উপজেলার লৌহজংএ জমি দখলদারদের উচ্ছেদ করেছে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট। বুধবার দুপুরে হলদিয়া ইউনিয়নের শিমুলিয়া মৌজার আরএস ৭২৭ সরকারি জমি দখলদারদের উচ্ছেদ অভিযান করাহলে। দীর্ঘ ১০ বছর যাবৎ সরকারি ০.৩১ একর জমি দখল করে বসবাস করছিলো ৯নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি মনিরুজামান দুলু খানসহ ইঞ্জিনিয়ার মতিন খান, এমারত খান, জুম্মান শেখ, রুমেল শেখ।

এরা– অবৈধভাবে সরকারি এ জমি দখল করে ছিলো। এর আগে গত ২০-১১-১৮ তারিখে অবৈধ স্থাপনা সরিয়ে নেওয়ার জন্য নোটিশ দিয়ে ছিল স্থানীয় সরকার। কিন্তু তারা তাদের স্থাপনা সরিয়ে নেননি।তার ফলেই উচ্ছেদ অভিযান চালিয়ে উচ্ছেদ করা হয়। লৌহজং উপজেলা নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ কাবিরুল ইসলাম খান ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. মাহমুদুর রহমান খন্দকার এ দখলকৃত জমিতে উচ্ছেদ অভিযান করেন। শিমুলিয়া ৯নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগ সভাপতি মনিরুজামান দুলু খানসহ ইঞ্জিনিয়ার মতিন খান, এমারত খান, জুম্মান শেখ, রুমেল শেখের ৪টা ঘর ও দুটো পাকা বাথরুম ভেঙ্গে ০.৩১ একর জমি দখল মুক্ত করা হয়।

এসময় উপস্থিত ছিলেন লৌহজং উপজেলা কানুনগো মো গোলাম মোস্তফা, সারর্ভেয়ার মো. হাবিবুর রহমান, মো. সাইফুল ইসলাম, হলদিয়া ইউনিয়ন ভূমি সহকারী কর্মকর্তা দেওয়ান বোরহান উদ্দিন , লৌহজং থানার এসআই রাছেল, স্থানীয় আতাউর রহমান খানসহ আরো অনেকে। নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. মাহমুদুর রহমান জানান, সরকার ও স্থানীয় কতৃপক্ষের (ভূমি) হুকুম দখলের ১৯৭০ এর ৫ ধারা অনুযায়ী আমরা এখানকার যারা অবৈধ দখলদার মনিরুজামান দুলু খান, ইঞ্জিনিয়ার মতিন খান, এমারত খান, জুম্মান শেখ ও রুমেল শেখ। এরা অবৈধভাবে সরকারি জমি দখল করে ছিলো। এদরেকে গত ২০-১১-১৮ তারিখে অবৈধ স্থাপনা সরিয়ে নেওয়ার জন্য নোটিশ দিয়েছিলাম। কিন্তু তারা তাদের স্থাপনা সরিয়ে নেননি। তাই আমরা এ উচ্ছেদ অভিযান চালিয়েছি।