৮ ফেব্রুয়ারী একুশে পদকপ্রাপ্ত (মরণোত্তর) চিত্রশিল্পী কাজী আনোয়ার হোসেনের দ্বাদশ মৃত্যুবার্ষিকী। এই উপলক্ষে আজ শুক্রবার বাদ আসর মাদারীপুর শহরের মসজিদগুলোতে দোয়া ও মিলাদ মাহফিলের আয়োজন করা হয়েছে। ১৯৬৪ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা ইনস্টিটিউটি থেকে স্নাতক উত্তীর্ণের পর থেকেই শিল্পী আনোয়ার হোসেনের নানা বৈচিত্রময় ছবি একেছেন। ক্যানভাস হিসেবে দিয়াশলাইয়ের খাপের কাঠের অংশের উপর নৌকা এবং অনিবার্ষভাবে ব্যতিক্রমভাবে নদীর দৃশ্যও চিত্রায়িত করেন। এ ছাড়া তিনি ছবির উপকরণ হিসেবে আঠা, গাছের পাতা, ছাল, মাছের কাটা, হাড়, টুকরা কাপড় ইত্যাদি ব্যবহার করতেন। তাই তিনি মর্ডান আর্ট শিল্পী হিসেবেও পরিচিতি লাভ করেছেন। এছাড়াও এই গুনি শিল্পী সকলের কাছে নৌকা আনোয়ার হিসেবে পরিচিত লাভ করেন।
১৯৮৮ সালের বন্যার ছবি একে একক চিত্র প্রদর্শনীর মাধ্যমে বিক্রির ব্যবস্থা করেন। সেই ছবি বিক্রির টাকা বন্যার্তদের মধ্যে ত্রাণসামগ্রী বিতরণ এবং বন্যা পরবর্তী পূনর্বাসনে দূর্গত মানুষদের সহায়তার করেন।
মৃত্যুর আগ পর্যন্ত দেশে বিদেশে ২২ টিরও বেশি একক ও যৌথ প্রদর্শনীতে প্রদর্শিত হয়েছে তার ছবি। তার আকা ছবি রক্ষিত আছে বাংলাদেশের জাতীয় জাদুঘর, জাতীয় চিত্রশালা, বাংলাদেশ সংসদ সচিবালয়, দেশের অনেক আর্ট গ্যালারিসহ বাংলাদেশের প্রায় ৬০টি সার্কিট হাউজে।
২০০৭ সালের ৮ ফেব্রুয়ারী হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে রংতুলি হাতে নিয়েই তিনি স্ত্রী, দুই ছেলে, দুই মেয়েসহ অসংখ্য আত্মীয়-স্বজন, ভক্ত অনুরাগীদের রেখে মারা যান।
২০১৬ সালে শিল্পকলায় (চিত্রকলা) মাদারীপুরের চিত্রশিল্পী কাজী আনোয়ার হোসেন মরণোত্তর একুশে পদক লাভ করেন।
আজ এই গুনি শিল্পীর মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে মাদারীপুর শহরের আমিরাবাদ এলাকার কাজীবাড়ির নিজবাস ভবনসহ জেলা শহরের মসজিদগুলোতে বাদ আসর দোয়া ও মিলাদ মাহফিলের আয়োজন করেছেন তার ছোট ছেলে কাজী আশিকুর হোসেন অপু।

সাবরীন জেরীন,মাদারীপুর।