুলে ধরেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী।